• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • SOCIAL MEDIA PLAYS BIG ROLE IN UNITING 12 YEAR OLD BOY WITH PARENTS PBD

লকডাউনে একা ১২ বছরের কিশোর, সোশ্যাল মিডিয়া খুঁজে দিল বাবা-মাকে, হল মিলন

এদিকে লকডাউনে বিহারে আটকে পড়া বাবা-মায়ের কাছে ছেলের কোনও খোঁজ ছিল না৷ তাঁরা জানতেনই না যে ছেলে এভাবে রাস্তায়-মাঠে ঘুরে দিন কাটাচ্ছে৷

এদিকে লকডাউনে বিহারে আটকে পড়া বাবা-মায়ের কাছে ছেলের কোনও খোঁজ ছিল না৷ তাঁরা জানতেনই না যে ছেলে এভাবে রাস্তায়-মাঠে ঘুরে দিন কাটাচ্ছে৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ১২ বছরের কিশোর একা আটকে ছিল দিল্লিতে ৷ লকডাউনে বাবা-মায়ের থেকে একপ্রকার ছিটকে গিয়ে রাজধানীতে দিন কাটাচ্ছিল সে৷ বাবা-মা আটকে গিয়েছিলেন বিহারে৷ দিল্লিতে এই ৩ জনের সংসার৷ বিশেষ কাজে নিকট আত্মীয়র কাছে ছেলেকে রেখে বাবা-মা গিয়েছিলেন বিহারে৷ ছেলের দায়িত্ব দিয়ে এসেছিলেন এক আত্মীয়র কাছে৷ কিন্তু কিছুদিন পরই ছেলেকে বাড়ি থেকে দূর করে দেন সেই আত্মীয়৷ দিল্লির দ্বারকায় একটি মাঠে ভবঘুরের মত দিন কাটাতে শুরু করে ১২ বছরের কিশোর৷ সঙ্গী জুটেছিল এক রাস্তার কুকুর৷

    এদিকে লকডাউনে বিহারে আটকে পড়া বাবা-মায়ের কাছে ছেলের কোনও খোঁজ ছিল না৷ তাঁরা জানতেনই না যে ছেলে এভাবে রাস্তায়-মাঠে ঘুরে দিন কাটাচ্ছে৷ এভাবে মাঠে ঘুরতে থাকা ছোট ছেলেকে দেখে তার ছবি ও অবস্থান ব্যাখ্যা করে পোস্ট করেন উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিক অরুণ বোথরা৷ এরপরই সেটি রুট্যুইট করেন স্নেহা নামের এক মহিলা৷ তিনি আবার ইন্ডিয়া কেয়ার সংস্থাকে ট্যাগ করে দেন৷ এরপরই ভাইরাল হয়ে যায় ছবি ও পোস্টটি৷ ছেলেটির বাবা-মাকে চিহ্নিত করা যায়৷

    ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে যায় পটনা-দিল্লি ট্রেন চালাচলও৷ তবে ছেলেটির বাবা-মা ছিলেন সমস্তিপুরে৷ পটনার এক পুলিশ আধিকারিক বিশেষ বাসে দু’জনের পটনা যাওয়ার ব্যবস্থা করেন৷ সেখান থেকে ইন্ডিয়া কেয়ার সংস্থার উদ্যোগে দিল্লি ফিরতে পারেন তারা এবং ফিরে পান ছেলেকে৷

    শেষ পর্যন্ত ২৩ মে বাবা-মাকে ফিরে পেয়ে আনন্দে আত্মহারা হয় ১২ বছরের কিশোর৷ নিঃসন্দেহে এই মিলনের পিছনে বড় ভূমিকা রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার৷

    Published by:Pooja Basu
    First published: