দুশ্চিন্তায় আত্মঘাতী পরীক্ষার্থী, NEET বন্ধের দাবি জোরাল হল তামিলনাড়ুতে

দুশ্চিন্তায় আত্মঘাতী পরীক্ষার্থী, NEET বন্ধের দাবি জোরাল হল তামিলনাড়ুতে

প্রতীকী ছবি

ভিগ্নেশ নামে ১৯ বছর বয়সি ওই পরীক্ষার্থীর ঝুলন্ত দেহ একটি কুয়োর মধ্যে থেকে উদ্ধার হয়৷ তাঁর বাবার অভিযোগ, ১৩ তারিখের নিট পরীক্ষা নিয়ে প্রচণ্ড মানসিক চাপে ছিল ভিগ্নেশ৷

  • Share this:

    # আরিয়ালুর:তামিলনাড়ুর আরিয়ালুর জেলায় এক পরীক্ষার্থীর মৃত্যু ফের NEET পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে পুরনো বিতর্ক উস্কে দিল৷ মৃত পরীক্ষার্থীর বাবার অভিযোগ, পরীক্ষা নিয়ে দুশ্চিন্তার জেরেই তাঁর ছেলে আত্মঘাতী হয়েছে৷ এই ঘটনার পরই তামিলনাড়ুর একাধিক রাজনৈতিক দল নিট পরীক্ষা বাতিলের দাবি তুলেছে৷

    ভিগ্নেশ নামে ১৯ বছর বয়সি ওই পরীক্ষার্থীর ঝুলন্ত দেহ একটি কুয়োর মধ্যে থেকে উদ্ধার হয়৷ তাঁর বাবার অভিযোগ, ১৩ তারিখের নিট পরীক্ষা নিয়ে প্রচণ্ড মানসিক চাপে ছিল ভিগ্নেশ৷ সেই কারণেই আত্মঘাতী হয়েছে সে৷ যদিও কোনও সুইসাইড নোট পাওয়া যায়নি৷

    ভিগ্নেশের বাবা বিশ্বনাথন জানিয়েছেন, এর আগে দু' বার চেষ্টা করেও নিট পরীক্ষায় ভাল ফল করতে পারেনি ভিগ্নেশ৷ ফলে এবার পরীক্ষার ফল কেমন হবে, তা নিয়ে উদ্বেগে ছিল সে৷ গত বছর কৃষি বিজ্ঞানে সুযোগ পেলেও এবছর ফের একবার নিট-এ বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ভিগ্নেশ৷ ওই ছাত্রের দেহ উদ্ধারের পর থেকেই বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন গ্রামবাসীরা৷ তাঁদের দাবি, নিট পরীক্ষাই বাতিল করা হোক৷

    ওই ছাত্রের আত্মহত্যার ঘটনায় শোকপ্রকাশ করে ডিএমকে প্রধান এম কে স্ট্যালিন বলেন, 'নির্দয় কেন্দ্রীয় সরকার আর কবে নিট পরীক্ষা বন্ধ করবে? আর কতজন পড়ুয়াকে এ ভাবে হারাব আমরা?' একই সঙ্গে ছাত্রছাত্রীদের সাহসিকতার সঙ্গে জীবনের চ্যালেঞ্জগুলি মোকাবিলা করে আত্মহত্যার প্রবণতা ত্যাগ করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি৷

    তামিলনাড়ুর শাসক দল এআইডিএমকে-ও নিট পরীক্ষার বিরোধী৷ কারণ তারা মনে করে এই সর্বভারতীয় এই মেডিক্যাল প্রবেশিকা পরীক্ষা সামাজিক বৈষম্যকেই প্রশয় দেয়৷ কারণ সমাজের পিছিয়ে থাকা শ্রেণি এবং প্রত্যন্ত এলাকার যে ছাত্রছাত্রীদের পক্ষে ব্যয়বহুল প্রশিক্ষণ নেওয়া সম্ভব নয়, তাঁরা এই পরীক্ষার জন্য তৈরি হতে পারেন না৷

    তামিলনাড়ুর আরও একটি রাজনৈতিক দল পিএমকে-র প্রতিষ্ঠাতা এস রামাদসের দাবি, ওই পড়ুয়া যথেষ্ট পরিশ্রমী এবং মেধাবী ছিল৷ গত বছর নিট পরীক্ষায় সে ৩৭০ নম্বর পেয়ে একটি বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে সুযোগও পেয়েছিল৷ কিন্তু তার পরিবারের পক্ষে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজে পড়ানোর বিপুল খরচ চালানো সম্ভব ছিল না৷ রামাদস বলেন, 'কেন্দ্রীয় সরকার দাবি করছে মেডিক্যাল শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং বাণিজ্যিকিকরণ রুখতেই নাকি নিট পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে৷ তাই যদি হয়, তাহলে ভিগ্নেশের থেকেও কম নম্বর পেয়ে কীভাবে বহু পড়ুয়া অর্থের জোরে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলিতে ভর্তি হচ্ছে?' তাঁর দাবি, দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় পাওয়া নম্বরের ভিত্তিতে ভর্তি নেওয়া হলে সরকারি মেডিক্যাল কলেজেই সুযোগ পেয়ে যেত ভিগ্নেশ৷

    তামিলনাড়ুর ক্ষমতাসীন এআইডিএমকে জোট সরকারে বিজেপি-র সঙ্গে পিএমকে-ও রয়েছে৷ ফলে নিট নিয়ে তাদের এই অবস্থান বিজেপি-র কাছেও অস্বস্তির৷ পিএমকে-র অভিযোগ, বেসরকারি কোচিং সেন্টারগুলির লাভের কথা মাথায় রেখেই নিট চালিয়ে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার৷ পাকাপাকি ভাবে নিট পরীক্ষা তুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে পিএমকে৷

    এ বছর করোনা অতিমারির কারণে বহু ছাত্রছাত্রীই নিট পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন৷ কারণ তাঁদের দাবি ছিল করোনা অতিমারির কারণে তাঁরা পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য ঠিকমতো কোচিং ক্লাসও করতে পারেননি৷ তামিলনাড়ুর আরিয়ালুর জেলায় বিগত বেশ কিছু দিন ধরে নিট পরীক্ষা পিছনোর দাবিতে বিক্ষোভ চলছিলই৷ ২০১৭ সালে এই জেলারই এক ছাত্রী নিট পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়ে আত্মঘাতী হয়েছিল৷ অনিথা নামে ওই ছাত্রীও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় ভাল ফল করে ডাক্তারি পড়তে চেয়েছিল৷ কিন্তু নিট পরীক্ষা তাঁর স্বপ্নভঙ্গ করে৷ এর পর সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেও কোনও লাভ হয়নি৷ শেষ পর্যন্ত ভিগ্নেশের মতোই আত্মঘাতী হয়েছিল ওই ছাত্রী৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: