প্রতিশ্রুতি থাকলেও মেলেনি চাকরি, বাম আমলে সরকারি প্রকল্পে জমি দেওয়া জমিদাতারা অনশনে

প্রতিশ্রুতি থাকলেও মেলেনি চাকরি, বাম আমলে সরকারি প্রকল্পে জমি দেওয়া জমিদাতারা অনশনে

বছরের পর বছর গড়িয়েছে কিন্তু চাকরি মেলেনি। জেলাশাসকের দফতরের সামনে অনির্দিষ্টকালীন অনশনে জলপাইগুড়ির জমিদাতারা। জলপাইগুড়ি জেলাশাসকের দফতর। সামনে অনশন মঞ্চ বেঁধে বসে আছেন ষাটজন। এঁদের মধ্যে চোদ্দজন মহিলা। দাবি একটাই, চাকরি চাই।

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: তিস্তা সেচ খাল বা সার্কিট বেঞ্চ-সহ সরকারি প্রকল্পে জমি দিয়েছিলেন অনেকেই। বিনিময়ে জুটেছিল চাকরির প্রতিশ্রুতি। বছরের পর বছর গড়িয়েছে কিন্তু চাকরি মেলেনি। জেলাশাসকের দফতরের সামনে অনির্দিষ্টকালীন অনশনে জলপাইগুড়ির জমিদাতারা। জলপাইগুড়ি জেলাশাসকের দফতর। সামনে অনশন মঞ্চ বেঁধে বসে আছেন ষাটজন। এঁদের মধ্যে চোদ্দজন মহিলা। দাবি একটাই, চাকরি চাই।

কিন্তু কীসের চাকরি চাইছেন আন্দোলনকারীরা? যাঁরা অনশন করছেন, তাঁদের পরিবারের কেউ না কেউ জমিদাতা। তিস্তা সেচ খালের জন্য কারওর পরিবার জমি দিয়েছে৷ কারওর পরিবার জমি দিয়েছে সার্কিট বেঞ্চ-সহ সরকারি প্রকল্পে৷ বাম আমলে জমির বিনিময়ে চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল৷ বছরের পর বছর গড়ালেও সরকারি চাকরি জোটেনি৷

শুক্রবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালীন অনশন শুরু হয়েছে। শনিবার ছিল দ্বিতীয় দিন।গরমে কেউ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। অনশনমঞ্চে সাপের কামড়ে অসুস্থ হয়েছেন সামিরুল মহম্মদ নামে একজন। সামিরুল-সহ তিনজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অনশন মঞ্চে যান রাজগঞ্জের বিধায়ক খগেশ্বর রায়। বিধায়কের পা জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন এক মহিলা। অনশন তোলার অনুরোধ জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধিরা বারবার গিয়ে অনশন তোলার আবেদন জানিয়েছেন। তবুও চাকরির দাবিতে অনড় আন্দোলনকারীরা।

First published: 12:53:58 PM Aug 11, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर