corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুরনো নোট বদলের সুযোগ কি মিলবে আবার?

পুরনো নোট বদলের সুযোগ কি মিলবে আবার?

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নানা কারণে বহু সাধারণ মানুষের পক্ষেই সমস্ত পুরনো নোট বদলে নেওয়া সম্ভব হয়নি ৷ সেই সব মানুষের জন্য আশার আলো দেখাল সুপ্রিম কোর্ট ৷

  • Share this:

 #নয়াদিল্লি: পুরনো ৫০০ ও ১০০০ টাকার পুরনো নোট বদলের সময় উত্তীর্ণ ৷ গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর অবধি বাতিল নোট পরিবর্তনের জন্য সময় দিয়েছিল অর্থমন্ত্রক ৷ কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নানা কারণে বহু সাধারণ মানুষের পক্ষেই সমস্ত পুরনো নোট বদলে নেওয়া সম্ভব হয়নি ৷ সেই সব মানুষের জন্য আশার আলো দেখাল সুপ্রিম কোর্ট ৷

সময়সীমা উত্তীর্ণ হওয়ার পরও কি ফের নোট পাল্টানোর সুযোগ মিলবে? চলতি বছরের জুলাই মাসে এ প্রশ্নের উত্তর দিতে পারে শীর্ষ আদালত ৷

মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতি জে এস খেহার এবং জাস্টিস ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও সঞ্জয় কিষণ কলের বেঞ্চ জানায়, নোট বাতিল এবং বাতিল নোট বদলানোর সময়সীমা নিয়ে বিপুল পরিমাণ পিটিশন জমা পড়েছে আদালতে ৷ চলতি বছরের জুলাই মাসের মধ্যে সেই সমস্ত পিটিশন শুনবে শীর্ষ আদালত ৷ সব মামলা শেষের পরই আদালত সিদ্ধান্ত নেবে নোট বাতিলের জন্য কেন্দ্রের পুনরায় সময় দেওয়া উচিত কিনা ৷

যদিও কেন্দ্রের তরফে অ্যাটার্নি জেনারেল মুকুল রোহাতগি জানায়, নোট বাতিল অর্ডিন্যান্সের নিয়ম অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নোট বদলাতে না পারলে তার দায় কেন্দ্রের নয় ৷ তাই পুনরায় নোট বদলের সুযোগ দেওয়ার কোনও দায়বদ্ধতা সরকারের নেই ৷ তবে এখনও যেকোনও কারণেই হোক যাদের কাছে বাতিল নোট রয়ে গিয়েছে তাঁরা আসলে অপরাধী ৷

গত বছরের ৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষণায় রাতারাতি বাতিল হয়ে যায় ৫০০ ও ১০০০-এর নোট ৷ ঘোষণার প্রথম পর্যায়ে কেন্দ্র জানিয়েছিল, ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে ব্যাঙ্ক থেকে বদলানো যাবে পুরনো নোট ৷ সেই সময়ের মধ্যে নোট বদলানো সম্ভব না হলে ৩০ ডিসেম্বরের পর রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে উপযুক্ত কারণ দেখিয়ে ৩১ মার্চ, ২০১৭ অবধি বাতিল নোট বদলানো যাবে ৷ যদিও পরে সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছু হটে অর্থমন্ত্রক ৷ ৩০ ডিসেম্বরের পর প্রবাসী ভারতীয় ছাড়া অন্য কেউ বাতিল নোট বদলাতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেয় কেন্দ্র ৷

তবুও সুপ্রিম কোর্টের এই আশ্বাসে নতুন আশায় বুক বাঁধছেন বিপাকে পড়া সাধারণ নাগরিকেরা ৷

First published: April 12, 2017, 11:33 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर