মমতার আঘাত দুর্ঘটনা নয়, চক্রান্ত! কালো কাপড় বেঁধে কমিশনে তৃণমূলের ছয় সাংসদ

মমতার আঘাত দুর্ঘটনা নয়, চক্রান্ত! কালো কাপড় বেঁধে কমিশনে তৃণমূলের ছয় সাংসদ

নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারে পায়ে, বুকে, হাতে চোট পেয়েছিলেন মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়। সেই চোট ভোটের মুখে রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন ইস্যু যোগ করেছে যেন!

নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারে পায়ে, বুকে, হাতে চোট পেয়েছিলেন মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়। সেই চোট ভোটের মুখে রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন ইস্যু যোগ করেছে যেন!

  • Share this:
#নয়াদিল্লি: নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর হামলা হয়েছিল। কোনওভাবেই দুর্ঘটনা ঘটেনি। যে যতই যুক্তি সাজাক, তৃণমূল সেসব মানতে নারাজ। ডেরেক ও ব্রায়েন থেকে শুরু করে তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়, বারবার তাঁরা দাবি করছেন তৃণমূল সুপ্রিমো চক্রান্তের শিকার। মুখে না বললেও তাঁরা হাবেভাবে বিজেপিকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে চাইছেন। সৌগত রায় প্রায় অভিনয় করেই দেখিয়েছিলেন, কীভাবে সেদিন মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ির দরজা জোর করে বন্ধ করার চেষ্টা করেছিল কেউ বা কারা! নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারে পায়ে, বুকে, হাতে চোট পেয়েছিলেন মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়। সেই চোট ভোটের মুখে রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন ইস্যু যোগ করেছে যেন! মুখ্যমন্ত্রীর উপর পরিকল্পিত হামলার দাবি করে শুক্রবার রাজ্যজুড়ে মৌনমিছিলের ডাক দিয়েছিল তৃণমূল। এদিন দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের দফতরে অভিযোগ জানাতে হাজির হন ছজন তৃমমূল সাংসদ। কালো কাপড় বেঁধে তাঁরা কমিশনের অফিসে হাজির হন। নির্বাচন কমিশনের কাছে এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানায় ছজন সাংসাদের সেই দল। কমিশনের অফিসের বাইরে স্লোগান তোলেন তাঁরা। এই দলের নেতৃত্ব দেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। তিনি এদিন জানান, কমিশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে তাঁদের ঘণ্টাখানেকের বেশি আলোচনা হয়েছে। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করেছিলেন, মমতা নন্দীগরামে গেলে টের পাবেন। এদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলা সফরে এসে মমতাকে কটাক্ষ করে বলেছিলেন, নন্দীগ্রামে গেলেই স্কুটি উল্টে যাবে। এসব কথার উল্লেখ কমিশনের সামনে এদিন করেছেন তৃণমূল সাংসদরা। সৌগত রায় বলেছেন, শুভেন্দু অধিকারী প্রত্যক্ষদর্শীদের ধমকে মিথ্যে বলাচ্ছে। আমরা হাই লেভেল তদন্ত চাই। ভোটের সময় কমিশনের থেকে শক্তিশালী আর কেউ নেই। আমরা মমতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র রুখতে কমিশনের এখনই তত্পর হওয়া উচিত। আমরা কথা বলেছি। নির্বাচন কমিশন তদন্তের ইঙ্গিত দিয়েছে। উল্লেখ্য, বুধবারই নন্দীগ্রামে চোট পেয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। যন্ত্রনাক্লিষ্ট মুখে তিনি দাবি করেছিলেন, চার-পাঁচজন তাঁকে পিছন থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিয়েছিল। দুর্ঘটনা নয়, চক্রান্তের শিকার তিনি। মমতা আরও দাবি করেছিলেন, দুর্ঘটনার সময় তাঁর পাশে প্রশাসনের কেউ ছিল না।
Published by:Suman Majumder
First published: