corona virus btn
corona virus btn
Loading

এখনই আস্থা ভোটের নির্দেশ দিল না আদালত, কাল ফের মহারাষ্ট্র মামলার শুনানি

এখনই আস্থা ভোটের নির্দেশ দিল না আদালত, কাল ফের মহারাষ্ট্র মামলার শুনানি
সুপ্রিম কোর্ট
  • Share this:

#নয়াদিল্লি: তড়িঘড়ি দেবেন্দ্র ফড়বীশ ও অজিত পাওয়ারকে দিয়ে শপথবাক্য পাঠ করানোয় রাজ্যপাল ভগত্‍ সিং কোশিয়ারির নির্দেশের বিরুদ্ধে ও ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আস্থা ভোট চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস৷ সেই আবেদন রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় শোনানো হবে বলে জানিয়েছিল শীর্ষ আদালত৷ তবে আপাতত আস্থা ভোটের নির্দেশ দিল না আদালত ৷ ফের আগামিকাল সুপ্রিম কোর্টে শুনানি হবে মহারাষ্ট্র মামলার ৷ আগামিকাল সকাল সাড়ে ১০টায় সুপ্রিম কোর্টে শুনানি ৷ সব পক্ষকে নোটিস সুপ্রিম কোর্টের

এই বার রিসর্ট রাজনীতি শুরু হয়েছে মহারাষ্ট্রে৷ আস্থা ভোটের আগে কংগ্রেস ৪৪ জন বিধায়ককে ভোপালে পাঠিয়ে দিল একটি রিসর্টে৷ যাতে কোনও ভাবেই এনসিপি নেতা অজিত পাওয়ারের শিবিরে বা বিজেপি -তে চলে না যান বিধায়করা৷ কংগ্রেসের উদ্বেগ, ঘোড়া কেনাবেচা এই বার শুরু হতে পারে আস্থা ভোটের আগে৷ শনিবারই জাতীয় রাজনীতিকে চমকে দিয়ে অজিত পাওয়ার মহারাষ্ট্রের উপমুখ্যমন্ত্রী ও দেবেন্দ্র ফড়নবীশ পুনরায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিয়েছেন৷ অন্যদিকে, শরদ পাওয়ারের ডাকা বৈঠকে এনসিপি-র ৫৪ জন বিধায়কের মধ্যে ৫১ জন হাজির হয়েছেন৷ তার জেরে চাপ বাড়তে পারে অজিত পাওয়ার ও ফড়বীশের৷

সূত্রের খবর, একটি চার্টার্ড বিমানে ৪৪ জন কংগ্রেস বিধায়ককে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে মধ্যপ্রদেশে৷ বিধায়কদের আটকে রাখার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিংকে৷ বিধানসভায় আস্থা ভোটে যাতে বিধায়করা বিজেপি-র বিরুদ্ধে ভোট দেন, তার জন্য মরিয়া কংগ্রেস৷ ২৪ অক্টোবর মহারাষ্ট্রে ভোটের রেজাল্ট বেরনোর পরেই সব বিধায়ককে জয়পুরে নিয়ে গিয়ে রিসর্টে রেখেছিল কংগ্রেস৷ কারণ, রাজস্থানে কংগ্রেস সরকার৷ অশোক গেহলট মুখ্যমন্ত্রী৷ শিবসেনা তাদের বিধায়কদের রেখেছে মুম্বইয়ের হোটেল ললিতে৷

শুক্রবার রাত পর্যন্তও ঠিক ছিল, সরকার গড়ছে এনসিপি-শিবসেনা-কংগ্রেস জোট৷ শনিবার সকালে হঠাত্‍ সব ঘুরে যায়৷ শেষ পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ল বিজেপি-এনসিপি জোট৷ শুক্রবার সম্ভাব্য মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে উদ্ধব ঠাকরের নামও ঘোষণা হয়েছিল৷ কিন্তু তার পর দিন সাত সকালেই পাল্টে গেল সব সমীকরণ৷ এনসিপির হাত ধরে জোট সরকার গড়ল বিজেপি৷ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশ৷ উপ মুখ্যমন্ত্রী হলেন শরদ পাওয়ারের ভাইপো অজিত পাওয়ার৷

উল্লেখ্য গত বুধবার নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন শরদ পাওয়ার৷ তবে তাতে সরকার গঠন নিয়ে কোনও কথা হয়নি বলেই দাবি করে দুই দল৷ মোদি ও পাওয়ারের বৈঠকের পরপরই তড়িঘড়ি শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোটের পক্ষে মত দেন সোনিয়া গান্ধি৷ তারপরই শুরু হয় সরকার গঠনের প্রক্রিয়া৷ কিন্তু সেই সব প্রক্রিয়া ভেস্তে শেষ পর্যন্ত শেষ হাসি হাসলেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশ৷ দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন তিনি৷ মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ট্যুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷

Published by: Akash Misra
First published: November 24, 2019, 12:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर