সিরম ইনস্টিটিউটের কাছে ১.১০ কোটি ভ্যাকসিনের অর্ডার দিল সরকার

অর্ডার অনুযায়ী, ভ্যাকসিনের প্রত্যেক ডোজের দাম ২০০ টাকা ৷ এর উপর ১০ টাকার জিএসটি লাগবে ৷ অর্থাৎ এর দাম হবে ২১০ টাকা ৷

অর্ডার অনুযায়ী, ভ্যাকসিনের প্রত্যেক ডোজের দাম ২০০ টাকা ৷ এর উপর ১০ টাকার জিএসটি লাগবে ৷ অর্থাৎ এর দাম হবে ২১০ টাকা ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ১৬ জানুয়ারি থেকে দেশে করোনা ভ্যাকসিন চালু হতে চলেছে ৷ মঙ্গলবার সকালে সিরম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার পুণেতে অবস্থিত প্রোডাকশন সেন্টার থেকে কোভিশিল্ডের প্রথম কনসাইনমেন্ট সুরক্ষার সঙ্গে ডিসপ্যাচ করা হবে ৷ কেন্দ্র সরকার সোমবার Oxford-AstraZeneca-র ভ্যাকসিন কোভিশিল্ডের জন্য সিরম ইনস্টিটিউটকে অর্ডার দিয়েছে ৷ এই অর্ডার ১ কোটি ১০ লক্ষ ডোজের ৷ অর্ডার অনুযায়ী, ভ্যাকসিনের প্রত্যেক ডোজের দাম ২০০ টাকা ৷ এর উপর ১০ টাকার জিএসটি লাগবে ৷ অর্থাৎ এর দাম হবে ২১০ টাকা ৷

    কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের বক্স পুণে এয়ারপোর্ট নিয়ে যাওয়ার জন্য তিনটি কন্টেনার ট্রাকের ব্যবস্থা করা হয়েছে ৷ এই ট্রাকে ভ্যাকসিন ৩ ডিগ্রি তাপমাত্রায় রেখে এয়ারপোর্টে নিয়ে যাওয়া হবে ৷ ৮ টি বিমানে ১৩টি বিভিন্ন স্থানে পৌঁছে যাবে ভ্যাকসিন ৷ প্রথমে ফ্লাইট দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা হবে ৷ এরপর দিল্লি থেকে দেশের বিভিন্ন অংশে ভ্যাকসিন পাঠানো হবে ৷

    সিরম ইনস্টিটিউটের তরফে ট্যুইট করে জানানো হয়েছে, কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের জন্য পাবলিক সেক্টর সংস্থা HLL লিমিটেড সরকারের তরফে অর্ডার জারি করেছে ৷ DCGI ৩ জানুয়ারি কোভিশিল্ডকে অনুমতি দিয়ে দিয়েছে ৷ এক সপ্তাহের মধ্যে ১ কোটির বেশি ডোজ সাপ্লাই করা যেতে পারে ৷ শুরুর দিকে ভ্যাকসিনের ডোজ ৬০টি পয়েন্টে পাঠানো হবে ৷ তারপর সেখান থেকে অন্য জায়গায় পাঠানো হবে ৷ স্বাস্থ্য মন্ত্রক শীঘ্রই ভারত বায়োটেকের কোভ্যাকসিনের বিক্রি নির্দেশ সাইন করবে ৷

    দেশের ১৬ জানুয়ারি থেকে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হবে ৷ দেশের প্রত্যেক জেলায় ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া এবং তার লাইভ ট্র্যাকিংয়ের জন্য অনলাইন প্ল্যাটফর্ম কোউইন(Co-Win APP) অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে ৷ প্রথম পর্যায়ে ৩ কোটি হেলথ কেয়ার ও ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কসদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে ৷ এরপর ২৭ লক্ষ হাইরিস্ক ব্যক্তিদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে ৷

    Published by:Dolon Chattopadhyay
    First published: