দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

'ঈশ্বরের সাবধানবাণী'র পর রাজনৈতিক পরিকল্পনা নিয়ে বড় ঘোষণা রজনীকান্তের

'ঈশ্বরের সাবধানবাণী'র পর রাজনৈতিক পরিকল্পনা নিয়ে বড় ঘোষণা রজনীকান্তের
'ঈশ্বরের সাবধানবাণী'র পর রাজনৈতিক পরিকল্পনা নিয়ে বড় ঘোষণা রজনীকান্তের

২০১৭ সাল থেকেই রজনীকান্তের সক্রিয় রাজনীতিতে আসার ইচ্ছা৷ কিন্তু এবারও সেটা ধাক্কা খেল৷ তিনি জানিয়েছেন, যাঁরা তাঁকে বিশ্বাস করেছেন, তাঁদের তিনি বলির পাঁঠা বানাতে পারবেন না৷ কোনও কাজই অর্ধেক ভাবে তিনি করতে পারবেন না৷

  • Share this:

#চেন্নাই: দু'দিন আগেই সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন রজনীকান্ত৷ ডাক্তারদের পরামর্শে দক্ষিণী সুপারস্টার রয়েছেন বিশ্রামে৷ শ্যুটিং এখনও শুরু করেননি তিনি৷ কিন্তু রাজনৈতিক পরিকল্পনা নিয়ে বড় ঘোষণা করে দিলেন৷ রজনীকান্ত জানিয়ে দিলেন তিনি কোনও রাজনৈতিক দল তৈরি করবেন না৷

২০২১ তামিলনাড়ু নির্বাচনকে মাথায় রেখেই নতুন রাজনৈতিক দল নিয়ে আসছেন বলে ডিসেম্বরের শুরুতে ট্যুইট করেছিলেন রজনীকান্ত৷ তাঁর নতুন দলের আগমনী বার্তা তামিল রাজনীতিতে শোরগোল ফেলে দিয়েছিল৷ কিন্তু আাপাতত রাজনীতি থেকে নিজেকে দূরেই রাখছেন দক্ষিণ ভারতের ভূমিপুত্র৷

রজনীকান্ত মঙ্গলবার ট্যুইট করেই এই সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন৷ তিনি বলছেন, তাঁর রাজনীতিতে আসা হয়তো ঠিক হবে না৷ সাম্প্রতিক শারীরিক অসুস্থতাকে রজনীকান্ত ভগবানের থেকে পাওয়া সতর্কবার্তা হিসেবে মনে করছেন৷ ৭০ বছরের অভিনেতা লিখলেন, "ভগবান আমাকে সাবধানবাণী দিলেন একটা৷ আমি দল করার পর যদি মিডিয়া এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রচার করি, তাহলে আমি জনগণের মধ্যে রাজনৈতিক আলোড়ন ফেলে নির্বাচনে বড় ব্যবধানে জিততে পারব না। রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা সম্পন্ন কেউই এই বাস্তবটা অস্বীকার করতে পারবে না। "

২০১৭ সাল থেকেই রজনীকান্তের সক্রিয় রাজনীতিতে আসার ইচ্ছা৷ কিন্তু এবারও সেটা ধাক্কা খেল৷ তিনি জানিয়েছেন, যাঁরা তাঁকে বিশ্বাস করেছেন, তাঁদের তিনি বলির পাঁঠা বানাতে পারবেন না৷ কোনও কাজই অর্ধেক ভাবে তিনি করতে পারবেন না৷

উচ্চরক্তচাপ জনিত সমস্যায় রজনীকান্তকে গত ২৫ ডিসেম্বর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল ৷ সেখানে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে ৪৮ ঘণ্টা ছিলেন তিনি৷ কিন্তু গুরুতর কোনও সমস্যা না-দেখায় 'থালাইভা'কে বাড়ি যাওয়ার অনুমতি দেন ডাক্তাররা৷ হাসপাতাল থেকে বিবৃতি দেওয়া হয়েছিল যে, রজনীকান্তের রক্তচাপ এখন স্বাভাবিক৷ তিনি আগের থেকে অনেক ভাল আছেন৷ রজনীকান্তের শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করেই তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয়েছে৷

রজনীকান্তকে এখন ওষুধ এবং ডায়েটের ওপরেই থাকতে হবে৷ আগামী এক সপ্তাহ বিছানায় বিশ্রামের পাশাপাশি নিয়মিত রক্তচাপ মাপাতে হবে৷ ন্যূনতম শারীরিক কার্যকলাপ করতে পারবেন তিনি এবং কোনও ভাবেই মানসিক চাপ নেওয়া যাবে না৷ করোনার কথা মাথায় রেখে রজনীকান্ত এমন কিছুই করতে পারবেন না, যা করোনার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়৷ এই অবস্থায় রাজনীতির চাপটা না নেওয়াই উচিত বলে মনে করলেন রজনীকান্ত৷ তবে মানুষের পাশেই তিনি থাকবনে বলেই জানিয়েছেন৷

Published by: Subhapam Saha
First published: December 29, 2020, 1:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर