নেতাদের উপরে বীতশ্রদ্ধ, তামিলনাড়ুর একটি কেন্দ্রেই ভোটে দাঁড়াচ্ছেন ১০০০ কৃষক

নেতাদের উপরে বীতশ্রদ্ধ, তামিলনাড়ুর একটি কেন্দ্রেই ভোটে দাঁড়াচ্ছেন ১০০০ কৃষক

প্রতীকী ছবি৷

এই প্রথম নয়৷ তামিলনাড়ুর ইরোড জেলার মোদাকুরিচি আসনেও ২৫ বছর আগে একই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল৷

  • Share this:

    #চেন্নাই: দিল্লিতে কৃষকদের আন্দোলন দেখেছে গোটা দেশ৷ এবার তামিলনাড়ুর কানগেয়াম বিধানসভা কেন্দ্রের প্রায় এক হাজার কৃষক অভিনব প্রতিবাদের পথে হাঁটলেন৷ ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, নেতাদের উপরে বীতশ্রদ্ধ হয়ে কানজেয়ামের প্রায় এক হাজার কৃষক ওই বিধানসভা কেন্দ্র থেকেই ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

    যে পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে চলেছে, তার মধ্যে রয়েছে তামিলনাড়ুও৷ রাজ্যের তিরুপুর জেলার মধ্যে পড়ে এই কানজেয়াম বিধানসভা৷

    ক্ষুব্ধ কৃষকদের দাবি, দীর্ঘদিন ধরেই তাঁরা পরমবিকুলম- আলিয়ার প্রকল্প থেকে জল চেয়ে দাবি জানিয়ে আসছেন৷ কিন্তু না রাজনৈতিক দলের কোনও নেতা, না প্রশাসন, কেউই তাঁদের এই আবেদনে কর্ণপাত করেননি৷ যে কারণে বাধ্য হয়েই তাঁরা নিজেরাই নির্বাচনে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷

    সংবাদসংস্থা পিটিআই-এর খবর অনুযায়ী, গতবছর এই দাবিতেই স্থানীয় বেশ কিছু কৃষক পাঁচ দিন অনশন করেন৷ এর পর তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী ই পালানিস্বামীর সঙ্গে বৈঠকের পর নিজেদের অনশন প্রত্যাহার করেন তাঁরা৷ অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতির পরেও কৃষকদের দাবিপূরণ হয়নি৷

    সেই কারণেই এবার নিজেরাই ভোটে লড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রায় এক হাজার কৃষক৷ মঙ্গলবার তাঁদের মধ্যে একজন মনোনয়ন জমা দেন৷ এর পর বুধবার আরও দশজন কৃষক মনোনয়ন জমা দিয়েছেন বলে খবর৷ বৃহস্পতিবার এবং শুক্রবারের মধ্যে সংখ্যাটা এক হাজার ছুঁতে পারে৷

    তবে এই প্রথম নয়৷ তামিলনাড়ুর ইরোড জেলার মোদাকুরিচি আসনেও ২৫ বছর আগে একই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল৷ ১৯৯৬ সালে ওই আসনে ১০১৬ জন কৃষক মনোনয়ন জমা দেন৷ যার ফলে মোদাকুরিচি কেন্দ্রে মোট প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় ১০৩৩৷ অভূতপূর্ব পরিস্থিতিতে ওই আসনে এক মাস ভোট পিছিয়ে দিতে বাধ্য হয়েছিল নির্বাচন কমিশন৷

    ওই নির্বাচনে ডিএমকে-র সুব্বুলক্ষ্মী জগদীসন এআইডিএমকে-র আর এন কিট্টুস্বামীকে পরাজিত করেন৷ ১০৩৩ জন প্রার্থীর মধ্যে ১০৩০ জনেরই জামানত বাজেয়াপ্ত হয়৷ ১৫৮ জন প্রার্থী একটি করে ভোট পান৷ ৮৮ জন প্রার্থী একটিও ভোট পাননি৷ ১০৩৩ জন প্রার্থীর জন্য মোট ৫০ পাতার ব্যালট পেপার তৈরি করতে হয়েছিল৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: