বাড়িতে বাইরের ছেলেদের বেশ যাতায়াত ছিল, হলদিয়া জোড়া খুনে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

বাড়িতে বাইরের ছেলেদের বেশ যাতায়াত ছিল, হলদিয়া জোড়া খুনে সামনে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

অস্টমশ্রেনীতেই স্কুল থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে।স্কুটি আর ছেলে বন্ধু নিয়ে ঘুরে বেড়ানোতেই চেনে নিউ বারাকপুর,  রিয়া দে কে।ঝিল পাড়ে সিগারেট?

  • Share this:

#কলকাতা: হলদিয়ায় জোড়া খুনের ঘটনায় প্রকাশ্যে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷ হলদিয়াতে পুড়িয়ে মারা মা ও মেয়ের বাড়ি নিউবারাকপুরের নরেশ চন্দ্র সরনীতে। এই পুর সভার ১১ নং ওয়ার্ডে এই বাড়িতে তারা ভাড়া থাকত। বাড়িটির মালিক সন্ধ্যা দাশগুপ্ত। শারীরিক প্রতিবন্ধী বাড়ির মালিক এদিন সামনে আসেননি।তবে স্থানীয় বাসিন্দারা জানানা তিন দিন আগে পুলিশ আসে এই বাড়িতে।

পুলিশ এসে মা ও মেয়ের সম্বন্ধে জিজ্ঞাসাবাদ করে ৷ সেই সময় সন্ধ্যা দাশগুপ্ত জানান তার বাড়িতে ভাড়া থাকত মা ও মেয়ে ৷ এরপরে পুলিশের সাংবাদিক সম্মেলন থেকে নিউ বারাকপুর জেনে যায় কি ঘটেছে। হলদিয়াতে জ্বলন্ত দেহ উদ্ধারের রহস্য পরিষ্কারর হয়।

স্থানীয়রা সোমবার সকালে জানিয়েছে বছর আড়াই আগে এই বাড়িতে ভাড়ায় থাকতে এসেছিলেন রমা দে। তার সঙ্গে থাকত মেয়ে রিয়া দে। মা ও মেয়ের সঙ্গে এলাকার লোকের তেমন কোন যোগাযোগ ছিল না। বাজার ঘাটে যাতায়াতের সময় তাদেরকে তার কয়েকবার দেখেছেন মাত্র। তবে রমা ও রিয়ার ঘরে বাইরের ছেলেদের বেশ যাতায়াত ছিল বলে, স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে।

রমা দে ডিভোর্সি ছিলেন। মেয়ে রিয়াকে নিয়ে এই শহরেই থাকতেন। তার বাপের বাড়িও নিউ বারাকপুরেই। রিয়া দে অষ্টম শ্রেনীতে পড়ার সময় স্কুল থেকে টি সি দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে। এলাবাসীরা জানিয়েছেন সেই ভাবে মা ও মেয়েকে না চিনলেও এমন নৃশংস হত্যার ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের কঠোর শাস্তি দেওয়া উচিৎ। মেয়ে রিয়া দে প্রায়ই ছেলে বন্ধুদের নিয়ে নিউবারাকপুরের মিনি বাস স্টান্ডের কাছে একটি গলিতে আড্ডা দিতে আসত। জায়গাটি নিউবারাকপুর পুরসভার পাঁচ নং ওয়ার্ডের তিন নং ঝিল পাড়।

স্থানীয়দের দাবী রিয়ার পোশাক আসাক ও সাজগোজ বরাবরই উগ্র ধরনের ছিল। তবে স্থানীয়দের দাবী মা ও মেয়ে যেমন হোক না কেন তাদের এমন নৃংশভাবে হত্যা তারা মেনে নিতে পারছে না। তাদের দাবি এমন নৃশংস ভাবে যার মানুষকে মারতে পারে তাদের কঠোর সাজা দ্রুত দেওয়া হক।

First published: February 24, 2020, 2:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर