corona virus btn
corona virus btn
Loading

শ্রমিকদের কান্না সরকারের কানে পৌঁছে দেবই, ভিডিও পোস্ট করে সরব রাহুল!

শ্রমিকদের কান্না সরকারের কানে পৌঁছে দেবই, ভিডিও পোস্ট করে সরব রাহুল!
এক পুলিশ আধিকারিক অবশ্য দাবি করেছেন, রাহুল গান্ধি এসে কথা বলার পর পরই কয়েকজন কংগ্রেস কর্মী এসে ওই পরিযায়ী শ্রমিকদের একটি গাড়িতে করে নিয়ে যায়। PHOTO- FILE

আজ রাহুল গান্ধি ফের নিজের ট্যুইটারে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য আওয়াজ তুললেন।

  • Share this:

#নয়া দিল্লি: করোনা ভাইরাস যুদ্ধে জয়লাভ করার জন্য দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। হঠাৎ করে সারা দেশে লকডাউন শুরু হয়। বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন, বাস, গাড়ি-ঘোড়া থেকে শুরু করে দোকানপাট, স্কুল, কলেজ, সিনেমাহল সবকিছুই। আর এই ভাবে হঠাৎ সব কিছু বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়েন পরিযায়ী শ্রমিকরা।

দেশের বিভিন্ন গ্রাম থেকে শহরে কাজ করতে আসেন দিনমজুররা। দিল্লি, মুম্বাই শুধু নয় সারা ভারতেই কাজ করে এই শ্রমিকরা। আজ তাঁরাই সবথেকে বেশি সমস্যায়। লকডাউনে বন্ধ কাজ। হাতে টাকা নেই। নেই থাকার জায়গা। তাই তাঁরা বার বার সরকারকে বলেছে তাঁদের নিজের গ্রামে ফিরিয়ে দেওয়ার কথা। বহুবার রাস্তায় জমায়েত হয়ে তাঁরা বুঝিয়েছেন, করোনা নয় তাঁদের প্রাণ চলে যাবে না খেয়ে। কিন্তু প্রথমদফার লকডাউনে সরকারের তরফ থেকে তাঁদের পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়নি। তাঁরা পায়ে হেঁটেই রওনা দেয় ঘরে ফেরার জন্য। কয়েক হাজার মাইল পথ তাঁরা হাঁটতে শুরু করে। কারও কোলে বাচ্চা, কেউ আবার গর্ভবতী, কেউ আবার বয়স্ক। সব রকম কষ্টকে সহ্য করে তাঁরা হেঁটে চলেছে। এ দৃশ্য ভারত আগে দেখেনি। পর পর ঘটে রাস্তাতেই ঘটে দূর্ঘটনা। শ্রমিকদের মৃত্যু হতে থাকে। তবে শেষ পর্যন্ত সরকার কিছু শ্রমিককে স্পেশ্যাল ট্রেনে ফেরাবার ব্যবস্থা করে। বাসের ব্যবস্থাও করা হয়। কিন্তু এই সুবিধা সকল শ্রমিকের কাছে এখনও পৌঁছয়নি। তাঁরা এখনও হেঁটে চলেছে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের হয়ে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি বেশ কয়েকবার মুখ খুলেছেন। সরকারকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়েছেন মানুষের করুণ অবস্থার কথা। কিন্তু করোনা এবং লকডাউনের জন্য সেভাবে কিছুই তখন কর হয়নি। আজ রাহুল গান্ধি ফের নিজের ট্যুইটারে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য আওয়াজ তুললেন। তিনি একটি ভিডিও পোস্ট করলেন। সেখানে তুলে ধরা হয়েছে শ্রমিকদের খারাপ অবস্থার কথা। ভিডিও পোস্ট করে রাহুল লিখলেন, "চারিদিকে ঘণ অন্ধকার। কঠিন সময় এটা।আপনারা হিম্মত রাখুন। আমরা আপনাদের সকলের সুরক্ষার জন্য আছি। আমি সরকারের কানে এই শ্রমিকদের চিৎকার পৌঁছে দেবই। শ্রমিকরা দেশের সাধারণ মানুষ নয়, তারাই দেশের মেরুদণ্ড। এঁদের কখনও থামতে দেওয়া যাবে না।"

Published by: Piya Banerjee
First published: May 14, 2020, 5:53 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर