CAA নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় দেশের প্রায় সর্বত্র, অস্বস্তি বাড়ছে মোদি সরকারের

CAA নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় দেশের প্রায় সর্বত্র, অস্বস্তি বাড়ছে মোদি সরকারের

কেউ ঘোষণা করেছে, এনআরসি বা নাগরিকত্ব আইন কোনওটাই কার্যকর হবে না। কারোর আবার আপত্তি এনআরসি নিয়ে। সংসদে ভোটাভুটিতে বিলের পক্ষে ভোট দিয়েও এখন অন্য সুর কয়েকটি রাজনৈতিক দলের।

  • Share this:

#কলকাতা: পশ্চিমবঙ্গ, কেরল, পঞ্জাব, রাজস্থান, ছত্তীশগঢ়, মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ -- বেঁকে বসছে একের পর এক রাজ্য। কেউ ঘোষণা করেছে, এনআরসি বা নাগরিকত্ব আইন কোনওটাই কার্যকর হবে না। কারোর আবার আপত্তি এনআরসি নিয়ে। সংসদে ভোটাভুটিতে বিলের পক্ষে ভোট দিয়েও এখন অন্য সুর কয়েকটি রাজনৈতিক দলের।

নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে দেশজোড়া বিক্ষোভ। কয়েকদিন পর বিক্ষোভের রেশ যদি কমেও যায়, তা হলেও নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি কার্যকর করা যাবে তো? এই সংশয় থাকছে, কারণ নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে বেঁকে বসছে একের পর এক রাজ্য। অ-বিজেপি রাজ্যগুলোর বড় অংশই ঘোষণা করেছে, তারা নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি কার্যকর করবে না।

রাজ্যে নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি কার্যকর হবে না প্রথম ঘোষণা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্য রাজ্যগুলোও পশ্চিমবঙ্গের পথেই হেঁটেছে ৷ পশ্চিমবঙ্গ, ছত্তীশগঢ়, মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, পঞ্জাব, দিল্লি ও কেরলের মুখ্যমন্ত্রীরা নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি কার্যকর হবে না বলে ঘোষণা করেছেন ৷ ওড়িশায় বিজেডি সরকার নাগরিকত্ব আইন মানলেও এনআরসি কার্যকরে নারাজ ৷ একই অবস্থান অন্ধ্রপ্রদেশের ওয়াইএসআর কংগ্রেসের ৷ বিহারে এনআরসি হবে না বলে জানিয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারও ৷ মহারাষ্ট্রেও নতুন আইন নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে ৷

বিহারে এনডিএ-র শরিকদল জেডিইউয়ের থেকেই ধাক্কা। নাগরিকত্ব বিল নিয়ে ভোটাভুটিতে বিলের পক্ষে ভোট দিয়েও বেঁকে বসেছে কয়েকটি দল।

নাগরিকত্ব আইনে শ্রীলঙ্কার তামিলদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়নি। তার পরেও বিলের পক্ষে কেন ভোট দিল এআইএডিএমকে? ব্যাখ্যা দিতে শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলন ডেকেও তা বাতিল করা হয়। ১১টি রাজ্য এনআরসি বিরোধিতায় অনড়। সাতটি রাজ্য এনআরসির পাশাপাশি নাগরিকত্ব আইন কার্যকরে নারাজ। নাগরিকত্ব আইন নিয়ে বল এখন সুপ্রিম কোর্টে। তারই মধ্যে রাজ্যগুলোর অবস্থানে অস্বস্তি বাড়ছে মোদি সরকারের।

First published: 07:12:37 PM Dec 21, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर