দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

দোকানের নাম কেন করাচি সুইটস? হুমকি শিবসেনা নেতার, ভাইরাল ভিডিও

দোকানের নাম কেন করাচি সুইটস? হুমকি শিবসেনা নেতার, ভাইরাল ভিডিও
করাচি সুইটসের মালিককে হুমকি দিচ্ছেন শিবসেনা নেতা নীতিন মধুকর৷ Photo-ANI

এর আগেও শিবসেনা নেতা নীতিন মধুকর বিতর্কে জড়িয়েছেন৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত একজনকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে এই শিবসেনা নেতা এবং তাঁর অনুগামীর বিরুদ্ধে৷

  • Share this:

#বান্দ্রা: দোকানের নাম করাচি সুইটস৷ ফলে তার সঙ্গে যোগ রয়েছে পাকিস্তানের৷ সেই কারণেই অবিলম্বে বদলে ফেলতে হবে নাম৷ এই দাবি নিয়েই বান্দ্রার একটি মিষ্টির দোকানে চড়াও হলেন শিবসেনার এক নেতা৷ দোকানদারকে রীতিমতো ঠান্ডা গলায় হুমকি দিয়ে বুঝিয়ে দিলেন, ১৫ দিনের মধ্যে দোকানের নাম না বদলালে ফল ভুগতে হবে৷ শিবসেনা নেতা নীতিন মধুকরের হুমকির সেই ভিডিও-ই এখন ভাইরাল৷

করাচি সুইটস নামে বান্দ্রার ওই মিষ্টির দোকানটি যথেষ্ট বড়৷ ভিডিও-তে দেখা যাচ্ছে, দোকানদার শিবসেনা নেতাকে বোঝানোর চেষ্টা করছেন, যেহেতু তাঁর পূরপুরুষরা করাচি থেকে এ দেশে এসেছিলেন, তাই দোকানের নাম দেওয়া হয়েছে করাচি সুইটস৷ এর পিছনে অন্য কোনও কারণ নেই৷ কিন্তু কোনও যুক্তি শুনতে রাজি হননি শিবসেনা নেতা৷ তিনি সাফ জানিয়ে দেন, করাচি পাকিস্তানে৷ ফলে এই নাম নিয়ে তাঁদের আপত্তি রয়েছে৷ শুধুমাত্র দোকানের নাম বদলালেই হবে না, সরকারি নথিতেও তা বদলে ফেলতে হবে বলে নির্দেশ দেন ওই শিবসেনা নেতা৷ পূর্বপুরুষদের কারও নামে দোকানের নামকরণ করার জন্যও পরামর্শ দেন তিনি৷ দোকানদারকে তিনি মনে করিয়ে দেন, কয়েক দিন আগেও পাকিস্তানের হামলায় দেশের বেশ কয়েকজন সেনা জওয়ান শহিদ হয়েছেন৷

তবে নাম বদলের জন্য বেশ কয়েকদিন সময় দিয়েছেন ওই শিবসেনা নেতা৷ তাঁকে বলতে শোনা যায়, 'করাচি আর পাকিস্তান সমর্থক৷ দোকানের নাম বদলে মরাঠিতে কিছু রাখুন৷' শুধু তাই নয়, সরকারি নথিতে নাম বদলের জন্য যা যা সাহায্য লাগবে তাও তিনি করে দেবেন বলে ওই ব্যবসায়ীকে আশ্বস্ত করেন শিবসেনা নেতা নীতিন মধুকর৷

এই হুমকিতে কাজও হয়েছে৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-এর খবর অনুযায়ী, দোকানের নাম কাগজ দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে৷ যদিও শিবসেনা নেতার এই আচরণকে একেবারেই সমর্থন করেননি ট্যুইটার ব্যবহারকারীরা৷

এর আগেও শিবসেনা নেতা নীতিন মধুকর বিতর্কে জড়িয়েছেন৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে শ্লীলতাহানিতে অভিযুক্ত একজনকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে এই শিবসেনা নেতা এবং তাঁর অনুগামীর বিরুদ্ধে৷ এই ঘটনায় তাঁকে গ্রেফতারও করে পুলিশ৷ পরে জামিনে মুক্তি পান তিনি৷ জুলাই মাসেও করোনায় মৃত একজনের দেহ তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার দাবিতে মু্ম্বইয়ের একটি হাসপাতালে গিয়ে গন্ডগোল করেন তিনি৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 19, 2020, 2:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर