• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • RAM TEMPLE LAND SCAM AAP SP ALLEGE SCAM IN PURCHASE OF LAND BY RAM TEMPLE TRUST IN AYODHYA SAID LOOT OF MONEY SB

Ram Temple Land Scam: ১০ মিনিটের ফারাকে ২ কোটির জমি কেনা হল ১৮.৫ কোটিতে! রাম মন্দিরে 'বিরাট দুর্নীতি'র অভিযোগ?

বিরাট দুর্নীতির অভিযোগ

Ram Temple Land Scam: ট্রাস্টের দাবি, রাজনৈতিক কারণেই জমি দুর্নীতির মতো ‘বিভ্রান্তিকর’ অভিযোগ তোলা হচ্ছে।

  • Share this:

    #উত্তরপ্রদেশ: ভক্তি-আবেগের ক্ষেত্রেও দুর্নীতি! মাত্র ১০ মিনিটের ব্যবধানে জমির একটি অংশের দাম দু'কোটি থেকে বেড়ে দাঁড়াল ১৮.৫ কোটি টাকা। আশ্চর্যজনকভাবে, অযোধ্যার রাম মন্দির নির্মাণে শ্রীরাম জন্মভূমি তীর্থক্ষেত্রের বিরুদ্ধেই জমি দুর্নীতির মারাত্মক অভিযোগ তুলেছে উত্তরপ্রদেশে বিরোধী সমাজবাদী পার্টি এবং আম আদমি পার্টি (আপ)। ইতিমধ্যেই ওই দুর্নীতি নিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছে বিরোধীরা। যদিও জমি দুর্নীতির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে রাম মন্দির ট্রাস্ট। বরং ট্রাস্টের দাবি, রাজনৈতিক কারণেই জমি দুর্নীতির মতো ‘বিভ্রান্তিকর’ অভিযোগ তোলা হচ্ছে।

    ঘটনার সূত্রপাত রবিবার। সাংবাদিক বৈঠক করে সমাজবাদী পার্টির নেতা তেজনারায়ণ পান্ডে অভিযোগ আনেন, ‘রাম মন্দিরের দু'কোটি টাকায় জমির ১২,০৮০ স্কোয়ার মিটার অংশ কিনেছিলেন রবিমোহন তিওয়ারি এবং সুলতান আনসারি। ১০ মিনিট পর ট্রাস্ট গত ১৮ মার্চ ১৮.৫ কোটি টাকায় সেই জমিটিই কিনে নেয়।' এসপি নেতার দাবি, ওই জমি কেনার চুক্তির সময় হাজির ছিলেন রাম মন্দির ট্রাস্টের সদস্য অনিল মিশ্র এবং অযোধ্যার মেয়র হৃষিকেশ উপাধ্যায়। এরপরই আরটিজিএসের মাধ্যমে রবিমোহন ও সুলতানের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ১৭ কোটি টাকা পাঠানো হয়েছিল। আরটিজিএসের মাধ্যমে সেই অর্থ পাঠানোর ঘটনায় তদন্তের পাশাপাশি পুরো ‘জমি দুর্নীতিতে’ সিবিআই তদন্তের দাবি তুলেছেন সমাজবাদী পার্টি।

    এরপরই চাপের মুখে মুখ খোলে রাম জন্মভূমি ট্রাস্ট। ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক চম্পত রাইয়ের তরফে একটি বিবৃতি জারি করে দাবি করা হয়েছে, রাম মন্দির চত্বরের সুরক্ষা এবং পুনর্বাসন সংক্রান্ত কারণে জমি কিনতে হচ্ছে ট্রাস্টকে। আর সেই কারণেই অনলাইনে স্ট্যাম্প পেপার-সহ বিভিন্ন প্রয়োজনীয় নথি কেনা হচ্ছে। আর সম্মতিপত্রের ভিত্তিতে কেনা হচ্ছে ওই সমস্ত জমি। ২০১৯ সালের ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পর ‘অযোধ্যার সার্বিক বিকাশের জন্য’ জমি কিনতে শুরু করেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। স্বাভাবিক কারণেই গোটা এলাকায় জমির দাম একলাফে অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে।

    যদিও রাম মন্দিরের জমি দুর্নীতি নিয়ে সমাজবাদী পার্টির পাশে দাঁড়িয়েছে আম আদমি পার্টি। আপ নেতা সঞ্জয় সিং। সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ কিছু নথি প্রকাশ করে সঞ্জয় অভিযোগ করেন, সন্ধ্যা সাতটা ১০ মিনিটে যে জমি দু'কোটি টাকায় কেনেন রবিমোহন ও সুলতান, পাঁচ মিনিটের ব্যবধানেই সেই জমি রাম জন্মভূমি ট্রাস্ট কেনে ১৮.৫ কোটি টাকায়। অর্থাৎ, প্রতি সেকেন্ডে ওই জমির দাম বেড়েছে ৫.৫ লাখ টাকা। কটাক্ষের সুরে আপ নেতা বলেন, 'পৃথিবীর কোথাও এই হারে জমির দাম বাড়ে না। কিন্তু ভগবান রামের জন্মস্থানে তা হয়।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: