‘‌ওঁরা ‌নমাজ পড়ে, আমরা পুজো করি’, পরিযায়ী শ্রমিকদের নিরাপদ আশ্রয় অসমের হিন্দু বাড়ি

‘‌ওঁরা ‌নমাজ পড়ে, আমরা পুজো করি’, পরিযায়ী শ্রমিকদের নিরাপদ আশ্রয় অসমের হিন্দু বাড়ি
দেব কুমার জানালেন, রমজান মাসের প্রতিদিন কেউ না কেউ ওঁদের জন্য ফল, বা অন্য খাবার জিনিস নিয়ে আসেন।

দেব কুমার জানালেন, রমজান মাসের প্রতিদিন কেউ না কেউ ওঁদের জন্য ফল, বা অন্য খাবার জিনিস নিয়ে আসেন।

  • Share this:

    গুয়াহাটি:‌ লকডাউনে সাধারণ মানুষের দৈন্য দশায় মানুষই পাশে এসে দাঁড়াচ্ছেন। মানবতার অনন্য নজির বারবার তৈরি হচ্ছে দেশে। এবার সেই চিত্রই দেখা গেল অসমে। সেখানে মুসলিম পরিযায়ী শ্রমিকদের আশ্রয় দিলেন হিন্দু। সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে দু’‌বার ভাবতেও হল না।

    বিহারের সহরসা জেলার খগড়িয়াতে থেকে অসমের ধুবড়িতে কিছু মাটির জিনিস তৈরি করতে গিয়েছিলেন বেশ কয়েকজন। প্রতিবছরই অসমের বাসিন্দা দেব কুমারের বাড়িতে তাঁরা আসেন। এবছরও গিয়েছিলেন। তাঁরা নাকি প্রতিবছরই মাস দু’‌য়েক সেখানে থাকেন। অবশ্যই কাজের জন্য। দেব কুমার জানিয়েছেন, ‘‌আমি ওঁদের প্রতিবছরই আমার বাড়িতে জায়গা দিয়ে থাকি। আমার বাড়িতে দুটি আলাদা ঘর আছে। ওরা সেখানে থাকে। এবছও ওরা এসেছিলেন। মাটির তৈরি পুতুল ইত্যাদি তৈরি করার জন্য।’‌

    কিন্তু তার মধ্যেই শুরু হয়ে যায় লকডাউন। যার ফলে আটকে পড়েন ওঁরা। আর সেই সময়েই নির্দ্বিধায় ওঁদের থাকতে দেন দেব কুমার। কিন্তু রমজান মাসের মধ্যে তো আলাদা করে ব্যবস্থা করতেই হবে।


    দেব কুমার জানালেন, রমজান মাসের প্রতিদিন কেউ না কেউ ওঁদের জন্য ফল, বা অন্য খাবার জিনিস নিয়ে আসেন। আমরা রোজ সন্ধ্যে বেলা পুজো করি, ওঁরা ইফতার করে। একই বাড়িতে। কোনও অসুবিধা হয় না।’‌ ওই পরিযায়ী শ্রমিকরা অবশ্য বলছেন, দেব কুমার ওঁদের ঈশ্বরের দূতের মতো বাঁচিয়েছেন। প্রতিবেশীরাও খাবার দাওয়ার দিয়ে আমাদের সুস্থ রেখেছেন। কোনওদিন ওনাদের আমরা ভুলবো না‌।’‌

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published:

    লেটেস্ট খবর