corona virus btn
corona virus btn
Loading

রেড, অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে কোন কোন পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছে, জেনে নিন

রেড, অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে কোন কোন পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছে, জেনে নিন

অরেঞ্জ জোনগুলির আওতায় থাকা এলাকাগুলিতে শর্ত মেনে ট্যাক্সি এবং অ্যাপ ক্যাব চালানোর অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আরও দু'সপ্তাহ বাড়ছে লকডাউন। গৃহ মন্ত্রালয়ের তরফে শুক্রবার ঘোষণা করা হয় ৪ মে থেকে লকডাউনের সময়সীমা বাড়িয়ে করা হল ১৭ মে ৷ তৃতীয় দফার লকডাউনের জন্য দেশকে তিনটি জোন--রেড, অরেঞ্জ ও গ্রিন হিসেবে ভাগ করা হয়েছে ৷ কনটেনমেন্ট, রেড, ওরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে কোন কোন পরিষেবায় ছাড় দেওয়া হয়েছে দেখে নিন এক নজরে ৷

গোটা দেশজুড়ে জোন নির্বিশেষে এখনও বেশ কিছু পরিষেবা বন্ধ রাখা হবে ৷ সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে বিমান, রেল এবং মেট্রো পরিষেবা। এমনকী আন্তঃরাজ্য যাতায়াতেও নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে। স্কুল, কলেজ ও সমস্ত রকমের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ৷ হোটেল ও রেস্তোরাঁও বন্ধ রাখা হবে ৷ কোনও রকমের জনসমাগম করা যাবে না ৷ সিনেমা হল, মল, জিম, স্পোর্টস কমপ্লেক্স সমস্ত কিছু আপাতত বন্ধ থাকবে ৷ সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সমাগম করা যাবে না ৷ ধর্ম স্থানগুলিও বন্ধ রাখা হবে ৷

জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনও এলাকাতেই সন্ধে ৭টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত কেউ বাড়ির বাইরে বেরতে পারবেন না। নতুন লকডাউনে রেড, অরেঞ্জ এবং গ্রিন জোনে বেশ কিছু ছাড় দিলেও সন্ধে ৭টার পর বাড়ির বাইরে থাকা নিয়ে কড়াকড়ি করল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও নিয়ম মেনে OPDs ও মেডিকেল ক্লিনিক খোলা রাখা যাবে রেড, ওরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে ৷ কনটেনমেন্ট জোনে খোলা রাখা যাবে না ৷

সাইকেল রিক্সা, অটো রিক্সা, শর্তসাপেক্ষে ট্যাক্সি ও ক্যাব চলবে ওরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে ৷ তবে কনটেনমেন্ট ও রেড জোনে এর অনুমতি দেওয়া হয়নি ৷

গাড়ির ক্ষেত্রে ড্রাইভার-সহ ৩ জন যাত্রা করতে পারবেন এবং বাইকের ক্ষেত্রে কেবল ১ জন ৷

রেড জোনে জরুরি পণ্য উৎপাদন করা হয় এমন শিল্প বা কারখানা, ওষুধ বা চিকিৎসা সরঞ্জাম উৎপাদন শিল্প খুলে রাখার অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷ একই সঙ্গে রেড জোনেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং কাজের সময় ভাগ করে দিয়ে চটকল খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ পাশাপাশি   প্যাকেজিং ইউনিট খোলার অনুমতি দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার৷

অরেঞ্জ জোনগুলির আওতায় থাকা এলাকাগুলিতে শর্ত মেনে ট্যাক্সি এবং অ্যাপ ক্যাব চালানোর অনুমতি দিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ তবে চালক ছাড়া একজনের বেশি যাত্রী নেওয়া যাবে না৷ শুধুমাত্র অনুমোদিত কাজ এবং পরিষেবাগুলির জন্য এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাওয়া যাবে৷ তবে সেক্ষেত্রে চার চাকার ব্যক্তিগত গাড়িতে চালক বাদে দু' জন এবং বাইক বা স্কুটারে চালক বাদে একজনকে বসার অনুমতি দেওয়া হয়েছে৷

গ্রিন জোনে বাস চলতে পারবে৷ রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, গ্রিন জোনে একটি জেলার মধ্যেই ২০জন যাত্রী নিয়ে বাস চলবে৷ আর কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, গ্রিন জোনে পঞ্চাশ শতাংশ যাত্রী নিয়ে বাস চালানো যাবে৷

ক্যুরিয়র ও পোস্টল পরিষেবাকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে কাজ করার ৷

First published: May 1, 2020, 11:22 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर