corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলা: আডবাণী-জোশিদের নিয়ে রায়দানের নয়া ডেডলাইন সুপ্রিম কোর্টের

বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলা: আডবাণী-জোশিদের নিয়ে রায়দানের নয়া ডেডলাইন সুপ্রিম কোর্টের
এল কে আডবাণী, মুরলীমনোহর জোশি ও উমা ভারতী

শীর্ষ আদালতের নতুন ডেডলাইনে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মামলার শুনানি নিষ্পত্তি ও রায়দানের সময়সীমা পেল সিবিআই-এর বিশেষ আদালত৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলীমনোহর জোশি, উমা ভারতীদের বিরুদ্ধে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় লখনউয়ের বিশেষ সিবিআই আদালতকে রায়দানের জন্য নয়া ডেডলাইন দিল সুপ্রিম কোর্ট৷ শীর্ষ আদালতের নতুন ডেডলাইনে ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মামলার শুনানি নিষ্পত্তি ও  রায়দানের সময়সীমা পেল সিবিআই-এর বিশেষ আদালত৷

সিবিআই কোর্টের বিশেষ অযোধ্যা বিচারকের অনুরোধে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি রহিনটন এফ নরিমানের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ দিন আগের ডেডলাইন আরও বাড়ানোর নির্দেশ দেয়৷ এর আগে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ ছিল, ৩১ অগাস্ট ২০২০ সালের মধ্যে বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলার রায় দিতে হবে৷

২০১৭ সালের এপ্রিলে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনাকে 'ভারতের সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষতার পাতাকে নাড়িয়ে দিয়েছে' আখ্যা দেয় আদালত৷ এল কে আডবাণী-সহ একাধিক ব্যক্তি ও করসেবকের বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের চার্জ রয়েছে৷ সুপ্রিম কোর্ট সিবিআই আদালতকে নির্দেশ দেয়, ২ বছরের মধ্যে শুনানি শেষ করে রায় দিতে হবে৷

১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংস করেছিলেন করসেবকরা। তাঁদের দাবি ছিল, ওই স্থানে রাম মন্দির ছিল। ঘটনায় লালকৃষ্ণ আডবাণী, মুরলীমনোহর জোশি, উমা ভারতীর মতো বিজেপি নেতা-নেত্রীর বিরুদ্ধে বাবরি মসজিদ ধ্বংসে প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ দায়ের হয়। সেই মামলার তদন্ত করছে সিবিআই।

গত মাসে এই মামলায় সিবিআই ভিডিও কনফারেন্সে প্রবীণ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবাণী ও মুরলীমনোহর জোশির বয়ান রেকর্ড করে৷ দুজনেই তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তাঁরা রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার৷ বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ঘটনায় তাঁরা জড়িত ছিলেন না৷ উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিংও অভিযুক্তদের তালিকায় রয়েছেন৷

Published by: Arindam Gupta
First published: August 22, 2020, 3:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर