• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • PREGNANT WOMAN WAS CARRIED ON A MAKESHIFT STRETCHER FOR 8 KM BY HER RELATIVES TO A HOSPITAL RC

MP Pregnant Woman: গাড়ির অযোগ্য পথ, বাঁশে বেঁধে হাসপাতালের পথে অন্তঃসত্ত্বা! মধ্যপ্রদেশে করুণ ছবি

মধ্যপ্রদেশে করুণ ছবি

এমনই ভয়াবহ পরিস্থিতির শিকার হয়ে এক ২০ বছরের অন্তঃসত্ত্বাকে (MP Pregnant Woman) বাঁশে কাপড় বেঁধে ঝুলিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল।

  • Share this:

    #বারওয়ানি: মধ্যপ্রদেশের বারওয়ানি জেলার বিস্তীর্ণ গ্রামাঞ্চলে কোনও রাস্তা নেই। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে, কেউ অসুস্থ হলে বা হাসপাতালে যাওয়ার প্রয়োজন পড়লে সেই রাস্তায় কোনও গাড়ি ঢুকতে পারে না। এমনই ভয়াবহ পরিস্থিতির শিকার হয়ে এক ২০ বছরের অন্তঃসত্ত্বাকে (MP Pregnant Woman) বাঁশে কাপড় বেঁধে ঝুলিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হল। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া সেই দৃশ্য দেখে চমকে উঠছেন নেটপাড়ার বাসিন্দারা। জানা গিয়েছে, ওই ভাবে বেঁধে যুবতীর আত্মীয়েরা প্রায় ৮ কিলোমিটার হেঁটে হাসপাতালে নিয়ে যান তাঁকে।

    সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিও দেখে প্রথমে অনেকেই বুঝতে পারেননি, ওই ভাবে কাপড় বাঁশে বেঁেধ কী নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পরে জানা যায়, ওই কাপড়ের ভিতর শুয়ে রয়েছেন প্রসববেদনা ওঠা এক যুবতী। তাঁর পরিবারের সদস্যরা কোনও উপায় না পেয়ে ওই ভাবেই তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছেন। রানিকজলের খামঘাট গ্রাম থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার এভাবে ঝুলিয়ে, পায়ে হেঁটে যুবতীকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেই সময় প্রসব যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন ওই মহিলা।

    খামঘাট থেকে রানিকজলের সরকারি হাসপাতাল পৌঁছতে প্রায় ৮ কিলোমিটার রাস্তা পেরোতে হয়। তবে সেই রাস্তার এমনই পরিস্থিতি যে, কোনও গাড়ি সেখানে ঢুকতে পারে না। সেখান থেকে আরও দূরে প্রায় ২০ কিলোমিটার পর পানসেমাল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় যুবতীকে। ৮ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে সেই রাস্তা পর্যন্ত পৌঁছে তার পর অ্যাম্বুল্যান্সে শোওয়ানো হয় অন্তঃসত্ত্বাকে।

    গ্রামবাসীদের দাবি, দীর্ঘদিন ধরেই গ্রাম থেকে রানিকজল যাওয়ার জন্য রাস্তা নির্মাণের দাবি তোলা হয়েছে। কিন্তু প্রশাসন কোনও দিনই এই কাজে নজর দেয়নি। গ্রামে কোনও গাড়ি ঢুকতে না পারায় সাধারণ মানুষের অসুবিধের শেষ নেই। বিশেষ করে কেউ অসুস্থ হলে খুবই সমস্যায় পড়েন গ্রামবাসীরা। হাসপাতালের বিএমও জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যকর্মীরা মহিলার পরিবারের লোকেদের অনুপ্রেরিত করেছিলেন। তা নাহলে যুবতী ও শিশু কাউকেই বাঁচানো যেত না। জেলা পঞ্চায়েতের অফিসার ভাইরাল ভিডিও দেখে দায়িত্বপ্রাপ্ত দফতরকে এই ঘটনা জানাবেন ও দৃষ্টি আকর্ষণ করবেন বলে জানিয়েছেন।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: