দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

তিন দশক ধরে ভারতের বাসিন্দা, পঞ্চায়েত প্রধান হয়ে গেলেন পাকিস্তানি মহিলা!

তিন দশক ধরে ভারতের বাসিন্দা, পঞ্চায়েত প্রধান হয়ে গেলেন পাকিস্তানি মহিলা!
প্রতীকী ছবি৷
  • Share this:

#এটাহ: আদতে পাকিস্তানের বাসিন্দা৷ কিন্তু গত তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে তিনি ভারতে বসবাস করছিলেন৷ ভুয়ো তথ্য দিয়ে তৈরি করে ফেলেছিলেন নিজের রেশন কার্ড, ভোটার কার্ড এবং আধার কার্ডও৷ শুধু তাই নয়, নিজের গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান হিসেবেও নির্বাচিত হয়েছিলেন বানো বেহম নামে ৬৫ বছরের ওই মহিলা৷

সংবাদসংস্থা পিটিআই-এর খবর অনুযায়ী, এমনই ঘটনা ঘটেছে উত্তর প্রদেশের এটাহের জলেশরের গুডাও গ্রামে৷ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ জমা পড়ার পর তদন্ত শুরু হওয়ায় গত ডিসেম্বর মাসে পঞ্চায়েত প্রধানের পদ থেকে ইস্তফা দেন অভিযুক্ত৷ গত বছরের জানুয়ারি মাসেই গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন বানো বেগম৷ কিন্তু তিনি বেআইনি ভাবে গ্রামে বসবাস করছেন, প্রশাসনের কাছে এমন অভিযোগ দায়ের করেন এক গ্রামবাসী৷ তদন্তে নেমে প্রশাসনিক আধিকারিকরা জানতে পারেন, বানো বেগমের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সত্যি৷

জেলাশাসক জানিয়েছেন, প্রায় ৩৫ বছর আগে আশরত আলি নামে এক ভারতীয়কে বিয়ে করেন পাকিস্তানি নাগরিক বানো৷ কিন্তু ভারতীয় নাগরিকত্ব নেননি তিনি৷ ১৯৯৫ সালে অবৈধ ভাবে ভোটার তালিকায় নিজের নাম নথিভুক্ত করেন তিনি৷ তার পরে তৈরি করে নেন রেশন কার্ড৷

এর পর আধার কার্ডও বের করে নেন বানো বেগম৷ ২০১৫ সালে গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য নির্বাচিত হন তিনি৷ তদন্তে দেখা যায়, দীর্ঘমেয়াদী ভিসা থাকলেও বানো বেগমের ভারতীয় নাগরিকত্ব নেই৷ ফলে নিয়ম মতো তিনি ভারতের কোনও নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন না৷

ইতিমধ্যেই বানো বেগমের নাম ভোটার তালিকা থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ যে কাগজপত্রের ভিত্তি তাঁর রেশন কার্ড এবং ভোটার কার্ড তৈরি করা হয়, সেগুলি খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷ প্রায় ছ' মাস গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্বর্তী প্রধান ছিলেন বানো বেগম৷ এখনও পর্যন্ত ওই পাকিস্তানি মহিলার বিরুদ্ধে পুলিশে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি৷ তবে সমস্ত দিক খতিয়ে দেখছে পুলিশ- প্রশাসন৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: January 4, 2021, 8:39 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर