corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘‌শাঁখা সিঁদুর’‌ পরতে অস্বীকার করার অর্থ বিবাহকে অস্বীকার করা, মন্তব্য আদালতের

‘‌শাঁখা সিঁদুর’‌ পরতে অস্বীকার করার অর্থ বিবাহকে অস্বীকার করা, মন্তব্য আদালতের
প্রতীকী ছবি

হিন্দু বিবাহ আইনে বিয়ে করার অর্থ এই সমস্ত দিকগুলিকে স্বীকার করেই বৈবাহিক জীবনে প্রবেশ করে

  • Share this:

#‌গুয়াহাটি:‌ হিন্দু বিবাহিত মহিলা যদি শাঁখা সিঁদুর পরতে অস্বীকার করেন, তাহলে ধরে নিতে হবে তিনি আর বৈবাহিক সম্পর্কে থাকতে চান না। তিনি তাঁর স্বামীর সঙ্গে যৌথ জীবন অস্বীকার করছেন। আর এই মর্মে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা হতেই পারে, এই মন্তব্য করল গুয়াহাটি হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের দুই সদস্য প্রধান বিচারপতি অজই লাম্বা ও বিচারপতি সৌমিত্র সাইকিয়া তাঁদের বিচারে জানিয়েছেন, একজন মহিলা শাঁখা, সিঁদুর পরতে চাইছেন না মানে তিনি যে তাঁর স্বামীর সঙ্গে বিবাহিত, সেই পরিচয় অস্বীকার করতে চাইছেন। কারণ, হিন্দু বিবাহ আইনে বিয়ে করার অর্থ এই সমস্ত দিকগুলিকে স্বীকার করেই বৈবাহিক জীবনে প্রবেশ করে। এই পরিপ্রেক্ষিতে স্ত্রীয়ের সঙ্গে বৈবাহিক জীবন চালিয়ে নিয়ে যাওয়াকে হেনস্থা বলা চলে। এর আগে অসমের পারিবারিক আদালতেও এই একই মামলা উঠেছিল।

সেখানেও স্বামী দাবি করেছিলেন, স্ত্রী শাঁখা ও সিঁদুর পরেন না, এর পাশাপাশি আরও অনেকগুলি অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর ডিভোর্স চাই। কিন্তু সেই মামলা পারিবারিক আদালত খারিজ করে দেয়। পরে বিস্তারিত ঘটনাটিতে জানা যায়, পারিবারিক ভাবে ওই ব্যক্তির যৌথ পরিবারে থাকতে নববধু অস্বীকার করে। তাঁর দাবি ছিল আলাদা হয়ে যাওয়ার। তাই নিয়ে পরিবারে অশান্তিও হত। তারপর ২০১৩ সালে ওই মহিলা স্বামীর বাড়ি ছেড়ে মামলা দায়ের করেন ৪৯৮ এ ধারায়। তারপর মামলায় স্বামী ও পরিবারের লোকেদের খালাস করে আদালত। এরপর আলাদা করে একটি বিচ্ছেদের মামলা দায়ের করা হয়, ওই ব্যক্তি বলেন তাঁর স্ত্রী নিষ্ঠুর। উল্টো দিকে স্ত্রী অভিযোগ করেছিলেন, স্বামীর পরিবার তার ওপর অত্যাচার করে। যদিও সেই অভিযোগ খারিজ করে দেয় আদালত।

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: June 29, 2020, 8:31 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर