corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোনভদ্রে যেতে অনড় প্রিয়াঙ্কা, এখনও ‘বন্দি’ চুনার দুর্গের গেস্ট হাউসে

সোনভদ্রে যেতে অনড় প্রিয়াঙ্কা, এখনও ‘বন্দি’ চুনার দুর্গের গেস্ট হাউসে
  • Share this:

#মির্জাপুর:  সোনভদ্রে যেতে অনড় প্রিয়াঙ্কা, এখনও ‘বন্দি’ চুনার দুর্গের গেস্ট হাউসে ৷ প্রিয়াঙ্কা গান্ধিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ শুক্রবার থেকেই তিনি গেস্ট হাউসে রয়েছেন ৷ গেস্ট হাউসের আলো, জল বন্ধ ৷ রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে সরব প্রিয়াঙ্কা ৷ উত্তর প্রদেশের আইনশৃঙ্খলা নিয়েই প্রশ্ন তুললেন তিনি ৷

সোনভদ্রে জমি দখল নিয়ে সংঘর্ষে নিহতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছিলেন। তার আগেই মির্জাপুরের কাছে আটক করা হল প্রিয়াঙ্কা গান্ধিকে। বাধা পেয়ে দলীয় কর্মীদের নিয়ে রাস্তায় বসে পড়েন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক। লোকসভা ভোটের পর এই প্রথম সোনভদ্রে জমি সংঘর্ষ ঘিরে প্রবলভাবে মাঠে নামল কংগ্রেস। শনিবার সোনভদ্রে যাচ্ছে তৃণমূলের প্রতিনিধিদল।

সভাপতি বিতর্ক, গোষ্ঠীকোন্দল সরিয়ে গা-ঝাড়া দেওয়ার চেষ্টা করছে কংগ্রেস। জমি আন্দোলনকে হাতিয়ার করে গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে টক্কর নেওয়ার কৌশল।

উত্তরপ্রদেশে সোনভদ্রে জমির অধিকার ঘিরে সংঘর্ষ। গত বুধবার সংঘর্ষে ১০ জনের মৃত্যু হয়। বৃহস্পতিবার কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার চেষ্টা করেও পারেননি।পুলিশ তাদের ঢুকতেই দেয়নি। শুক্রবার সোনভদ্রে ঢোকার বেশ কিছুটা আগেই আটকানো হয় প্রিয়ঙ্কা গান্ধিকে।

ঢুকতে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে রাস্তায় বসে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন প্রিয়ঙ্কা সহ কংগ্রেস কর্মীরা। এর কিছুক্ষণ পরেই প্রিয়াঙ্কাকে আটক করে একটি গেস্ট হাউসে নিয়ে যায় পুলিশ।

আমায় কেন আটকানো হচ্ছে ? কোন আইনে আটকানো হচ্ছে? অসহায় মানুষগুলোর পাশে থাকতে চাই। আমাকে এত ভয় কেন? প্রিয়াঙ্কাকে আটক করায় যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসনকে নিশানা করেন রাহুল গান্ধি। টুইটে তাঁর বক্তব্য, আদিবাসী পরিবারের ১০ জন নিহত হয়েছেন। নিজেদের জমি ছাড়তে না চাওয়ায় তাঁদের গুলি করে মারা হয়। সেই পরিবারগুলির সঙ্গে দেখা করতে বাধা দেওয়া হল। অবৈধভাবে ক্ষমতা দেখাল সরকার। উত্তরপ্রদেশে নিয়ে বিজেপি বড় বেশি উদ্বিগ্ন ৷

সোনভদ্রে আদিবাসীদের ওপর গুলি ও প্রিয়ঙ্কাকে যেতে বাধা -- এই দুই ঘটনাকে হাতিয়ার করে দেশজুড়ে আন্দোলনে নামার পথে কংগ্রেস।কংগ্রেস সূত্রে খবর, প্রিয়াঙ্কা খুব তাড়াতাড়ি আবার সোনভদ্রে যাবেন। প্রয়োজনে জমি সংঘর্ষে নিহতদের হয়ে মামলাও করবেন। ট্যুইটেও নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক।

উত্তরপ্রদেশ সরকারের দায়িত্ব অপরাধীদের ধরা। আমার দায়িত্ব অসহায় পরিবারগুলোর পাশে থাকা। আমাকে কেউ দায়িত্ব পালনে আটকানো যাবে না। উত্তরপ্রদেশ সরকার আমাকে নিয়ে না ভেবে বরং অপরাধীদের গ্রেফতার করুক।

সোনভদ্রে আদিবাসীরদের ওপর গুলির প্রতিবাদে কংগ্রেসের পাশে দাঁড়াচ্ছে তৃণমূল। আজ, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সোনভদ্রে যাচ্ছে ডেরেক ও’ব্রায়েনের নেতৃত্বে তৃণমূলের প্রতিনিধি দল।

First published: July 20, 2019, 11:51 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर