Home /News /national /
চিনা আগ্রাসনের জবাব দিতে কি তৈরি ভারত? নিজেদের শক্তি বুঝতে জরুরি বৈঠকে রাজনাথ

চিনা আগ্রাসনের জবাব দিতে কি তৈরি ভারত? নিজেদের শক্তি বুঝতে জরুরি বৈঠকে রাজনাথ

চিন সীমান্তে বাড়ছে উত্তেজনা৷ চিন সীমান্তে বাড়ছে উত্তেজনা৷PHOTO- PTI

চিন সীমান্তে বাড়ছে উত্তেজনা৷ চিন সীমান্তে বাড়ছে উত্তেজনা৷PHOTO- PTI

এ মাসের শুরুর দিকেই লাদাখের প্যাংগং লেকের কাছে লোহার রড এবং লাঠি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে দু' পক্ষের প্রায় ২৫০ সেনা জওয়ান৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: লাদাখ সীমান্তে ভারত এবং চিনের সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘাতের আবহের মধ্যেই চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে নিরাপত্তা পর্যালোচনা বৈঠক করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ বৈঠকে তিন বাহিনীর প্রধানও উপস্থিত ছিলেন৷

    গত কয়েক সপ্তাহের মধ্যে একাধিকবার এমনই বৈঠক করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী৷ মনে করা হচ্ছে, সীমান্তে চিন নতুন করে যে প্ররোচনা দিচ্ছে, তার জবাব দেওয়ার জন্য দেশের সামরিক বাহিনী কতটা তৈরি, সেটাই বুঝে নিতে চাইছে সরকার৷ লেহ থেকে ফিরে এসে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর কী পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা বিশদে প্রতিরক্ষামন্ত্রীকে জানান সেনা প্রধান এম এম নারভানে৷

    গত ৫ মার্চ প্রথমবার সংঘাতের পর চিন এবং ভারতীয় বাহিনীর সেনা কর্তাদের মধ্যে ছ' দফায় আলোচনা হলেও সীমান্তে উত্তেজনা এতটুকু কমেনি৷ বরং দুই দেশের বাহিনীই আগ্রাসী অবস্থান বজায় রেখেছে৷

    সূত্রের খবর, চিন দাবি করেছে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার এপারে ভারতের দিকে পরিকাঠামো গড়ে তোলার কাজ বন্ধ রাখা হোক৷ যা মেনে নিতে নারাজ নয়াদিল্লি৷ পাল্টা ভারত সরকারের তরফে বেজিংয়ের কাছে দাবি করা হয়েছে, যাতে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর স্থিতাবস্থা বজায় রাখা হয়৷

    ভারতের দিকে গত বছর তৈরি করা ২৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ ডাবরুক-শিয়ক-ডিবিও রোড তৈরি করা নিয়েই চিনের মূল আপত্তি৷ এই রাস্তাটি তৈরির ফলে সীমান্তে ভারতীয় সেনাবাহিনীর যাতায়াত এবং নজরদারি চালানোর ক্ষেত্রে অনেক বেশি সুবিধে হয়েছে৷

    এ মাসের শুরুর দিকেই লাদাখের প্যাংগং লেকের কাছে লোহার রড এবং লাঠি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দু' পক্ষের প্রায় ২৫০ সেনা জওয়ান৷ এমন কী পাথর ছোড়াছুড়িও হয়৷ যার ফলে দু'পক্ষেরই বেশ কয়েকজন আহত হয়৷ আবার মে মাসের ৯ তারিখে সিকিমের নাকুলা পাসে দু' দেশের প্রায় দেড়শো সেনা জওয়ান সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন৷ এই ঘটনায় ভারত এবং চিনের অন্তত ১০ জন সৈন্য আহত হন৷

    উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ার পরই ভারত এবং চিন দু' পক্ষই নিজেদের সীমান্তে অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েন করেছে৷ নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর অন্তত তিনটি জায়গায় তাঁবু ফেলেছে দু' পক্ষই, প্রতিপক্ষের হামলা ঠেকানোর তোড়জোড় শুরু হয়েছে৷ উত্তরাখণ্ডেও প্রকৃত নিয়ন্ত্ররেখা বরাবর নিজেদের দিকে চিনা বাহিনী নির্মাণ কাজ শুরু করায় সীমান্তে বাড়তি সেনা মোতায়েন করেছে ভারত৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Rajnath Singh

    পরবর্তী খবর