Home /News /national /

প্রাতঃকৃত্য সারতে গিয়ে মাঠেই প্রসব, সদ্যোজাতকে নিয়ে পালাল বন্য জন্তু

প্রাতঃকৃত্য সারতে গিয়ে মাঠেই প্রসব, সদ্যোজাতকে নিয়ে পালাল বন্য জন্তু

representative image

representative image

বাড়িতে শৌচালয় নেই, ভোরবেলা প্রাতঃকৃত্য সারতে মাঠে গিয়েছিলেন অন্তঃসত্বা মহিলা! সেই সময়ই তিনি সন্তান প্রসব করেন, কিন্তু সদ্যোজাতকে নিয়ে পালায় কোনও বন্যজন্তু! এমনই আশঙ্কা করছে উত্তরপ্রদেশের যোধাপুরা গ্রামের চাচিলা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা শিল্পী চৌহান ও তাঁর পরিবার

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    #আগ্রা: বাড়িতে শৌচালয় নেই, ভোরবেলা প্রাতঃকৃত্য সারতে মাঠে গিয়েছিলেন অন্তঃসত্বা মহিলা! সেই সময়ই তিনি সন্তান প্রসব করেন, কিন্তু সদ্যোজাতকে নিয়ে পালায় কোনও বন্যজন্তু! এমনই আশঙ্কা করছেন উত্তরপ্রদেশের যোধাপুরা গ্রামের চাচিলা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা শিল্পী চৌহান ও তাঁর পরিবার।

    ২৬ বছরের শিল্পী জানান, ভোরবেলা প্রাতকৃত্য সারতে রোজকার মতোই মাঠে যান, তখনই সন্তান প্রসব করে ফেলেন। প্রবল যন্ত্রণা ও আতঙ্কে সেখানেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। শিল্পী ফিরছে না দেখে বাড়ির লোকেরা তাঁর খোঁজে বের হন। অচৈতন্য অবস্থায় শিল্পীর খোঁজ মেলে। প্রায় ২ ঘণ্টা বাদে জ্ঞান ফিরতে শিল্পী দেখেন, আশপাশে কোথাও সন্তান নেই। আশঙ্কা , কোনও বন্য জন্তু টেনে নিয়ে গিয়েছে সদ্যোজাতকে।

    শিল্পীর স্বামী সুনীল চৌহানের অভিযোগ, ' সরকারি সাহায্যে গ্রামের অন্যান্য বাড়িতে শৌচালয় আছে। আমি যখন সরকারি সাহায্যের জন্য গ্রামের প্রধান গজেন্দ্র সিংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করি, তিনি সাহায্য করতে রাজি হননি কারণ আমার আধার কার্ডে রঘুনাথপুরার ঠিকানা রয়েছে। আমার পূর্বপুরুষের জমি ও ঠিকানার প্রমাণপত্র দেখানোর পর তিনি মানেন আমি যোধপুরা গ্রামেরই বাসিন্দা।''

    এলাকার সাব ডিভিশনাল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল বসিত বলেন, '' যোধপুরা গ্রামে ১২ পরিবারের বাস। ১১ টি পরিবারে শৌচালয় আছে, শুধু শিল্পীদের বাড়ি ছাড়া। জানা যায়, তিন বছর আগে রঘুনাথপুরা থেকে স্ত্রী ও ৩ বছরের সন্তানকে নিয়ে যোধপুরা গ্রামে ফিরেছেন সুনীল। যেহেতু তাঁর আধার কার্ডে রঘুনাথপুরারই ঠিকানা রয়েছে, যোধপুরা গ্রামে পূর্বপুরুষের জমিতে শৌচালয় তৈরির সরকারি সাহায্য বৈধ নয়। স্বচ্ছ ভারত মিশনে শৌচালয় তৈরির জন্য সরকারি সাহায্য পেতে তাঁকে আধার কার্ডের ঠিকানা বদলাতে হবে।''

    Published by:Rukmini Mazumder
    First published:

    পরবর্তী খবর