Home /News /national /

মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ! মোটরবাইকের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে চাকায় পিষ্ট গর্ভবতী মহিলা

মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ! মোটরবাইকের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে চাকায় পিষ্ট গর্ভবতী মহিলা

Representational Image

Representational Image

এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কেতুগ্রাম - কান্দি রাজ্য সড়কের বন্দর গ্রামের কাছে।

  • Share this:

    Image used for representational purpose

    #কেতুগ্রাম: মোটরবাইকের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল এক গর্ভবতী মহিলার। মহিলার মৃত্যুর আগেই রাস্তায় প্রসব হল সন্তান। ট্রাকের চাকার চাপে সন্তান ভূমিষ্ট হয় বলে দাবি স্বামীর। মহিলার দেহ থেকে প্রায় ২০ ফুট দূরত্বে সদ্যোজাত শিশুকন্যা গিয়ে পড়েছিল। এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কেতুগ্রাম - কান্দি রাজ্য সড়কের বন্দর গ্রামের কাছে।

    তড়িঘড়ি সদ্যোজাত শিশুকন্যাকে কাটোয়া হাসপাতালে ভর্তি করলেও চিকিৎসকরা বহু চেষ্টার পরও বাঁচাতে পারেন নি। মাথায় আঘাত পেয়ে শিশুকন্যার মৃত্যু হয়েছে বলে হাসপাতাল সুপার রতন শাসমল জানান।

    ন' মাসের গর্ভবতী স্ত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে তাঁকে মোটরবাইকে চাপিয়ে সালার থেকে কাটোয়ায় চিকিৎসকের কাছে যাচ্ছিলেন স্বামী মৃদুল শেখ। সোমবারই ছিল শেষ চেক-আপের দিন। বন্দর গ্রামের কাছে উল্টো দিক থেকে আসা দ্রুত গতির একটি পণ্য বোঝাই ট্রাকের সঙ্গে মৃদুলের বাইকে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে স্ত্রী সাদিয়া বেগম (২৮) ট্রাকের চাকার তলায় পড়ে যান। মৃদুল বেঁচে গেলেও সাদিয়া বেগমের পেটের পাশ দিয়ে চাকা চলে যায়। ঘটনাস্থলেই সাদিয়া এক শিশুকন্যা প্রসব করেন। পিচ রাস্তার উপর সদ্যোজাত শিশুকন্যা পড়েছিল। পরে স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্যোগে কেতুগ্রাম পুলিশ সদ্যোজাতকে কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে।

    এক বছর আগে মুর্শিদাবাদের সালারের বাসিন্দা সেখ সাদিয়া বেগমের সঙ্গে কেতুগ্রাম থানার আমগোড়িয়ার বাদিন্দা পেশায় নির্মাণ শিল্পী মৃদুল শেখের বিয়ে হয়। এই ঘটনায় সকলেই হতবাক। মৃদুল  জানান, ‘‘ট্রাকটি ব্রেক কষলে হয়ত আমার স্ত্রী বেঁচে যেত। ট্রাক চালক ঘটনার পর পালাবার চেষ্টা করেছিল।’’ স্থানীয়দের চেষ্টায় চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘাতক ট্রাকটিকে কেতুগ্রাম থানার পুলিশ আটক করে বাজেয়াপ্ত করেছে।

    তথ্য- রণদেব মুখোপাধ্যায়

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published:

    পরবর্তী খবর