• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • আধো বোল ফোটার বয়সেই কামাল, পটাপট বলে দিচ্ছে অবিশ্বাস্য তথ্য, চিনুন ‘এই’ শিশুকে

আধো বোল ফোটার বয়সেই কামাল, পটাপট বলে দিচ্ছে অবিশ্বাস্য তথ্য, চিনুন ‘এই’ শিশুকে

Photo Courtesy- ANI

Photo Courtesy- ANI

একটি দুটি নয় পাঁচটি খেতাব শিশুটির ইতিমধ্যেই পকেটস্থ৷

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: ১ বছর ৯ মাস বয়সী আদিত বিশ্বনাথ তাঁর তীক্ষ্ন মনের শক্তির পরিচয় দিয়ে সারা পৃথিবীতে দারুণ পপুলার হয়েছে। এরইমধ্যে আদিত তার তীক্ষ্ন স্মৃতির দিয়ে একটি -দুটি নয় একেবারে পাঁচটি রেকর্ড করে নিয়েছে৷

    দু বছরের শিশুদের অনেকেই সঠিকভাবে কথাও বলতে পারে না৷ কিন্তু সেই বয়সেই কেউ যদি লোগো চিনে পটাপট বলে দেয়, কিম্বা ঠাকুরের ছবি দেখালেই তার নাম বলে দেয় তাহলে তার মধ্যে কিছু বিশেষ আছে৷

    একেই তো বলে প্রতিভা!  তাতে কোনও সন্দেহ নেই। হায়দরাবাদের এমন এক শিশু আজকাল শিরোনামে। এই শিশুটি কী করেছে তা জানতে সকলেই উন্মুখ হয়ে থাকে৷ ১ বছর ৯ মাস বয়সী আদিত বিশ্বনাথ গরিশটি তার তীক্ষ্ণ মনের শক্তি দিয়ে সারা দুনিয়ায় এই ছোট বয়সেই নাম তৈরি করেছে।

    যে বয়সে শিশুরা মোবাইল এবং টিভিতে কবিতা দেখত, আদিত বিশ্বনাথ গরিষেত্তির মন অন্য কিছু শিখতে শুরু করে। এডিথ নতুন জিনিস শিখতে এবং শিখতে আগ্রহী হয়ে ওঠে। প্রথমে আদিতের বাবা-মা এ সম্পর্কে জানতেন না। কিন্তু একদিন যখন অদিতের মা তাকে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করেছিল, অদিত তাকে সঠিক উত্তর দিয়েছিল।

    ছোট ছেলে এই প্রতিভাধর অদিতকে তার বাবা-মা তাকে বিভিন্ন তথ্য দেওয়া শুরু করে। এতে রঙ, প্রাণীর নাম, পতাকা, ফল, আকার এবং বৈদ্যুতিন গৃহ সরঞ্জামের তথ্য অন্তর্ভুক্ত ছিল। আদিত তা দেখে সব মনে রাখার প্রমাণ দিল। আজ, অদিত নিজের নামে ওয়ার্ল্ড বুক অফ রেকর্ডস, ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস, তেলুগু বুক অফ রেকর্ডস এবংদারুণ স্মৃতিশক্তির জন্য দুটি জাতীয়  রেকর্ড রয়েছে।

    অদিতের মা স্নেহিত এএনআইকে জানিয়েছেন, লোকেরা এখন আদিতকে তার নামে চিনতে পারে৷  গর্বিতা মা আরও জানিয়েছেন - এখন কেবল স্থানীয় নয়, দূর-দূরান্তের লোকেরা তাকে চেনে-জানে৷  অদিত তার তীক্ষ্ন মেধা ও স্মৃতিশক্তির জন্য ওয়ার্ল্ড বুক অফ রেকর্ডসে নিজের জায়গা করে নিয়েছেন৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: