corona virus btn
corona virus btn
Loading

দিল্লি হিংসা কাণ্ডে অবশেষে জামিন পেলেন জামিয়ার অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রী সাফুরা জারগার

দিল্লি হিংসা কাণ্ডে অবশেষে জামিন পেলেন জামিয়ার অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রী সাফুরা জারগার
File photo of Jamia student Safoora Zargar

গর্ভবতী একজন মহিলাকে কী করে জেলে এভাবে করোনার সময় আটকে রাখা হয় ? যেখানে গর্ভবতীদের সংক্রমণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি ৷ এই প্রশ্নই ওঠে বিভিন্ন মহলে ৷ সাফুরার জামিনে শেষপর্যন্ত স্বস্তি ফিরেছে ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: জামিন পেলেন দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতী ছাত্রী সাফুরা জারগার ৷ তিনি অন্তঃসত্ত্বা ৷ করোনা আবহে এ ভাবে তাঁকে দীর্ঘদিন ধরে জেলে পুরে রাখাটা যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ ৷ তাই ‘মানবিকতা’-র দিক থেকে বিবেচনা করেই সাফুরার জামিন মঞ্জুর করেছে দিল্লি হাইকোর্ট ৷

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী প্রতিবাদী মুখ হিসেবে সাফুরার নাম বিশেষভাবে চর্চিত ৷ সাফুরার বিরুদ্ধে অভিযোগে বলা হয়েছিল, তিনি বিভিন্ন সভায় টানা বক্তৃতার মাধ্যমে মানুষের মধ্যে ঘৃণা ছড়িয়েছেন ৷ পুলিশের দাবি মতে এই ঘটনাই দিল্লির দাঙ্গাকে তরান্বিত করেছে। সাফুরার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহ, খুন, মারামারিতে উসকানি, খুনের উদ্যোগ এবং বিভিন্ন ধর্মীয় লোকদের মধ্যে শত্রুতা তৈরি করার অভিযোগ আনা হয়।

গ্রেফতার হওয়ার মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগেই জানতে পেরেছিলেন, মা হতে চলেছেন তিনি। স্বভাবতই আনন্দে উচ্ছ্বসিত ছিলেন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিদ্যার ছাত্রী। কিন্তু হঠাৎ একদিন তাঁর বাড়িতে আসেন দিল্লি পুলিশের বিশেষ সন্ত্রাস-দমন শাখার অফিসাররা ৷ সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী প্রতিবাদে তাঁর অংশগ্রহণ নিয়ে কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এই বলে দলটি কার্যত তুলে নিয়ে গিয়েছিল ২৭ বছরের জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ছাত্রী সাফুরা জারগারকে। সেদিনই রাত সাড়ে ১০টা নাগাদ গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।

মামলা হয় বেআইনি কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ আইনে (ইউএপিএ)। সেই থেকে তিহার জেলের ছোট্ট সেলে অন্য বন্দিদের সঙ্গে থাকছেন সাফুরা। সরকারি নির্দেশিকা যেখানে বলছে, গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে সংক্রমণের সম্ভাবনা বেশি, সেখানে নিশ্চিত সংক্রমণের মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে সাফুরাকে!

গর্ভবতী মহিলাকে জেলে আটকে রাখা নিয়ে সোচ্চার হন নেটিজেনরা ৷ ওঠে তীব্র প্রতিবাদ ৷ অনেকে আবার এর বিপরীত কথাও বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ৷ দক্ষিণপন্থী কিছু সংগঠন সাফুরার চরিত্র নিয়েও প্রশ্ন তোলে ৷ শেষপর্যন্ত অবশ্য জেল থেকে ছাড়া পেলেন সাফুরা ৷ গর্ভবতী একজন মহিলাকে কী করে জেলে এভাবে করোনার সময় আটকে রাখা হয় ? যেখানে গর্ভবতীদের সংক্রমণের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি ৷ এই প্রশ্নই ওঠে বিভিন্ন মহলে ৷ সাফুরার জামিনে শেষপর্যন্ত স্বস্তি ফিরেছে ৷

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: June 23, 2020, 3:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर