• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • বাজেট ২০২১: কোন পথে অ্যাফোর্ডেবল হাউজিং, আসন্ন বাজেটে কি বাড়ানো হবে অর্থের সীমা?

বাজেট ২০২১: কোন পথে অ্যাফোর্ডেবল হাউজিং, আসন্ন বাজেটে কি বাড়ানো হবে অর্থের সীমা?

photo source collected

photo source collected

প্রসঙ্গত, আবাসনক্ষেত্রকে চাঙ্গা করতে ইতিমধ্যেই একাধিক দাবি জানানো হয়েছে। আবাসন কেনার খাতে ক্রেতাকে অতিরিক্ত আয়কর ছাড়ের সুবিধা, সুদে ভর্তুকি প্রকল্পের সম্প্রসারণ, নগদ জোগান-সহ নানা দাবি নিয়ে আসন্ন বাজেটের দিকে তাকিয়ে রয়েছে সংগঠনগুলি।

  • Share this:

#নয়া দিল্লি: গত কয়েক বছর ধরে আবাসনক্ষেত্রকে মজবুত করতে সরকারের তরফে একাধিক পদক্ষেপ করা হয়েছে। একের পর এক অর্থবর্ষের বাজেটে অতিরিক্ত আয়কর ছাড়ের সুবিধা, সুদে ভর্তুকি প্রকল্পের সম্প্রসারণ-সহ নানা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর জেরে নিম্নমধ্যবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষজনও দারুণ ভাবে উপকৃত হয়েছেন। সাধারণ অর্থে একেই বলা হয় অ্যাফোর্ডেবল হাউজিং। এক্ষেত্রে আসন্ন বাজেটে কোন পথে এগোবে অ্যাফোর্ডেবল হাউজিং? আসুন বিশদে জেনে নেওয়া যাক!

করোনার জেরে বিশ্ব-অর্থনীতি লড়ছে। এই পরিস্থিতিতে রিয়েল এস্টেট সেক্টরও নানা সমস্যার সম্মুখীন। এক্ষেত্রে আবাসন ক্ষেত্রে আয়করে ছাড় দেওয়া যেতে পারে। এমনই মনে করছেন RICS দক্ষিণ এশিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর নিমিশ গুপ্তা (Nimish Gupta)। তিনি জানিয়েছেন, ২০২১-২২ অর্থবর্ষের বাজেটে হোম লোনের আয়কর ডিডাকশনের সীমা যদি ২৫-৩০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানো যায়, তাহলে একাধিক সুবিধা মিলতে পারে। আবাসন ক্ষেত্রেও বিক্রিও বাড়বে। এতে সরকারও উপকৃত হবে। আবাসন ক্ষেত্রের ব্যবসার পরিসরও বাড়বে। NAREDCO-এর ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট নিরঞ্জন হিরানন্দানি (Niranjan Hiranandani)-এর মতে, অ্যাফোর্ডেবল হাউজিংয়ের ক্ষেত্রে দু'টি মূল বিষয় হল সাইজ ও প্রাইস। এক্ষেত্রে বাড়িগুলির আকার-আয়তন ও দাম ভালো করে দেখে নিতে হবে। দু'টি ক্ষেত্রেই পর্যাপ্ত সুবিধা ও পরিকাঠামোর প্রয়োজন রয়েছে। তবেই মেট্রো ও নন-মেট্রো এলাকায় ব্যবসা বাড়বে। ক্রেতারাও অধিক মাত্রায় অপশন পাবেন।

এই বিষয়ে Housing.com, Makaan.com ও PropTiger.com-এর গ্রুপ CEO ধ্রুব আগরওয়ালা (Dhruv Agarwala) জানিয়েছেন, বর্তমানে অ্যাফোর্ডেবল হাউজিং সেগমেন্টে যে সমস্ত ছাড় রয়েছে, তাতে ব্যাপকমাত্রায় উপকৃত হন ক্রেতারা। তবে এই পরিস্থিতিতে এই ছাড়ের বিষয়গুলিতে পুনর্বিবেচনা করতে হবে। এক্ষেত্রে দিল্লি,মুম্বইয়ের মতো বড় বড় মেট্রো শহরে বাড়ির দাম ও সেই সংক্রান্ত ছাড়ে রদবদল আনা জরুরি।

প্রসঙ্গত, আবাসনক্ষেত্রকে চাঙ্গা করতে ইতিমধ্যেই একাধিক দাবি জানানো হয়েছে। আবাসন কেনার খাতে ক্রেতাকে অতিরিক্ত আয়কর ছাড়ের সুবিধা, সুদে ভর্তুকি প্রকল্পের সম্প্রসারণ, নগদ জোগান-সহ নানা দাবি নিয়ে আসন্ন বাজেটের দিকে তাকিয়ে রয়েছে সংগঠনগুলি। গৃহঋণের সুদে বর্তমানে বছরে ২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়কর ছাড়ের যে সংস্থান রয়েছে, তা বাড়ানোর দাবিও করা হয়েছে।

Published by:Piya Banerjee
First published: