corona virus btn
corona virus btn
Loading

দিল্লিতে করোনা নিয়ে মন্ত্রী আমলাদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক নরেন্দ্র মোদির

দিল্লিতে করোনা নিয়ে মন্ত্রী আমলাদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক নরেন্দ্র মোদির

সেখানে বর্তমান পরিস্থিতি ও সরকার কী কী পদক্ষেপ করেছে সেই বিষয়ে বিস্তারিত বলা হয়

  • Share this:

#নয়া দিল্লি: দেশে করোনা ভাইরাস নিয়ে কী পরিস্থিতি রয়েছে আর এখনও পর্যন্ত কী পদক্ষেপ করেছেন তাঁর মন্ত্রিসভার সদস্যরা, তা বিচার করে দেখতে শনিবার সকাল ১১.৩০ মিনিটে বিশেষ বৈঠকে বসলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ বৈঠকে ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের মন্ত্রী হর্ষবর্ধন, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে. রাজীব গৌবা, ক্যাবিনেট সেক্রেটারি, ড. বিনোদ কুমার পাল, নীতি আয়োগের সদস্য, চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত ও স্বাস্থ্য, অসামরিক বিমান পরিবহন বিদেশমন্ত্রক, স্বাস্থ্য গবেষণা, স্বরাষ্ট্র, জাহাজ, এনডিএমএ-এর উচ্চপদস্থ আধিকারিক ও অন্যান্যরা৷

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের সচিব গোটা পরিস্থিতি নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন দেন৷ সেখানে বর্তমান পরিস্থিতি ও সরকার কী কী পদক্ষেপ করেছে সেই বিষয়ে বিস্তারিত বলা হয়৷ অন্য মন্ত্রকের সচিবরাও সেই বিষয়ে আলোকপাত করেন৷ প্রেজেন্টেশনে মূলত দেশে প্রবেশের এলাকাগুলিতে নজরদারি এছাড়া বিভিন্ন গোষ্ঠীর ওপর নজরদারির বিষয়, ল্যাব সাপোর্ট, হাসপাতালের ব্যবস্থা, সরঞ্জামের যোগান ও ঝুঁকির পরিমাণ নিয়ে আলোচনা করা হয়৷

ওষুধ বিষয়ক দফতরের সচিব জানান, দেশে ওষুদের যথেষ্ট জোগান রয়েছে কি না, সরঞ্জাম যথেষ্ট আছে কি না এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি বিষয়৷ এছাড়াও বিমানবন্দর, জাহাজ বন্দর, সীমান্তে নজরদারি চালানোর মতো বিষয়গুলি নিয়েও কথা হয় এই আলোচনায়৷ স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষবর্ধন রাজ্যগুলির সঙ্গে যথেষ্ট যোগাযোগের মাধ্যমে কাজ করার বিষয়টিতেও গুরুত্ব প্রদান করেন৷ হাসপাতালে অসুস্থদের জন্য যথেষ্ট স্থান রয়েছে কি না, সেই নিয়েও আলোচনায় জোর দেন নীতি আয়োগের সদস্যরা৷ এছাড়া, এদিন বৈঠকে ইরান থেকে ভারতীরদের ফেরানোর বিষয়টি নিয়েও আলোচনা করা হয়৷

প্রধানমন্ত্রী সমস্ত আলোচনার পর জানান, উদ্ভুত পরিস্থিতে ভারতকে সবরকম অবস্থার সঙ্গে মোকাবিলা করার জন্য নিজেকে তৈরি রাখতে হবে৷ সমস্ত দফতরকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে৷ সমস্ত জনগোষ্ঠীর মধ্যে সচেতনতা তৈরি করতে হবে যাতে রোগটি সম্পর্কে সঠিক ধারণা মানুষের মধ্যে তৈরি হয় এবং আগে থেকে রোগ প্রতিরোধের সমস্ত ব্যবস্থা করা যায়৷ তিনি সমস্ত দপ্তরের আধিকারিকদের নির্দেশ দেন, COVID-19 প্রতিরোধের জন্য কী কী করা যায়, সে বিষয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তথ্য জোগাড় করতে এবং সাধারণ মানুষের মধ্যে সেই তথ্যের নির্যাস পৌঁছে দিতে৷ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মতো সাধারণ মানুষ যাতে বড় জমায়েত এড়িয়ে যান এবং করোনা থেকে বাঁচতে কী কী করা উচিত সে বিষয়ে সতর্ক থাকেন, সেটিও সরকারকেই বুঝতে হবে, একথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী৷ যাঁরা আক্রান্ত তাঁদের জন্য উপযুক্ত এলাকা খোঁজা এবং যাঁরা যাঁদের শারীরিক অবস্থা বেশি খারাপ, তাঁদের যথেষ্ট চিকিৎসা পৌঁছে দেওয়ার কথাও বলেন তিনি৷ এছাড়া দ্রুত পরীক্ষা ও ইরানে আটকে পড়া ভারতীয়দের দ্রুত ফেরানোর বিষয়ে তিনি কথা বলেন৷ তবে বিশেষ করে তিনি মনে করিয়ে দেন যে, সংক্রামক রোগের আক্রমণ কমাতে যথেষ্ট পরিকল্পনা ও সময়মতো চিকিৎসার ব্যবস্থা যেন সবসময় তৈরি থাকে৷

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: March 7, 2020, 9:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर