corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুরাতের দুই মেয়ের সাহায্যেই নাসা জানল পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে ভয়ঙ্কর গ্রহাণু!‌

সুরাতের দুই মেয়ের সাহায্যেই নাসা জানল পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে ভয়ঙ্কর গ্রহাণু!‌

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, এই গ্রহাণুটি বর্তমানে মঙ্গলগ্রহের কাছে রয়েছে। খুব দ্রুত এটি হয়ত পৃথিবীর খুব কাছাকাছি এসে পড়বে।

  • Share this:

#‌সুরাত:‌ ক্লাস টেন–এর ছাত্রী দুই মেয়ে!‌ তাঁরাই সম্প্রতি নাসাকে খবর দিল পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে ভয়ঙ্কর গ্রহাণু। পরে সেই গ্রহাণুর সন্ধান পেয়ে নামকরণ করা হয়েছে HLV2514। আর কয়েকদিনের মধ্যে হয়ত পৃথিবীর খুব কাছে চলে আসবে এটি।

গুজরাতের সুরাতের দুই ছাত্রী বৈদেহী ভেকারিয়া সঞ্জয়ভাই এবং রাধিকা লাখানি প্রফুলভাই দু’‌জনেই সিবিএসই–এর স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী। সম্প্রতি তারা অংশ নিয়েছিল ‘All India Asteroid Search Campaign 2020’–নামে এই বিশেষ অনুষ্ঠানে। সেই অনুষ্ঠানের অংশ হিসাবেই তারা এই নতুন দুই গ্রহাণুর সন্ধান পেয়েছেন। এই দু’‌মাসের প্রোগ্রামটি পরিচালনা করেছিল স্পেস ইন্ডিয়া। সঙ্গে যুক্ত হয়েছিল International Astronomical Search Collaboration (IASC) ও টেক্সাসের হার্ডিন বিশ্ববিদ্যালয়। জুলাই মাসের ২৪ তারিখে স্পেস ইন্ডিয়ার ফেসবুক পেজে এই ঘটনার কথা ঘোষণা করা হয়।

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, এই গ্রহাণুটি বর্তমানে মঙ্গলগ্রহের কাছে রয়েছে। খুব দ্রুত এটি হয়ত পৃথিবীর খুব কাছাকাছি এসে পড়বে। সরাসরি কত দূরত্ব দিয়ে এটি পৃথিবীকে অতিক্রম করে যাবে বা ঠিক কবে যাবে, সেটা এখনও স্পষ্ট করে বলতে পারেননি বিজ্ঞানীরা। তবে তাঁরা জানিয়েছেন, এই দুই ছাত্রীর কারণেই এই গ্রহাণুর সন্ধান তাঁরা পেয়েছেন। হাওয়াই দ্বীপে প্যান স্টার টেলিস্কোপ ব্যবহার করেছিলেন এই দুই মেধাবী পড়ুয়া। এই উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন টেলিস্কোপটি সিসিডি ক্যামেরার সাহায্যে গ্রহাণুর ছবি তোলে এবং এটি তৈরিই এমনভাবে যাতে মহাকাশের অপেক্ষাকৃত অনুজ্জ্বল বস্তুগুলি এতে নজরে পড়ে। নাসার পক্ষ থেকে ই মেল করে এই বিরল গ্রহাণু আবিষ্কারের জন্য ওই দুই ছাত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও ওই ছাত্রীদের জন্য শুভেচ্ছা বার্তা উপচে পড়ছে। আসলে মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রটা এমনই যে যে কেউ, যে কোনও মুহূর্তে কেবল মাত্র আগ্রহ, মেধা আর পড়াশোনার জোরে নতুন করে আবিষ্কার করে বসতে পারে। দেখে ফেলতে পারে এমন কোনও মহাজাগতিক ঘটনা, যা সারা বিশ্বে সাড়া ফেলে দিতে পারে। তেমনই কাজ করেছে সুরাতের এই ছাত্রীরা।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: July 27, 2020, 1:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर