• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • OPPOSITION LEADERS WRITES LETTER TO RAM NATH KOVIND PROTESTING DEATH OF STAN SWAMY DMG

Stan Swamy Death: স্ট্যান স্বামীর মৃত্যুর ঘটনায় হস্তক্ষেপ দাবি, রাষ্ট্রপতিকে চিঠি সোনিয়া- মমতা সহ দশ বিরোধী নেতার

স্ট্যান স্বামী ৷

এই ঘটনায় গোটা দেশে তো বটেই, আন্তর্জাতিক মহলেও তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে৷ স্ট্যান স্বামীর মৃত্যুর (Stan Swamy Death) ঘটনাকে দুঃখজনক বলে কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘের মানবাধিকার শাখাও৷

  • Share this:

    #দিল্লি: জেল হেফাজতে থাকাকালীনই সমাজকর্মী স্ট্যান স্বামীর মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে একযোগে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠি দিলেন সোনিয়া গান্ধি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ দশজন বিরোধী নেতানেত্রী৷ প্রবীণ সমাজকর্মীকে মিথ্যে মামলায় ফাঁসিয়ে জেল বন্দি করে রাখা হয়েছিল বলে চিঠিতে অভিযোগ করেছেন বিরোধী নেতানেত্রীরা৷ স্ট্যান স্বামীকে গ্রেফতার করে জেলবন্দি রেখে হেনস্থা এবং তাঁর প্রতি অমানবিক আচরণের জন্য যাঁরা দায়ী, তাঁদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়ার আর্জিও জানানো হয়েছে চিঠিতে৷

    ভীম কোরেগাঁও মামলায় অভিযুক্ত সমাজকর্মী এবং খ্রিস্টান যাজক স্ট্যান স্বামীর বিরুদ্ধে মাওবাদীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা অভিযোগে ইউএপিএ ধারায় মামলা করেছিল এনআইএ৷ গত বছর অক্টোবর মাসে তাঁকে গ্রেফতার করা হয়৷ জেল হেফাজতে থাকাকালীনই সোমবার মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে স্ট্যান স্বামীর মৃত্যু হয়৷ এই ঘটনায় গোটা দেশে তো বটেই, আন্তর্জাতিক মহলেও তীব্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে৷ স্ট্যান স্বামীর মৃত্যুর ঘটনাকে দুঃখজনক বলে কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘের মানবাধিকার শাখাও৷

    কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধি, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়াও রাষ্ট্রপতিকে দেওয়া চিঠিতে সই করেছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন, তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী এম কে স্ট্যালিন, এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার, জেডিএস নেতা এইচ ডি দেবেগৌঢ়া, ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা, আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব, সিপিআই নেতা ডি রাজা এবং সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি৷

    বিরোধীদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রপতিকে লেখা হয়েছে, 'ঝাড়খণ্ডের প্রত্যন্ত অঞ্চলের আদিবাসীদের অধিকার নিয়ে কাজ করা স্ট্যান স্বামীকে ভীম কোরেগাঁও মামলায় ইউএপিএ-র মতো দমনমূলক আইনে অভিযুক্ত করা হয়েছিল৷ পার্কিনসন্স-এর মতো রোগে আক্রান্ত হওয়া সত্ত্বেও জেলে থাকাকালীন তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়নি৷ দেশ জুড়ে প্রতিবাদ হওয়ার পরেই জেলে তাঁর খাওয়াদাওয়ার জন্য একটি সিপার বা তরল খাবার চমুক দিয়ে খাওয়ার পাত্র দেওয়া হয়৷' প্রসঙ্গত, অসুস্থ এই সমাজকর্মী তরল খাদ্য ছাড়া অন্য কিছুই খেতে পারতেন না৷

    চিঠিতে আরও অভিযোগ করা হয়েছে, 'তালোজা জেলে করোনার প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়া সত্ত্বেও স্ট্যান স্বামীকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়ার অনুরোধে কর্ণপাত করা হয়নি৷ তাঁর জামিনের আবেদনও বার বার খারিজ করে দেওয়া হয়৷ শেষ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরে যখন স্ট্যান স্বামীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়, তখনই বম্বে হাইকোর্টের হস্তক্ষেপে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করা হয়৷ কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছিল৷'

    সবশেষে রাষ্ট্রপতির কাছে বিরোধী পক্ষের নেতানেত্রীরা আর্জি জানিয়ে বলেছেন, ''স্ট্যান স্বামীকে যাঁরা মিথ্যে মামলায় ফাঁসালেন, যাঁদের জন্য জেলে থাকাকালীন তাঁকে অমানবিক আচরণের শিকার হতে হল, দেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে তাঁদের চিহ্নিত করে পদক্ষেপ করার জন্য অবিলম্বে 'আপনার সরকারকে' নির্দেশ দিয়ে এই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করুন৷'' এই মামলায় আরও যাঁদেরকে 'রাজনৈতিক অভিসন্ধি' নিয়ে গ্রেফতার করে ইউএপিএ ধারায় দেশদ্রোহিতার মতো গুরুতর অভিযোগ আনা হয়েছে, তাঁদেরও অবিলম্বে মুক্তির জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেছেন বিরোধী নেতানেত্রীরা৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: