আজই কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক, ইস্তফা দিতে পারেন রাহুল

আজই কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক, ইস্তফা দিতে পারেন রাহুল
  • Share this:

#নয়াদিল্লি: আজই কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ৷ লোকসভা ভোটে পর্যুদস্ত কংগ্রেস ৷ সূত্রের খবর, দলের পরাজয়ের দায় নিজের ঘাড়ে নিয়ে আজই পদত্যাগ করতে চলেছেন রাহুল গান্ধি ৷ দলের সভাপতি পদ থেকে রাহুলের পদত্যাগ আটকাতে দিল্লিতে হাজির নবীন নেতারা ৷ ফল নিয়ে পর্যালোচনা হবে কংগ্রেসের বৈঠকে ৷ এরপরই ইস্তফাপত্র পেশ করতে পারেন সোনিয়া পুত্রে বলে খবর ৷

রাহুলের রাফাল বিফল। তাঁর 'চৌকিদার চোর হ্যায় স্লোগান', স্লোগানই থেকে গেল। উনিশের রায়ে দিল্লির মসনদে ফের চৌকিদারই।

লড়াই ছিল কাঁটায়-কাঁটায় ৷ দিল্লির মসনদ দখলের লড়াইয়ে ফের নরেন্দ্র মোদির কাছে ধরাশায়ী হলেন রাহুল গান্ধি। গান্ধি পরিবারের শক্ত দূর্গ, যেখানে ২০০৪ সাল থেকে জিতেছেন, সেই উত্তরপ্রদেশের অমেঠিতেও এবার বিজেপির স্মৃতি ইরানির কাছে হারতে হল রাহুল গান্ধিকে।

কেরলের ওয়াইনাড থেকে না জিতলে এবার আর সংসদেই পা রাখতে পারতেন না রাহুল গান্ধি। গতবারের মতো এবারও তাঁর দলের বিপর্যয়। উত্তরপ্রদেশে গতবার কংগ্রেস পেয়েছিল ২টি আসন। সেটা আরও কমে হল এক। সবেধন নীলমণি সোনিয়া গান্ধির রায়বরেলি। গতবার মোদি ঝড়ে কংগ্রেস সারা দেশে পেয়েছিল মাত্র চুয়াল্লিশটি আসন। এবার তার থেকে সামান্য বেশি ৷ অর্থাৎ, অমেঠির কংগ্রেস প্রার্থী এবং ভোটে কংগ্রেসের মুখ, দুই দায়িত্বেই ফের ধরাশায়ী রাহুল গান্ধি। পর্যবেক্ষকদের মতে এবারের ফলেই স্পষ্ট, মোদির বিরুদ্ধে রাহুলের সব হুলই ভোঁতা।

লোকসভা ভোটের মুখে হিন্দি বলয়ের তিন রাজ্য, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তীসগড়, বিজেপির হাত থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল কংগ্রেস।তখন থেকেই কংগ্রেসের নেতারা স্বপ্ন দেখছিলেন, এবার মোদিকে সরিয়ে প্রধানমন্ত্রী হবেন রাহুল গান্ধি। সেই মতো তিনি ঝাঁপিয়েওছিলেন। রাফাল দুর্নীতির অভিযোগকে অস্ত্র করে নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে 'চৌকিদার চোর হ্যায়' স্লোগান তোলেন কংগ্রেস সভাপতি। কিন্তু, তাতে যে কাজ হয়নি, তা স্পষ্ট। উনিশের ভোটে, চৌকিদার মোদিতেই আস্থা। রাহুলের রাফাল দুর্নীতির অভিযোগ ধরাশায়ী।

নোটবাতিল, জিএসটি নিয়ে সাধারণ মানুষের ক্ষোভের পাশাপাশি কৃষক সমস্যাকেও হাতিয়ার করেছিলেন রাহুল গান্ধি। নিজেকে গরিব দরদী হিসেবে তুলে ধরে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন নিশ্চিত আয়ের প্রকল্প - ন্যায়ের। কিন্তু, তার প্রভাব ভোটযন্ত্রে পড়ল কোথায়? বাজিমাত করলেন সেই নরেন্দ্র মোদিই। মোদিকে হারাতে বিরোধীরা বার বার মহাজোটের সলতে পাকিয়েছে। কিন্তু, বিরোধীদের মধ্যে সবচেয়ে বড় দল কংগ্রেস সেভাবে জোটই করতে পারেনি।

বিজেপি এবার দেশজুড়ে ৩৮টি দলের সঙ্গে জোট করেছে, সেখানে উত্তরপ্রদেশে এসপি-বিএসপি, দিল্লিতে আম আদমি পার্টি, পশ্চিমবঙ্গে সিপিএম, কারও সঙ্গেই জোটের ফরমুলা বের করতে পারেননি রাহুল গান্ধি।পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, রাহুলের একলা চলার সিদ্ধান্তেরও খেসারতও দিতে হল কংগ্রেসকে। কাজে এল না প্রিয়ঙ্কা-ফ্যাক্টর ৷

এবার ভোটের মুখে প্রিয়ঙ্কা গান্ধিকে উত্তরপ্রদেশের ময়দানে নামান রাহুল। অনেকে তখন বলেছিলেন, এটা কংগ্রেস সভাপতির মাস্টার স্ট্রোক। কিন্তু, তাও কাজে এল না। প্রিয়ঙ্কা ঝাঁপালেন। কিন্তু, এযাত্রায় রাহুলকে বাঁচাতে পারলেন না।

First published: May 25, 2019, 11:26 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर