• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • RAMNATH KOVIND PAYS CONDOLENCES FOR DEATH OF A WOMAN DUE TO TRAFFIC RESTRICTIONS FOR HIS CONVOY DMG

President Ramnath Kovind: তাঁর কনভয়ের জন্য পথ আটকানোয় মহিলার মৃত্যু! দুঃখপ্রকাশ রাষ্ট্রপতির

রাষ্ট্রপতির বার্তা নিয়ে মৃতের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন পুলিশ আধিকারিকরা৷

রাষ্ট্রপতি (President Ramnath Kovind) কানপুরে পৌঁছনোর পরই তাঁর যাত্রাপথ ফাঁকা করতে অন্যান্য যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ শুরু করে পুলিশ৷ ফলে আটকে পড়ে বহু যানবাহন৷

  • Share this:

    #কানপুর: রাষ্ট্রপতির কনভয় যাবে৷ তাই রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ রেখেছিল পুুলিশ৷ আর তার জেরেই প্রাণ গেল এক মহিলার৷ রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ নিজের গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার দিনেই এমন মর্মান্তিক অভিযোগ উঠল কানপুরে৷ অভিযোগ কার্যত স্বীকার করে নিয়ে পুলিশের তরফ থেকে মৃতের পরিবারের কাছে দুঃখপ্রকাশ করা হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, কানপুর পুলিশের প্রধানকে ফোন করে রাষ্ট্রপতি নিজে দুঃখপ্রকাশ করেছেন বলেও জানানো হয়েছে৷

    ঘটনার সূত্রপাত শুক্রবার রাতে৷ তিন দিনের উত্তর প্রদেশ সফরে শুক্রবার রাতে ট্রেনে প্রথমে কানপুর পৌঁছন সস্ত্রীক রামনাথ কোবিন্দ৷ প্রথমে কানপুর শহরের লাগোয়া কানপুর দেহাত জেলায় নিজের গ্রামের বাড়িতে যান তিনি৷ সোমবার এবং মঙ্গলবার লখনউতে থাকবেন রাষ্ট্রপতি৷

    রাষ্ট্রপতি কানপুরে পৌঁছনোর পরই তাঁর যাত্রাপথ ফাঁকা করতে অন্যান্য যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ শুরু করে পুলিশ৷ ফলে আটকে পড়ে বহু যানবাহন৷ ঘটনাচক্রে সেই সময়ই গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বন্দনা মিশ্র নামে এক মহিলাকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছিলেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা৷ রাষ্ট্রপতির যে পথ ধরে যাওয়ার কথা ছিল, সেই পথই ধরেছিলেন তাঁরা৷ কিন্তু পুলিশি নিয়ন্ত্রণে আটকে পড়তে হয় বন্দনার পরিবারকে৷ ফলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার আগেই মৃত্যু হয় ৫০ বছর বয়সি ওই মহিলার৷ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কানপুরের ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডাস্ট্রিজ-এর মহিলা শাখার প্রধান ছিলেন বন্দনা৷ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, কয়েকদিন আগে তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ সুস্থ হয়ে ওঠার পরেও শুক্রবার রাতে হঠাৎই শরীর খারাপ হয় তাঁর৷

    এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা শুরু হয়৷ কানপুরের পুলিশ কমিশনার অসীম অরুণ ঘটনার কথা কার্যত স্বীকার করে নিয়েই বন্দনার পরিবারের প্রতি দুঃখপ্রকাশ করে ট্যুইট করেন৷ ট্যুইট বার্তায় তিনি লেখেন, 'কানপুর পুলিশ এবং আমার তরফ থেকে বন্দনা মিশ্রর মৃত্যুতে অন্তর থেকে দুঃখপ্রকাশ করছি৷ এই ঘটনা আমদের ভবিষ্যতের জন্য শিক্ষা দিল৷ এর পর থেকে আমরা এমন ভাবেই যান নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করব যাতে নাগরিকদের ন্যূনতম সময় অপেক্ষা করতে হয়৷ এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর হবে না৷'

    এর পরে কানপুর পুলিশের কমিশনার ফের একটি ট্যুইট করে জানান, 'মাননীয় রাষ্ট্রপতি পুলিশ কমিশনার এবং জেলাশাসককে ফোন করে ঘটনার সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছেন৷ এই ঘটনায় তিনি খুবই বিচলিত৷ শোকস্তব্ধ ওই পরিবারকে তাঁর সমবেদনা জ্ঞাপন করার জন্যও পুলিশ প্রশাসনের কর্তাদের বলেন রাষ্ট্রপতি৷'এর পরেই বন্দনার শেষকৃত্যেও পুলিশ কর্তারা হাজির হয়ে তাঁর পরিবারকে সমবেদনা জানান এবং রাষ্ট্রপতির বার্তা পৌঁছে দেন৷

    গোটা ঘটনার তদন্তভার একজন উচ্চপদস্থ পুলিশ কর্তাকে দেওয়া হয়েছে৷ পাশাপাশি এই ঘটনায় একজন সাব ইন্সপেক্টর এবং তিন জন কনস্টেবলকে সাসপেন্ড করা হয়েছে৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: