• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • RAHUL GANDHI WANTS SOMEONE DYNAMIC TO TAKE CHARGE IN GUJARAT TO DEFEAT THE BJP AHEAD OF THE 2024 ELECTIONS SB

Gujarat Congress: আহমেদ প্যাটেল নেই, হার্দিকদের নিয়ে নতুন কৌশলে গুজরাতে লাভবান হবে কংগ্রেস?

কৌশলে কংগ্রেস

Gujarat Congress: ২০১৭ সালে দলিত, কৃষক, প্যাটেলদের একজোট করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছিলেন রাহুল গান্ধি স্বয়ং। এবার গুজরাত নির্বাচনের বছর খানেক আগে থাকতেই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে কংগ্রেস।

  • Share this:

    #গুজরাত: বিধানসভা নির্বাচনের অনেক আগেই আরও এক বার সংশ্লিষ্ট রাজ্যের প্রভাবশালী সম্প্রদায়কে ‘পাশে রাখার’ কৌশল নিল BJP। গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে বিজয় রূপাণীর ইস্তফা আর তারপরই রবিবার ভূপেন্দ্র প্যাটেলকে গুজরাতের নতুন মুখ্যমন্ত্রী করার সিদ্ধান্ত নিলেন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব। রাজনৈতিক মহলের মতে, এর নেপথ্য কারণই হল, গুজরাতে 'পাতিদার'দের মন রাখা ও বিজয় রূপাণীর প্রত্যাশা অনুযায়ী কাজ করতে না পারা। এই পরিস্থিতিতে কৌশল সাজাচ্ছে কংগ্রেসও। গত বিধানসভা নির্বাচনে গুজরাতে কংগ্রেসের ভালো ফল হলেও সরকার গঠন করতে পারেনি। প্রায় ৪০ শতাংশের বেশি ভোট পেলেও ক্ষমতা দখল থেকে দূরেই থাকতে হয়েছে। তবে, সেই সূত্রেই কংগ্রেসের হাতে এসেছে জিগনেশ মেভানি, হার্দিক প্যাটেল ও অল্পেশ ঠাকুরের মতো নেতারা। এমনকী ২০১৭ সালে দলিত, কৃষক, প্যাটেলদের একজোট করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়েছিলেন রাহুল গান্ধি স্বয়ং। এবার গুজরাত নির্বাচনের বছর খানেক আগে থাকতেই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছে কংগ্রেস।

    গুজরাতের বিজেপি নেতারা বলছেন, নতুন মুখ্যমন্ত্রী মুখ ভূপেন্দ্র প্যাটেলকে মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসানো থেকে স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে, ২০২২ সালেও নরেন্দ্র মোদির মুখকে সামনে রেখেই গুজরাতের ভোটে লড়বে বিজেপি। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে ২০২২ সালে মোদি-শাহের নিজের রাজ্য গুজরাতে বিজেপি হেরে গেলে, সারা দেশে নেতিবাচক বার্তা যাবে। তাই আগেই রাজ্য রাজনীতির নিয়ন্ত্রণ হাতে তুলে নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। যদিও কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব বিজেপির অন্দরের এই জটিলতাকে এখনও পর্যন্ত তেমন কাজে লাগাতে পারেনি। বরং স্থানীয় নির্বাচনে রীতিমতো ওয়াশআউট হয়ে গিয়েছে। এরপরই প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অমিত ছাবড়া ও বিরোধী দলনেতা পরেশ ধানানি পদত্যাগ করেছেন। আর সেই সূত্রেই তরুণ হার্দিক প্যাটেলকে কার্যকরী সভাপতি করা হয়েছে প্যাটেল ভোট ও তরুণ সম্প্রদায়কে কাছে টানতে। তবে, কংগ্রেসের অন্দরে এখনও আহমেদ প্যাটেলের অভাব পূরণ হয়নি। রাজ্যসভা নির্বাচনে আহমেদ প্যাটেলের সেই ভূমিকা এখনও গুজরাত কংগ্রেসের অন্দরে চর্চার বিষয়। এই পরিস্থিতিতে রাহুল গান্ধি গুজরাতকেই আপাতত পাখির চোখ করতে চাইছেন। যদি গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে পর্যুদস্ত করা যায়, তাহলে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে বিরাট সাফল্য পাবে কংগ্রেস। আরও পড়ুন: বিজেপি-বামের চেয়ে অনেক 'এগিয়ে' থাকতে ভবানীপুরে বিশেষ কৌশল তৃণমূলের! সেই কারণেই রাহুল গান্ধি চাইছেন, একজন ডায়নামিক নেতা গুজরাতে দলের নেতৃত্বে থাকুক। গুজরাতে দলের দেখভাল করার জন্য সবচেয়ে বেশি করে কংগ্রেসের অন্দরে উঠে আসছে ভূপেশ বাঘেলের নাম। প্রশাসক, সংগঠন হিসেবে ভূপেশের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে দলের অন্দরে। রাহুল গান্ধিও ভূপেশ বাঘেলের প্রতি নরম বলেই দলীয় সূত্রে খবর। যদিও দলের মধ্যে আরও একটি নাম উঠে আসছে, তিনি সচিন পাইলট। রাজস্থানের নেতা হলেও গুজরাতেও সচিন পাইলটকে কাজে লাগানোর বিষয়ে আলোচনা চলছে কংগ্রেসের অন্দরে। ----পল্লবী ঘোষ
    Published by:Suman Biswas
    First published: