Home /News /national /
এখন খোঁজ মেলেনি হার্ডডিস্কের, মৈনাকের মোটিভ নিয়ে ধন্ধে পুলিশ

এখন খোঁজ মেলেনি হার্ডডিস্কের, মৈনাকের মোটিভ নিয়ে ধন্ধে পুলিশ

কম্পিউটার হার্ড ডিস্ক নিয়ে গণ্ডগোলের জেরে মার্কিন অধ্যাপককে খুন করার অভিযোগ বাঙালি গবেষকের বিরুদ্ধে। অথচ ৪৮ ঘণ্টা পরও সেই হার্ড ডিস্ক নিয়ে অন্ধকারে পুলিশ।

  • Last Updated :
  • Share this:

    #ক্যালিফোর্নিয়া: কম্পিউটার হার্ড ডিস্ক নিয়ে গণ্ডগোলের জেরে মার্কিন অধ্যাপককে খুন করার অভিযোগ বাঙালি গবেষকের বিরুদ্ধে। অথচ ৪৮ ঘণ্টা পরও সেই হার্ড ডিস্ক নিয়ে অন্ধকারে পুলিশ।

    তবে খুনের ছক কষেই যে মৈনাক ক্যালিফোর্নিয়ায় আসে,তা নিয়ে সন্দেহ নেই মার্কিন পুলিশের। একজন নয়,খুব সম্ভবত ২ জন অধ্যাপককে হত্যার ছক কষে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেছিলেন মৈনাক সরকার।

    মৈনাকের প্রথম টার্গেট ছিলেন বায়োকেমিক্যাল বিভাগের অ্যাসিসটেন্ট ডিন উইলিয়াম ক্লুজ, দ্বিতীয় টার্গেট ছিলেন এক মহিলা অধ্যাপক ৷ ব্যাকপ্যাকে দুটি সেমি অটোমেটিক পিস্তল ও বেশ কিছু ম্যাগাজিন নিয়ে সেই মহিলার খোঁজ করেন তিনি ৷

    হার্ড ডিস্ক নিয়ে গণ্ডগোলেই খুন বলে সন্দেহ। অথচ ৪৮ ঘণ্টা পরও খোঁজ নেই সেই হার্ড ডিক্সের। মৈনাকের হোষ্টেল, বিশ্ববিদ্যালয় ও মিনেসোটার ফ্ল্যাটে হানা দিয়েও হার্ড ডিক্স সম্পর্কে কোনও তথ্য পায়নি পুলিশ। তবে কি বিশ্ববিদ্যালয়কে অন্ধকারে রেখেই তথ্য দেওয়া-নেওয়া করছিলেন ক্লুগ ও মৈনাক? মৈনাক ও ক্লুজের গতিবিধি দেখে তা অনুমানের চেষ্টা করছে পুলিশ ৷

    সকাল ১০.৩০

    বায়োমেকানিকস বিভাগে কার্ড পাঞ্চ করে ঢোকেন মৈনাকসকাল ১০.৪০কম্পিউটার রুমে গিয়ে নিজের ই-মেল অ্যাকাউন্টও লক করে দেন।সকাল ১০.৪৫এরপর প্রফেসরদের রুমে গিয়ে এক মহিলা অধ্যাপকের খোঁজ করেনসকাল ১০.৫৫চারতলায় বিভাগীয় প্রধান ক্লুজের অফিসে ঢোকেন মৈনাক ৷

    বিভাগীয় প্রধান ও গাইডের বিরুদ্ধে গবেষণার তথ্য চুরি করে অন্যকে দেওয়ার অভিযোগ করেছিলেন মৈনাক। প্রাথমিক তদন্তের পর সেই সম্ভাবনা কম বলেই মনে করছে পুলিশ। ব্রুকলিন পার্কে মৈনাকের স্ত্রী অ্যাসলে হ্যাস্টির ফ্ল্যাটে হানা দিয়ে এক মহিলার দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সেই মহিলার কম্পিউটারও পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

    বিশ্ববিদ্যালয়ে মৈনাকের মৃতদেহের পাশে সে চিঠি মিলেছে,তাও ফরেন্সিক পরীক্ষা হয়েছে। চিঠিতে লেখা ছিল, ‘চেক আউট মাই ক্যাট’। এর অর্থও স্পষ্ট নয় পুলিসের কাছে। শুক্রবার নতুন করে মৈনাকের হোষ্টেল ও মিনোসোটার ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালান গোয়েন্দারা। এখনও উদ্ধার না হওয়া বেশকিছু জিনিসের সন্ধানে রয়েছে পুলিস।

    পুলিশের নজরে রয়েছে, মিনেসোটায় নথিভুক্ত মৈনাকের গাড়ি, ডায়েরিতে উল্লেখ থাকা অন্য ৩টি ডায়েরি, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, হার্ডডিস্ক ও বেশ কিছু সিডি ৷

    বাঙালি গবেষকের মৈনাকের ই-মেলে অনেক উত্তর মিলতে পারে। ই-মেল খুলতে বিশেষজ্ঞদের সাহায্য নিচ্ছে ক্যালিফোর্নিয়া পুলিশ। এই ঘটনার পরতে পরতে থাকতে পারে আরও রহস্য। সেই রহস্যের সমাধানের জন্য আরও কিছুটা অপেক্ষা করতেই হবে।

    First published: