• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন রোশনি নাদার মালহোত্রা, চিনে নিন ভারতের সবচেয়ে ধনী নারীকে

এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন রোশনি নাদার মালহোত্রা, চিনে নিন ভারতের সবচেয়ে ধনী নারীকে

রোশনি নাদার মালহোত্রা, এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে ধনী নারী

রোশনি নাদার মালহোত্রা, এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে ধনী নারী

রোশনি নাদার মালহোত্রা, এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে ধনী নারী

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: রোশনি নাদার মালহোত্রা, এইচসিএল টেকনোলজিসের চেয়ারপারসন এই মুহূর্তে ভারতের সবচেয়ে ধনী নারী, সম্প্রতি এই তথ্যই সামনে এল 'কোটাক ওয়েলথ হুরুন'-এর সমীক্ষায়। বায়োকনের কিরণ মজুমদার রয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে। হুরুন ইন্ডিয়ার গবেষণা থেকে জানা যাচ্ছে ৩৮ বছর বয়সি রোশনি বাবা শিব নাদারের উত্তরসূরি৷ বাবার সম্পত্তি হিসাবে তাঁর আয় হয় ৫৪,৮৫০ কোটি টাকা। এই বছরের জুলাইয়ের শুরুতে, এইচসিএল এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারপারসন শিব নাদার তাঁর ব্যবসার সমস্ত দায়িত্ব মেয়ে রোশনির হাতে তুলে দেন। ৩৬,০০০ কোটি টাকার সম্পত্তি নিয়ে ভারতের দ্বিতীয় ধনী মহিলা বায়োকনের চেয়ারপারসন ও ডিরেক্টর কিরণ মজুমদার ৷

    টপ ১০ কোটাক ওয়েলথ হুরুন ওয়েলদি উইমেন -এ ২০২০ সালে তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ফার্মা ও বায়োটেকনোলজি সংস্থা ইউএসভির চেয়ারপারসন লীনা গান্ধী তেওয়ারি৷ সম্পত্তির পরিমাণ ২১,৩৪০ কোটি। সেরা দশের তালিকায় রয়েছেন ডিভিস ল্যাবরেটরিজ-এর ডিরেক্টর নীলিমা মোতাপাটি, জোহো কর্পোরেশন-এর রাধা ভেম্বু, আরিস্তা নেটওয়ার্ক-এর জয়শ্রী উল্লাল, হিরো ফিনকর্প-এর রেনু মুঞ্জাল, আলেম্বিক ফার্মাসিউটিক্যালস-এর মালিক চিরায়ু আমিন, অনু আগা এবং থেরম্যাক্সের মেহের পুডুমজী এবং ফাল্গুনী নায়ার ও তাঁর পরিবার। এই তালিকায় ছিলেন ৬জন নারী উদ্যোক্তাও ৷ তাঁদের মধ্যে অন্যতম নায়িকা-র ফাল্গুনি নায়ার এবং বাইজু-র দিব্যা গোকুলনাথ, যাঁরা তাঁদের সংস্থাগুলিকে মহীরুহে পরিণত করেছেন৷ এই তালিকার ১৯ জন মহিলা হুরুন ইন্ডিয়া রিচ লিস্ট ২০২০-তে স্থান পেয়েছেন, ৬জন জায়গা করে নিয়েছেন হুরুন গ্লোবাল রিচ লিস্ট ২০২০ -তে৷ তালিকায় ৮জন ছিলেন পদ্মা পুরষ্কার প্রাপ্ত। এই ১৯ জন মহিলার বয়স ৪০ বছর বা তার কম। জেটসেটগো-এর কনিকা টেকরিওয়াল ,ইউনিভার্সাল স্পোর্টসবিজের অঞ্জনা রেড্ডি এবং সান ফার্মার বিধি শঙ্ঘভি এই তালিকার সর্বকনিষ্ঠ মহিলা৷

    প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় ২৫শতাংশ প্রভাব বিস্তার করেছে ফার্মাসিউটিক্যালস এবং টেক্সটাইলস৷ এর পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবা এবং আর্থিক পরিষেবার প্রভাব রয়েছে যথাক্রমে ৯ শতাংশ এবং 8 শতাংশ৷

    ৩২ জন ব্যক্তির মধ্যে তালিকার শীর্ষে রয়েছে মুম্বই, তারপরেই রয়েছ নয়াদিল্লি এবং হায়দরাবাদ। তালিকায় কেবলমাত্র ভারতীয়দেরই স্থান দেওয়া হয়েছে, যাঁরা ভারতে জন্মগ্রহণ করেছেন বা বড় হয়েছেন এবং যাঁরা সক্রিয়ভাবে তাদের ব্যবসা পরিচালনা করছেন৷

    Simli Dasgupta

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published: