corona virus btn
corona virus btn
Loading

সনিয়াই কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী, নতুন সভাপতি আগামী ৬ মাসে নির্বাচন

সনিয়াই কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী, নতুন সভাপতি আগামী ৬ মাসে নির্বাচন

দীর্ঘ ৭ ঘণ্টা পরে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির মিটিং শেষ হয়েছে৷ চিঠি ফাঁসের বিষয়ে সনিয়া বৈঠকে বলেন, 'আমি দুঃখ পেয়েছি৷ কিন্তু ওঁরা আমার সহকর্মী৷ তাই সব ভুলে চলুন একসঙ্গে কাজ করি৷'

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কংগ্রেসের অন্তর্বর্তী সভানেত্রী সনিয়া গান্ধিই থাকছেন৷ আগামী ৬ মাসের মধ্যে নতুন সভাপতি নির্বাচিত করা হবে৷ এই অন্তর্বর্তী ৬ মাস সনিয়াই সভানেত্রীর দায়িত্ব সামলাবেন৷ কংগ্রেসের একটি সূত্র News18-কে জানান, 'দলের সভাপতি অবিলম্বে ঠিক করার আশা না করাই ভাল৷ কারণ নির্বাচন প্রক্রিয়ায় সময় লাগে৷ আমরাও সনিয়া গান্ধিকেই অনুরোধ করেছি, যতদিন না নতুন সভাপতি নির্বাচিত হচ্ছেন, তত দিন তিনিই দলকে নেতৃত্ব দিন৷' দলের নেতৃত্বে কোনও বিবাদ নেই বলে জানাল কংগ্রেস৷

দীর্ঘ ৭ ঘণ্টা পরে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির মিটিং শেষ হয়েছে৷ চিঠি ফাঁসের বিষয়ে সনিয়া বৈঠকে বলেন, 'আমি দুঃখ পেয়েছি৷ কিন্তু ওঁরা আমার সহকর্মী৷ তাই সব ভুলে চলুন একসঙ্গে কাজ করি৷'

রাহুল গান্ধি ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে প্রস্তাব দেন, দলের নতুন সভাপতি নির্বাচনের জন্য একটি কমিটি গড়া হোক৷

সনিয়া গান্ধি আগেই জানান, তিনি আর অন্তর্বর্তী সভানেত্রীর পদ আঁকড়ে থাকতে রাজি নন৷ তা হলে কংগ্রেসের সভাপতি কে হবেন? সোমবার এই নিয়ে কংগ্রেসের অন্দরের তর্জা প্রকাশ্যে৷ ২৩ জন কংগ্রেস নেতার সনিয়া গান্ধিকে পাঠানো একটি চিঠি ফাঁস হয়ে যাওয়ায় সোমবার ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে আগে থেকেই সতর্ক ছিল হাইকম্যান্ড৷ যার নির্যাস, zoom-এর বদলে Cisco WebEx-এ মিটিং হয়৷

এই অ্যাপ-এর সুবিধা হল, কেউ গোটা মিটিং রেকর্ড করতে পারবেন না৷ শুধুমাত্র নিজের ভিডিও-ই রেকর্ড করা যাবে৷ চিঠি ফাঁস হওয়ার পরে দলীয় সাংগঠনিক বৈঠকের কথা যাতে বাইরে কোনও ভাবে ফাঁস না-হয়ে যায়, তাই বাড়তি সতর্কতা৷ যে ২৩ জন কংগ্রেস নেতা চিঠি দিয়ে, দলের খোলনলচে পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছিলেন, সোমবার কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকের শুরুতেই তাঁদের কড়া সমালোচনা করেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। সনিয়াকেই কংগ্রেসের সভানেত্রীর দায়িত্ব পালনের অনুরোধ জানান তিনি। চিঠির সময় নিয়ে প্রশ্ন তোলেন রাহুল। তীব্র নিন্দা করে রাহুল বলেন, সনিয়া গান্ধিকে এমন সময় চিঠিটা পাঠানো হয়েছিল, যখন তিনি অসুস্থ ছিলেন।

এ দিকে কংগ্রেসের দুই প্রবীণ নেতা কপিল সিব্বল ও গুলাম নবি আজাদ সরাসরি সংঘাতের পথে দু পা এগিয়ে, পরে তিন পা পিছোলেন৷ কপিল সিব্বল তাঁর সেই কড়া টুইটটি ডিলিট করে দিয়েছেন৷ নতুন ট্যুইটে তিনি দাবি করেন, রাহুল গান্ধি ব্যক্তিগত ভাবে তাঁকে জানিয়েছেন যে বিজেপি-র সঙ্গে যোগসাজশ নিয়ে দলের নেতাদের সম্পর্কে কোনও মন্তব্য তিনি করেননি৷ গোটাটাই রটিয়েছে সংবাদমাধ্যম৷

গুলাম নবি আজাদও সুর নরম করে জানান, রাহুল গান্ধি নন৷ কিছু কংগ্রেস নেতা অভিযোগ করছিলেন, বিজেপি-র সঙ্গে তাঁর আঁতাঁত রয়েছে৷ সেই জন্যই তিনি ট্যুইট করেছিলেন, অভিযোগ প্রমাণ করতে পারলে দল থেকে ইস্তফা দেবেন৷

Published by: Arindam Gupta
First published: August 24, 2020, 7:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर