corona virus btn
corona virus btn
Loading

শীঘ্রই হবে নতুন সভাপতি নিয়োগ, আপাতত কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব সামলাবেন সনিয়া গান্ধিই

শীঘ্রই হবে নতুন সভাপতি নিয়োগ, আপাতত কংগ্রেস সভাপতির দায়িত্ব সামলাবেন সনিয়া গান্ধিই

খুব তাড়াতাড়ি সনিয়ার কার্যকালের মেয়াদ শেষ হতে চলেছে ৷ এরপর সভাপতি কে যা জানালেন অভিষেক মনু সিংভি

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আপাতত কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী থাকছেন সনিয়া গান্ধিই ৷ তবে শীঘ্রই কংগ্রেসে নতুন পূর্ণ সময়ের অধ্যক্ষকে নিয়োগ করা হবে বলে জানালেন কংগ্রেসের প্রবীণ নেতা অভিষেক সিংভি৷ কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী হিসাবে সোমবার এক বছর পূর্ণ করবেন সনিয়া গান্ধি৷

সনিয়ার পর কংগ্রেসের সভাপতির পদে কে? এই প্রশ্নই এখন রাজনীতির অন্দরমহলে ঘুরপাক খাচ্ছে৷ রবিবার অভিষেক মনু সিংভি সাংবাদিকদের জানান, কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী হিসেবে শীঘ্রই সনিয়া গান্ধি মেয়াদ শেষ হতে চলেছে৷ কংগ্রেস পার্টির সংবিধান অনুসারে শীঘ্রই নয়া সভাপতির নির্বাচন করা হবে৷ উল্লেখ্য, ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে দলের ভরাডুবির দায় নিয়ে কংগ্রেস সভাপতির পদ ছাড়েন রাহুল৷ তারপরই অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী হিসেবে দলের দায়ভার কাঁধে তুলে নেন সনিয়া ৷ জাতীয় রাজনীতির ময়দানে শতাব্দী প্রাচীন দল কংগ্রেসের বিপর্যস্ত অবস্থা ক্রমেই আরও প্রকট হচ্ছে৷ হাতছাড়া হচ্ছে একের পর এক রাজ্য৷ লোকসভার নিরিখেও সংকুচিত হয়েছে কংগ্রেস শিবির৷ খাদের ধারে দাঁড়িয়ে থাকা দলকে সঠিক দিশা দেখাতে কংগ্রেসের অন্দরে বারবার উঠছে পূর্ণ মেয়াদের সভাপতির দাবি৷ এদিনও কংগ্রেস নেতা শশী থারুর পূর্ণ মেয়াদের সভাপতির জন্য সওয়াল করেন৷ তাঁর মতে, দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য রাহুল গাঁধীর সাহস, ক্ষমতা এবং স্বাভাবিক প্রবৃত্তি রয়েছে। তবে কংগ্রেসের সভাপতির জন্য দলের অবশ্যই নির্বাচনের পথে যাওয়া উচিত।
সভাপতি পদের জন্য এখনও কংগ্রেস শিবিরের সিংহভাগের আস্থা রাহুল গান্ধির উপরেই ৷ এমনকী জনমত সমীক্ষাও বলছে অধিকাংশ জনতা বিশ্বাস করেন রাহুল গান্ধিই একমাত্র ব্যক্তি যিনি সভাপতির দায়ভার গ্রহণ করে দলকে সঠিক পথে চালনা করতে পারবেন৷ কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির শেষ তিনটি বৈঠকেও রাহুলকে ফেরানোর চড়া সুর শোনা গিয়েছে। করোনা আবহে কেন্দ্রীয় সরকারকে একাধিক ইস্যুতে যেভাবে বিঁধেছেন সনিয়া পুত্র তা সত্যিই প্রশংসনীয় বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল৷ তবে একইসঙ্গে রাহুল যদি ফের কংগ্রেস সভাপতির চেয়ারে বসেন তাহলে বিজেপি কিছুটা সুবিধা পাবে বলে মনে করছে আরেক অংশ৷ কারণ পরিবারতন্ত্রের অভিযোগ তুলে হামেশাই বিজেপির নিশানায় থাকে গান্ধি পরিবার ৷
Published by: Elina Datta
First published: August 9, 2020, 10:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर