corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা নিতেই হবে, ইউজিসি-র নির্দেশিকাকে মান্যতা দিল সু্প্রিম কোর্ট

ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা নিতেই হবে, ইউজিসি-র নির্দেশিকাকে মান্যতা দিল সু্প্রিম কোর্ট
প্রতীকী ছবি

ইউজিসি নির্দেশ দিয়েছিল, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের পরীক্ষা শেষ করতে হবে সমস্ত কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষা না নিয়ে কাউকেই উত্তীর্ণ ঘোষণা করতে পারবে না কোনও রাজ্য৷ ইউজিসি-র নির্দেশিকাকে মান্যতা দিয়েই এ দিন এমন রায় দিল সুপ্রিম কোর্ট৷ ইউজিসি নির্দেশ দিয়েছিল, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যেই স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর স্তরের পরীক্ষা শেষ করতে হবে সমস্ত কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে৷ সেই নির্দেশিকাকে চ্যালেঞ্জ করেই সুপ্রিম কোর্টে একাধিক আবেদন জমা পড়েছিল৷ সেই আবেদনগুলির পরিপ্রেক্ষিতেই এ দিন এই রায় দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷

তবে সুপ্রিম কোর্টের এ দিনের নির্দেশিকা অনুযায়ী, প্রয়োজনে পরীক্ষার দিন পিছিয়ে ৩০ সেপ্টেম্বরের পর করার জন্য ইউজিসি-র কাছে আবেদন করতে পারবে রাজ্যগুলি৷ তবে বিপর্যয় মোকাবিলা আইনের অধীনে যে রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি এই পরীক্ষা বাতিল করেছে, সেই নির্দেশিকা বাতিল হয়ে গেল এ দিনের রায়ে৷

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি অশোক ভূষণ, সুভাষ রেড্ডি এবং এম আর শাহের ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন এই রায় দিয়েছেন৷ ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন রায় দিতে গিয়ে স্পষ্ট জানিয়েছে, 'অতীতের ফলাফল বা অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের ভিত্তিতে কোনও পড়ুয়াকেই উত্তীর্ণ ঘোষণা করতে পারবে না রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি৷ তবে চাইলে ৩০ সেপ্টেম্বরের পর পরীক্ষা নেওয়ার জন্য ইউজিসি-র কাছে আবেদন করতে পারে তারা৷'

গত ৬ জুলাই ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা নেওয়াকে বাধ্যতামূলক করে নির্দেশিকা জারি করে ইউজিসি৷ যদিও করোনা অতিমারির কারণ দেখিয়ে অনেক রাজ্যই এই নির্দেশিকা মানেনি৷ বিপর্যয় মোকাবিলা আইনে পরীক্ষা বাতিল করে অতীত পরীক্ষাগুলিতে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে পড়ুয়াদের ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষার নম্বর দেয় তারা৷ ইউজিসি অবশ্য আদালতে দাবি করেছিল, তারা রাজ্যগুলির উপরে কিছু চাপিয়ে দিতে চায় না৷ কিন্তু এ ভাবে পরীক্ষা না নিয়ে রাজ্যগুলি ছাত্রছাত্রীদের ডিগ্রি প্রদান করতে পারে না৷

মামলার শুনানি চলাকালীন কেন্দ্রের তরফে আদালতে আরও জানানো হয়, গোটা দেশের ৮০০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে ২০৯টি বিশ্ববিদ্যালয় ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা নিয়ে নিয়েছে৷ আরও ৪০০ বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছে৷

গত ২৯ এপ্রিল দেওয়া নির্দেশিকায় ইউজিসি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে ফাইনাল বর্ষের পরীক্ষা স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছিল৷ পরে ৬ জুলাই নতুন নির্দেশিকা জারি করে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়ার কথা জানায় ইউজিসি৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 28, 2020, 12:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर