• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী

আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী

আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী

আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী

শেষবার ১৯৬৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে যোগ দিয়েছিলেন লালবাহাদুর শাস্ত্রী। তারপর গত সাড়ে পাঁচ দশকের মধ্যে আর কোনও প্রধানমন্ত্রীকে এখানকার অনুষ্ঠানে পাওয়া যায়নি৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: শতবর্ষে পদার্পণ করেছে দেশের আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়। কেউ খোলা মনে স্বাগত জানাচ্ছেন, তো কেউ প্রশ্ন তুলছেন 'পাবলিসিটি স্টান্ট' বলে। কারোর মত, আগে হাজার কোটি টাকার অনুদান আসুক, তারপর বোঝা যাবে সত্যি এই বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কতটা ভাবিত। কেউ চাইছেন মাইনরিটি স্ট্যাটাস।

    আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় দেশকে দিয়েছে খান আবদুল গফফর খান, আসফাকউল্লা খানের মত রত্ন। আবার এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নামেই জঙ্গি কার্যকলাপের অভিযোগ ওঠে। নতুন ভোরের স্বপ্ন নিয়ে বিশেষ অতিথি হওয়ার আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী মোদি।

    শেষবার ১৯৬৪ সালে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে যোগ দিয়েছিলেন লালবাহাদুর শাস্ত্রী। তারপর গত সাড়ে পাঁচ দশকের মধ্যে আর কোনও প্রধানমন্ত্রী আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনও অনুষ্ঠানে যোগ দেননি।

    দীর্ঘ অপেক্ষার এবার অবসান হতে চলেছে। মোদি আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষের অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন। ২২ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবার আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখবেন নরেন্দ্র মোদি।

    প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এই প্রথমবার আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনও অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন মোদি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তারিক মনসুর জানিয়েছেন, শতবর্ষের এই অনুষ্ঠান আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য মাইলফলক হয়ে থাকবে। আমন্ত্রণ গ্রহণ করার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷  তিনি বলেছেন, এই ঐতিহাসিক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতি তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসর বাড়াতে সাহায্য করবে বলে মনে করছেন অনেকে।

    প্রধানমন্ত্রীর পাশাপাশি শিক্ষামন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল নিশাঙ্কও এই অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। আগে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোভিন্দের এই শতবর্ষের অনুষ্ঠানের সূচনা করার কথা ছিল। কিন্তু শেষপর্যন্ত নিজের পরিকল্পনা পরিবর্তন করেছেন। আগামী বছর ফেব্রুয়ারিতে আরেকটি অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন রাষ্ট্রপতি। তবে, সব অনুষ্ঠানই হবে ভারচুয়ালি। বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে নরেন্দ্র মোদি সকলের প্রধানমন্ত্রী। এএমইউ বাকিদের থেকে কেন আলাদা হবে! তিনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নতির কথাই ভেবেছেন। মনে করা হচ্ছে মোদি একাধিক অনেক নতুন ঘোষণা করতে পারেন এই  শতবর্ষের অনুষ্ঠানে৷

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: