হোম /খবর /দেশ /
'আমি ভারতের জন্য লড়ছি', সাংসদ পদ খারিজের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া রাহুল গান্ধির

'আমি ভারতের জন্য লড়ছি', সাংসদ পদ খারিজের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া রাহুল গান্ধির

সাংসদ পদ খারিজের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া রাহুল গান্ধির

সাংসদ পদ খারিজের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া রাহুল গান্ধির

তিন বছর আগে মোদি পদবী নিয়ে করা মন্তব্যের জেরে গতকাল রাহুল গান্ধিকে ২ বছরের কারাবাসের সাজা দেয় সুরাতের একটি আদালত৷ এর পর আজই রাহুল গান্ধির লোকসভার সদস্যপদ খারিজ করার নির্দেশ জারি করেছন লোকসভার স্পিকার৷

  • Share this:

রচনা মজুমদার, নয়াদিল্লি: সাংসদ পদ খারিজের পরে প্রথমবার ট্যুইটে প্রতিক্রিয়া জানালেন রাহুল গান্ধি। লিখলেন, 'আমি ভারতের জন্য লড়ছি। আমি এর জন্য যে কোনও দাম দিতে প্রস্তুত।'

তিন বছর আগে মোদি পদবী নিয়ে করা মন্তব্যের জেরে গতকাল রাহুল গান্ধিকে ২ বছরের কারাবাসের সাজা দেয় সুরাতের একটি আদালত৷ যদিও প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই জামিনের আবেদন করলে, সেই আবেদনও মঞ্জুর হয়ে যায় এদিন৷ গুজরাতের আদালতের ওই রায়ের বিরুদ্ধে এবার উচ্চ আদালতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কংগ্রেস হাইকম্যান্ড। কিন্তু আজই রাহুল গান্ধির লোকসভার সদস্যপদ খারিজ করার নির্দেশ জারি করেছন লোকসভার স্পিকার৷ জনপ্রতিনিধিত্বমূলক আইনের উল্লেখ করেই এই শাস্তি দেওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন: EVM নিয়ে বিরোধীদের বৈঠক, অথচ সেখানে গেল না TMC, কেন? তুঙ্গে জল্পনা

আইন অনুযায়ী কোনও ব্যক্তি দু'বছর বা তার বেশি সময়ের জন্য সাজা প্রাপ্ত হলে ওই ব্যক্তির সাংসদ অথবা বিধায়ক পদ তৎক্ষণাৎ খারিজ হয়ে যায়। এমনকি, আগামী ছ'বছর নির্বাচনেও অংশ নিতে পারবেন না রাহুল গান্ধি।

কিন্তু এ দিন রাহুল গান্ধির লোকসভার সদস্যপদ খারিজ হতেই কার্যত কংগ্রেসের পাশে দাঁড়িয়েই মোদি সরকারকে তীব্র আক্রমণ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়৷ রাহুলের সদস্য পদ খারিজের খবর প্রকাশ্যে আসার কিছুক্ষণের মধ্যেই ট্যুইট করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, 'প্রধানমন্ত্রী মোদির নতুন ভারতে বিরোধী নেতারাই বিজেপি-র প্রধান টার্গেট হয়ে উঠেছেন৷ একদিকে বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্ত বিজেপি নেতাদের মন্ত্রিসভায় জায়গা দেওয়া হচ্ছে, অন্যদিকে বক্তব্যের জন্য বিরোধী নেতাদের সাংসদ পদ খারিজ করা হচ্ছে৷ আমাদের সাংবিধানিক গণতন্ত্রের নতুন অবক্ষয়ের সাক্ষী থাকল৷'

আরও পড়ুন: মাঝ আকাশে উড়তে উড়তে হঠাৎই বাড়ির ছাদে ভেঙে পড়ল বিমান! ধানবাদে ভয়ঙ্কর ঘটনা

রাহুল গান্ধি ইস্যুতে পাল্টা আন্দোলনে নেমেছে কংগ্রেস৷ এই ইস্যুতে বিরোধীদেরও পাশে চাইছে কংগ্রেস নেতৃত্ব৷ যদিও গত কয়েকদিনে দিল্লিতে কংগ্রেসের কোনও বৈঠকেই যোগ দেয়নি তৃণমূল৷ কয়েকদিন আগে দলের বৈঠকেও কংগ্রেসকে ছাড়া ২০২৪-এ একা লড়ার কথাই জানিয়েছিলেন তৃণমূলনেত্রী৷ কিন্তু রাহুল গান্ধি ইস্যুতে মমতা-অভিষেকের বার্তার পর রাজনৈতিক মহলেও দু দলের সমীকরণ নিয়ে নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে৷

সেই ২০১৯ সালের কথা। সেই সময় লোকসভা নির্বাচনের আগে কর্ণাটকের কোলারে একটি সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পদবি ধরে একটি মন্তব্য করেছিলেন রাহুল। তাঁর সেই মন্তব্যের বিরোধিতা করে একটি মামলা দায়ের করেন গুজরাতের প্রাক্তন মন্ত্রী বিজেপি নেতা পুর্ণেশ মোদি। অভিযোগকারীর দাবি, এই মন্তব্যে রাহুল পুরো মোদি সম্প্রদায়কে অপমানিত করেছেন। বিষয়টি নিয়ে বিজেপিকে আগে থেকেই পাল্টা নিশানা করেছে কংগ্রেস। গুজরাতে প্রদেশ কংগ্রেসের ট্যুইটার থেকে বলা হয়েছে, "বিজেপির একনায়কতন্ত্রের সামনে মাথা নত আমরা করব না।" আদালতে মামলা ওঠার পরে ২০২১ সালে অক্টোবরে রাহুল গান্ধি নিজের বক্তব্য আদালতকে জানিয়েছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে ধারা ৪৯৯ এবং ধারা ৫০০ (মানহানি) মামলা আনা হয়েছিল।

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: Rahul Gandhi