দেওরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে নারাজ, পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বাকে গুলি করে খুন রাজস্থানে

দেওরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে নারাজ, পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বাকে গুলি করে খুন রাজস্থানে

প্রতীকী চিত্র ।

নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যেত যখন পল্লবী তাঁর দেওরের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে অস্বীকার করতেন । এরমধ্যেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন পল্লবী । কিন্তু তাতেও নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই মেলেনি ।

  • Share this:

    #জয়পুর: দেওরের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে রাজি হননি বৌদি, আর সে কারণেই জীবন দিয়ে তার দাম চোকাতে হল পাঁচ মাসের গর্ভবতী এক মহিলাকে । গত রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে রাজস্থানের শ্রী গঙ্গানগর জেলায় । সকাল ৯টা ৪০ মিনিট নাগাদ প্রচণ্ড জোরে গুলির আওয়াজ শোনেন স্থানীয়রা । কিন্তু ঘটনাস্থলে সকলে এসে পৌঁছানোর আগেই পালিয়ে যায় অভিযুক্ত যুবক ।

    পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত পল্লবী ছাবড়া নামের ওই মহিলার বিয়ে হয়েছিল গত বছরের মে মাসে । শ্রী গঙ্গানগরের রবিদাস নগর এলাকার আনসুল ছাবড়ার সঙ্গে বিয়ে হয় তাঁর । পাঁচ মাসের গর্ভাবস্থা চলছিল তাঁর । পল্লবীর পরিবার রবিবার বেলা ১১টা নাগাদ পুলিশের কাছে একটি মামলা দায়ের করে । পল্লবীর বাবা হেমরাজ মিদ্দা পুলিশকে জানান, মেয়ের শ্বশুরমশাই তাঁর বিয়ের পরপরই মারা গিয়েছিলেন । এরপর থেকেই শাশুড়ি-সহ পরিবারের অন্যরা পল্লবীকে দোষারোপ করতে শুরু করে । মেয়ের শাশুড়ি বারংবার তাঁর মেয়েকে জোর করত দেওরের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করার জন্য । বিয়ের পর থেকেই এই অত্যাচার শুরু হয় । অতিরিক্ত পণের দাবি তুলতে থাকে তারা । শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছে যায় । নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়ে যেত যখন পল্লবী তাঁর দেওরের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে অস্বীকার করতেন । এরমধ্যেই অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন পল্লবী । কিন্তু তাতেও নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই মেলেনি ।

    পল্লবীর বাবা জানান, শনিবার রাতেও মেয়ের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছিল । পল্লবী জানিয়েছিল, শ্বশুরবাড়ির প্রত্যেকে তাঁকে ওই বাড়িতে বন্দী করে রেখেছে । পরের দিন সকালেই পল্লবীর মৃত্যুর খবর আসে ।

    পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুর করেছে । মৃতার স্বামীও শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ । যদিও অভিযুক্ত এখনও পলাতক । মৃতদেহ স্থানীয় হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে ।

    Published by:Simli Raha
    First published:

    লেটেস্ট খবর