corona virus btn
corona virus btn
Loading

'ত্যাগ, সংকল্পের প্রতীক হবে রাম মন্দির', স্বাধীনতা দিবসের সঙ্গে তুলনা করলেন মোদি

'ত্যাগ, সংকল্পের প্রতীক হবে রাম মন্দির', স্বাধীনতা দিবসের সঙ্গে তুলনা করলেন মোদি
রাম মন্দিরের ভূমি পুজোর পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷PHOTO- ANI

এ দিন নিজের হাতে রুপোর ইট বসিয়ে রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী৷

  • Share this:

#অযোধ্যা: রাম মন্দিরের ভূমি পুজো সেরে এই দিনটিকে স্বাধীনতা দিবসের সঙ্গে তুলনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ প্রধানমন্ত্রী এই দিনটিকে 'সোনালি দিন' বলে অভিহিত করেন৷ প্রধানমন্ত্রীর কথায়, আজ থেকেই রাম জন্মভূমি স্বাধীনতা পেল৷ তিনি বলেন, রাম মন্দিরের জন্য যে লক্ষ লক্ষ ভক্ত বছরের পর বছর নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছেন, এই দিনটি তাঁদের সেই আত্মত্যাগের প্রতীক৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, 'স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় কয়েকটি প্রজন্ম নিজেদের সবকিছু সমর্পণ করে দিয়েছিল৷ পরাধীনতার সময় এমন কোনও সময় ছিল না যখন স্বাধীনতা আন্দোলন চলেনি৷ দেশের কোনও প্রান্ত ছিল না, যেখানে স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য কেউ আত্মত্যাগ করেনি৷ ১৫ অগাস্টের দিনটি সেই লক্ষ লক্ষ বলিদানের প্রতীক৷ স্বাধীনতা পাওয়ার জন্য মরিয়া চেষ্টা, ইচ্ছার প্রতীক৷ ঠিক একই ভাবে কয়েক যুগ ধরে, কয়েক প্রজন্ম রাম মন্দিরের জন্য অবিরাম চেষ্টা করে গিয়েছেন৷ সেই ত্যাগ, বলিদান, সংকল্পেরই প্রতীক আজকের দিনটি৷' এই ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী থাকতে পেরে তিনি নিজেকে ভাগ্যবান বলে মনে করছেন বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী৷

এ দিন নিজের হাতে রুপোর ইট বসিয়ে রাম মন্দিরের ভূমি পুজোয় অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী৷ এর পর ভাষণ দিতে উঠেই তিনি বলেন, শুধু অযোধ্যা নয়, আজ গোটা বিশ্বে রাম নামের প্রতিধ্বনি শোনা যাচ্ছে৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুগের পর যুগ ধরে মন্দির তৈরি এবং তা ভেঙে ফেলার যে ধারা চলছিল, তাতে আজ ইতি পড়ল৷ নরেন্দ্র মোদি বলেন, 'রামলালাকে এখানে একটি তাঁবুর মধ্যে রাখতে হচ্ছিল৷ এতদিনে তাঁর জন্য সুবিশাল মন্দির তৈরি করা সম্ভব হবে৷' প্রধানমন্ত্রীর কথায়, এই দিনটি ইতিহাসের সূচনা নয়, বরং পুনরাবৃত্তি৷

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রাম মন্দির তৈরির কাজ সম্পূর্ণ হলে গোটা অযোধ্যার অর্থনীতি বদলে যাবে৷ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ রাম মন্দির দেখতে আসবেন৷ রামমন্দির ভারতের ঐতিহ্যের আধুনিক প্রতীক হয়ে উঠবে বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, রাম মন্দির তৈরির প্রক্রিয়া আসলে গোটা দেশকে জোড়ার উদ্যোগ হয়ে দাঁড়াবে৷ ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে এই মন্দির অনুপ্রেরণা হয়ে উঠবে বলেও দাবি করেন তিনি৷ মোদির কথায়, রাম মন্দির কোটি কোটি মানুষের ইচ্ছের ফসল৷

এ দিন অবশ্য মোদির মুখে শ্রীরামের সুশাসনের কথা উঠে এসেছে৷ প্রধানমন্ত্রী মনে করিয়ে দেন, সামাজিক সম্প্রীতিই ছিল রাম রাজত্বের সবথেকে বড় বিশেষত্ব৷ শ্রীরামের বার্তা যাতে গোটা বিশ্বের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়, তা নিশ্চিত করতে হবে বলেও মনে করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, 'আজও রাম আমাদের সবার হৃদয়ে রয়েছেন৷ আমি বিশ্বাস করি, অযোধ্যায় যে রাজকীয় মন্দির তৈরি হবে, তা গোটা বিশ্বের সামনে আমাদের ঐতিহ্যকে বিশ্বের সামনে তুলে ধরবে৷ অনন্তকাল ধরে তা মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে৷'

Published by: Debamoy Ghosh
First published: August 5, 2020, 4:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर