• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • SOME BJP WORKERS OF TRIPURA JOIN TMC AND WILL CELEBRATE 21 JULY SHAHID DIWAS SB

Tmc in Tripura: ত্রিপুরাতেও ঝড় তুলছে তৃণমূল, ভাঙছে BJP! ২১ জুলাই থেকেই 'খেলা' শুরু?

তৃণমূলের নজরে ত্রিপুরা

Tmc in Tripura: ২১ জুলাই, শহিদ দিবসের কর্মসূচি গোটা গোটা দেশে প্রচারের পরিকল্পনা নিয়েছে তৃণমূল। সেই তালিকায় বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে ত্রিপুরাকে।

  • Share this:

    #ত্রিপুরা: তৃতীয় বার বাংলার ক্ষমতা দখল করেই দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের গুরুদায়িত্ব কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আর সেই দায়িত্ব নেওয়ার সাথেসাথেই তিনি ঘোষণা করে দিয়েছিলেন, এবার তৃণমূলের নজর ভিন রাজ্যে। তবে, নেহাত ভোট কাটতে নয়, বরং সরকার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারবে তৃণমূল, সেই সব রাজ্যেই এগোনো হবে। আর সেই তালিকায় একদম শুরতেই রয়েছে ত্রিপুরায়। একসময় মুকুল রায়ের নেতৃত্বে সে রাজ্যে সংগঠনও গড়ে তোলা গিয়েছিল। কিন্তু মুকুল বিজেপিতে চলে যাওয়ার পর তাতে ধস নামে। কিন্তু সেই মুকুল আবার 'ঘরে' ফিরেছেন। আর তারপর থেকেই মুকুল ঘনিষ্ঠ ত্রিপুরার প্রভাবশালী বিজেপি নেতা সুদীপ রায়বর্মনকে ঘিরে একদিকে যেমন শুরু হয়ে রহস্য, তেমনি ক্রমেই বিজেপি শাসিত এই রাজ্যে সংগঠন আরও মজবুত করে গড়ে তুলছে বাংলার শাসক দল। সেই সূত্রেই এবার ২১ জুলাই, শহিদ দিবসের কর্মসূচি গোটা গোটা দেশে প্রচারের পরিকল্পনা নিয়েছে তৃণমূল। সেই তালিকাতেও বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে ত্রিপুরাকে।

    এরই মধ্যে এ রাজ্যের মতো ত্রিপুরাতেও বিজেপির ঘর ভাঙতে তৎপর হয়েছে তৃণমূল। বহরে ছোট হলেও স্থানীয় স্তরে গেরুয়া শিবির বা বামেদের ঘর ভাঙন তৃণমূল। শনিবার ত্রিপুরার যুবরাজনগর বিধানসভা কেন্দ্রের চারুবাসা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ২১ জন বিজেপি কর্মী যোগ দিয়েছেন তৃণমূলে। তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন ত্রিপুরা প্রদেশ তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক রত্নেশ্বর দেবনাথ। বিগত কয়েকদিন ধরেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে এই দলবদল লক্ষ্য করা যাচ্ছে। খুব অল্প পরিসরে হলেও এই ছোট-ছোট দলবদলই পরবর্তীতে মারাত্মক হতে পারে বলে আশঙ্কা গেরুয়া শিবিরের একাংশের। প্রসঙ্গত, এ বছর ২১ জুলাই দিল্লি, গুজরাত, উত্তরপ্রদেশ সহ আরও বেশ কিছু রাজ্যে ঘটা করে পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল। আর সেই রাজ্যগুলির মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব তৃণমূল দিচ্ছে ত্রিপুরাকে। দিন কয়েক আগেই ত্রিপুরা থেকে ডেকে পাঠানো হয়েছিল আশিস লাল সিংকে। ত্রিপুরা তৃণমূলের এই নেতা জানিয়েছেন, ধর্মনগর, উদয়পুর সহ ত্রিপুরার পাঁচটি জায়গায় জায়েন্ট স্ক্রিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভাষণ শোনানো হবে।

    রাজনৈতিক মহলের মতে, ত্রিপুরাতেও বিজেপিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি কড়া চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন, তাহলে ২০২৪-এর লোকসভা ভোটের আগে জাতীয় স্তরে বার্তা যাবে, বিজেপি বিরোধী মুখ মমতাই। তাই ত্রিপুরায় এখন থেকেই সংগঠনের ঝাঁজ বাড়াতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই লক্ষ্য এখন ত্রিপুরা।

    Published by:Suman Biswas
    First published: