corona virus btn
corona virus btn
Loading

২ মাস খদ্দের নেই, খিদের জ্বালা ! যৌনপল্লী ছেড়ে বাড়ি ফিরছেন ৬০ শতাংশের বেশি যৌনকর্মী

২ মাস খদ্দের নেই, খিদের জ্বালা ! যৌনপল্লী ছেড়ে বাড়ি ফিরছেন ৬০ শতাংশের বেশি যৌনকর্মী
Image for representation. (Reuters)

প্রথম দফার লকডাউন শুরু হওয়া থেকে বন্ধ যৌনপল্লীও! মারণ ভাইরাস করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় 'ও পাড়া'-র ঠিকানা ভুলেছেন খদ্দেররা

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: প্রথম দফার লকডাউন শুরু হওয়া থেকে বন্ধ যৌনপল্লীও! মারণ ভাইরাস করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় 'ও পাড়া'-র ঠিকানা ভুলেছেন খদ্দেররা! তালা পড়েছে 'প্রিয়া, শালিনী বা টুম্পা'-দের ঘরের দরজায়! দেখতে দেখতে ৩ দফার লকডাউন শেষ হয়েছে। প্রায় দীর্ঘ ২ মাস ১ পয়সা রোজগার নেই যৌনকর্মীদের! পেটে খিদে, কারও কারও ঘরে দুধের শিশু... অভাবের তাড়নায় শেষ পর্যন্ত যৌনপল্লী ছেড়ে ঘরে ফিরছেন দিল্লির প্রায় ৬০ শতাংশ যৌনকর্মীরা। All India Network of Sex Workers (AINSW)-এর প্রধান কুসুম জানান, প্রায় ৬০ শতাংশ অর্থাৎ ৩০০০ যৌনকর্মী ইতিমধ্যেই দিল্লি ছেড়ে নিজেদের নিজেদের রাজ্যে পাড়ি দিয়েছে। সরকারি নথী অনুযায়ী, দিল্লিতে নথীভুক্ত যৌনকর্মীর সংখ্যা ৫০০০।

শালিনী গত ৮ বছর দিল্লিতে আছেন, তাঁর ভাষায়, ' উত্তরপ্রদেশে আমার বাড়ি। পরিবার ভীষণ অত্যাচার করত। সেই ১৮ বছর বয়সে বাড়ি থেকে পালিয়ে দিল্লি চলে আসি। পতিতালয় হয় নতুন ঠিকানা... সেই থেকে এখানেই! এই ব্যবসায় আসার পর কখনও খাবারের কথা ভাবতে হয়নি। কিন্তু লকডাউন শুরু হওয়ার পর একটাও খদ্দের পাইনি, জমানো যে-টুকু টাকা ছিল শেষ হয়েছে!'

আরেক যৌনকর্মী রজনি আর তাঁর ৪ বছরের সন্তানের গত দু'মাসে পেট ভরা খাবার জোটেনি। ' দু সপ্তাহ আগে খিদের জ্বালায় আমার সন্তান অজ্ঞান হয়ে যায়। তখনই ঠিক করি বাড়ি ফিরে যাব। উত্তরপ্রদেশে কিছু আত্মীয় আছে, তাঁরা জানেন না আমি এই পেশার সঙ্গে যুক্ত, আপাতত কিছুদিন ওদের কাছেই থাকতে হবে!'

All India Network of Sex Workers (AINSW)-র ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর অমিত কুমার জানান, ''জিবি রোড সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা করছি যৌনকর্মীদের রেশন, ওষুধ, মাস্ক, স্যানিটাইজার পৌঁছে দেওয়ার।''

Published by: Rukmini Mazumder
First published: May 17, 2020, 4:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर