Home /News /national /
Jammu Railway line: এক সেতুতেই বদলে গেল রিয়াসির মানচিত্র

Jammu Railway line: এক সেতুতেই বদলে গেল রিয়াসির মানচিত্র

Jammu Railway line: পরিসংখ্যান, জ্যামিতির মাপ, অঙ্কের হিসাব বলছে চেনাব বিশ্বের উচ্চতম সিঙ্গেল আর্চ রেলওয়ে সেতু।

  • Share this:

#কলকাতা: ছিল জঙ্গল। হল শহর। একটা সেতু বদলে দিয়েছে জম্মুর রিয়াসি জেলার মানচিত্র। চেনাবের বরফ ঠান্ডা জলের নদীর পাশে রিয়াসি যেন আরও শীতল। চেনাবের গা-ঘেঁষে পাকদন্ডী বেয়ে চলতে থাকা রেয়াসি এখন আর্কষণের কেন্দ্রবিন্দু। লোহা, স্টিল, বড় বড় পণ্যবাহী গাড়ি, ড্রোনের নজরদারি আর মিলিত প্রয়াসের একটা সেতু বদলে দিয়েছে রিয়াসের জীবনকাল। কারণ রিয়াসকে আষ্টেপৃষ্টে জড়িয়ে নিয়েছে চেনাব রেল সেতু।

পরিসংখ্যান, জ্যামিতির মাপ, অঙ্কের হিসাব বলছে চেনাব বিশ্বের উচ্চতম সিঙ্গেল আর্চ রেলওয়ে সেতু। আর রিয়াস বলছে জলপাই রঙের এই স্টিলের সেতু তাদের জীবন। আর একাধিক জীবন ও দিনকাল বদলের কাহিনি নিয়েই এগিয়েছে চেনাব রেল সেতু। চেনাব রেল সেতুতে শ্রীনগরের দিক থেকে আসার সময় প্রথমেই নজরে পড়বে একটা দীর্ঘ টানেল। সেই টানেল থেকে বার হলেই দ্রুত গতির ট্রেন লাইন ধরে দৌড়তে থাকবে চেনাবের দিকে। যে চেনাব পেরোতে হবে বিশ্বের উচ্চতম রেল সেতু ধরে। তারপরে ফের একটা সেতু পেরিয়ে টানেলে ঢুকে যাবে রেল। যার গন্তব্য হবে জম্মু। আর এই সেতু তৈরি ঘিরেই বদলে গিয়েছে রিয়াসি। কারণ এই জেলাতেই তৈরি হচ্ছে চেনাব রেল সেতু।

সেতু অবধি আসতে গেলে সড়কপথে পেরোতে হবে চেনাব নদী। যেখান থেকে সুরুন্ডির যাত্রা শুরু। যে সুরুন্ডি থেকে আরও কাছে এসে ধরা দেয় চেনাব। সুরুন্ডি পেরিয়ে গোসাল, সেখান থেকে কউরি, সেখান থেকে দুগগা, সেখান থেকে সংগলদান৷ আর এই সব এলাকায় উধমপুর-শ্রীনগর-বারামুলা রেলওয়ে লিংক প্রজেক্টের কাজ চলছে। যে প্রকল্প বদলে দিয়েছে গোটা এলাকার অর্থনীতি। পাহাড়,জঙ্গল ঘেরা এই জায়গায় মানুষের কাজ ছিল অল্প চাষাবাদ অথবা ভাঙাচোরা রাস্তা পেরিয়ে কাটরা পৌঁছে যাওয়া৷ সেখানেই যাবতীয় কাজ। আর এখন এই প্রকল্প এলাকায় কাজ করছেন গ্রামবাসীরা।

আরও পড়ুন : বেবি পাউডারে 'ক্যান্সার' বিষ! বিশ্বজুড়ে পণ্য বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্ত ‘জনসন অ্যান্ড জনসন’ সংস্থার

আরও পড়ুন : মঞ্চে ভাষণ দেওয়ার সময়ে আচমকা ছুরি-হামলা সলমন রুশদির উপর! মাটিতে লুটিয়ে বুকারজয়ী!

কথা হচ্ছিল বিজয় কুমারের সঙ্গে। ২০০৬ সাল থেকে চেনাব রেল ব্রিজের প্রকল্পের কাজে যুক্ত। পাঁচ জনের পরিবার চালানোর জন্য অস্থায়ী কাজের ওপরেই ভরসা করতে হত। আর এখন প্রকল্প এলাকায় কাজ করছেন। বিজয়ের মতো অনেকেই এই এলাকায় কাজ করে যাচ্ছে। যাদের বক্তব্য, "মিলেছে রাস্তা, মিলেছে পানীয় জল। রোজ কাজ পাওয়ার প্রতিশ্রুতি।" আর নিজেদের গ্রামে কাজ পেয়েও খুশি তারা।  ভূমি ধ্বসের কারণে বারবার কউরি থেকে কান্ঠান যাওয়ার রাস্তা ভেঙেছে। সেই বিপদ সংকূল পথে এখন আর যাতায়াত করতে হয় না তাদের। আগামিদিনে তারা অপেক্ষা করে আছেন রেলওয়ে সেতু চালুর জন্য৷

Abir Ghosal

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Indian Railway

পরবর্তী খবর