Home /News /national /
Enamul Haque: গরু পাচার মামলায় ধৃত এনামুলকে জামিন দিল শীর্ষ আদালত

Enamul Haque: গরু পাচার মামলায় ধৃত এনামুলকে জামিন দিল শীর্ষ আদালত

সুপ্রীম কোর্টে জামিন পেলেন এনামুল হক। ফাইল ছবি

সুপ্রীম কোর্টে জামিন পেলেন এনামুল হক। ফাইল ছবি

Enamul Haque: শীর্ষ আদালত শর্ত সাপেক্ষে জামিন মঞ্জুর করেছে। শীর্ষ আদালতে এনামুলের জামিনের আর্জি জানিয়ে সওয়াল করেন আইনজীবী মুকুল রোহতগি। সিবিআই?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: অবশেষে মিলল জামিন। গরুপাচার কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত এনামুল হককে (Enamul Haque) জামিন দিল সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার শীর্ষ আদালত শর্ত সাপেক্ষে জামিন মঞ্জুর করেছে। শীর্ষ আদালতে এনামুলের (Enamul Haque) জামিনের আর্জি জানিয়ে সওয়াল করেন আইনজীবী মুকুল রোহতগি। সিবিআইয়ের হয়ে অ্যাডিশনাল সলিসিটার জেনারেল আমন লেখি সওয়াল করেন।

বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও বিচারপতি দীনেশ মাহেশ্বরীর বেঞ্চ এনামুল হকের (Enamul Haque) জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন। ২০২০ সালের ১১ ডিসেম্বর আসানসোলে সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে আত্মসমর্পণ করেছিলেন এনামুল। ২০২১ সালের কলকাতা হাইকোর্ট এনামুলের জামিনের আবেদন খারিজ করে দেয়। এরপর থেকে সিবিআই হেফাজতে ছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন: আইএএস ক্যাডার রুলের বিরোধিতা, কেরল-তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী চিঠি দিলেন প্রধানমন্ত্রীকে!

সিবিআই-এর বিরুদ্ধে পক্ষপাতদুষ্ট আচরণের অভিযোগ তুলেছিলেন গরু পাচার-কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত এনামুল হক। কলকাতা হাই কোর্টে জামিন আবেদনের শুনানি-পর্বে তাঁর অভিযোগ ছিল, একই অভিযোগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন রাজ্যে বিভিন্ন আচরণ করছে সিবিআই। কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি-সহ একাধিক ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করেছিল সিবিআই। ২০২০ সালের নভেম্বর থেকে এনামুল জেল হেফাজতে। গত বছর মামলায় চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। উল্লেখ্য,কয়েকদিন আগেই আসানসোলের বিশেষ সিবিআই আদালত ২০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তাঁর জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। এর পর মামলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে।

আরও পড়ুন: গুলি চালিয়ে বাচ্চাদের ক্রিকেট খেলা আটকাতে গিয়েছিলেন মন্ত্রীর ছেলে, বিহারে তারপর যা হল..

এনামুলের বিরুদ্দে একাধিক ধারায় মামলা দায়ের হয়। এনামুলকে জেল হেফাজতে নেওয়ার পর গরু পাচার কান্ডে সিবিআই তিন ভাইকেও জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। সিবিআই সূত্রের খবর,  এনামুল ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত সমানে গরু পাচার করেছেন। বিএসএফ, শুল্ক দফতর, রাজ্য পুলিশের একাংশের সঙ্গে যোগসাজশে ওই পাচার চক্র গড়ে তুলেছিলেন তিনি। ওই ঘটনায় সতীশ কুমার নামে বিএসএফের এক কমান্ডান্টকে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করা হয়। ২০১৮ সালের গরু পাচার-কাণ্ডে বিএসএফ কমান্ডান্ট জেবি ম্যাথুকে গ্রেপ্তার করেছিল সিবিআই। সে সময় ম্যাথু মালদহে কর্মরত ছিলেন। পরে জামিনে মুক্তি পান তিনি। সেই সময়ে এনামুলের আইনজীবী বলেছিলেন, ‘‘বর্তমানে সিবিআই-এর কাছে ' গুড বয় ম্যাথু'। কারণ তাঁর আচরণে নাকি কোনও পরিবর্তন দেখেনি সিবিআই। অথচ এনামুলের ক্ষেত্রে সিবিআই ‘প্রভাবশালী’ তকমা এঁটে রেখেছে।’’

RAJIB CHAKRABORTY

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Supreme Court

পরবর্তী খবর