দেশ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

একটি পা-ই ভরসা, ক্রাচে ভর করে মাঠে কোদাল চালাচ্ছেন চাষি! দেখুন ভিডিও

একটি পা-ই ভরসা, ক্রাচে ভর করে মাঠে কোদাল চালাচ্ছেন চাষি! দেখুন ভিডিও
এভাবেই কাজ করতে দেখা গিয়েছে ওই চাষিকে৷ Photo-Twitter

এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই ওই কৃষকের মনের জোর দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা৷

  • Share this:

#কলকাতা: এক পা নেই৷ চলাফেরা করতে ভরসা ক্রাচ৷ এমন প্রতিকূলতাকে সঙ্গী করে বেঁচে থাকতে গেলে অনেকেই হাল ছেড়ে দেন, হয়ে পড়েন পরনির্ভরশীল৷ কিন্তু সবাই তো একধাঁচে গড়া হন না৷ শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে মনের জোরে জয় করে নেন তাঁরা৷ সেরকমই এক কৃষকের ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল৷

ওই ভিডিওটি শেয়ার করেছেন মধু মিথা নামে একজন আইএফএস অফিসার৷ ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, ক্রাচের সাহায্যে এক পায়ে ভর করে কৃষি কাজ করে চলেছেন একজন চাষি৷ ক্রাচের সাহায্যেই হাতে কোদাল নিয়ে জলে ভরা কৃষি জমির মধ্যে কাজ করে চলেছেন ওই কৃষক৷

এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই ওই কৃষকের মনের জোর দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা৷ জীবনযুদ্ধে টিকে থাকার লড়াইয়ের রসদ যেন ওই কৃষকের মধ্যে খুঁজে পাচ্ছেন অনেকেই৷ যিনি এই ভিডিওটি ট্যুইট করেছেন, সেই আইএফএস অফিসারও লিখেছেন, 'কোনও শব্দই এই ভিডিও-টিকে ব্যাখ্যা করার জন্য যথেষ্ট নয়৷'

ভিডিও-টিতে দেখা যাচ্ছে, এক পায়ের উপরে শরীরের ভারসাম্য বজায় রেখেই ক্রাচে ভর দিয়ে আর পাঁচজন কৃষকের মতোই কোদাল চালাচ্ছেন ওই কৃষক৷ ৩৫ সেকেন্ডের এই ভিডিও তাঁকে একাধিকবার এমনটা করতে দেখা গিয়েছে৷

তবে এই ভিডিওটি কোথাকার বা ওই কৃষকের নাম, পরিচয় এখনও জানা যায়নি৷ ভিডিওটি প্রথম যিনি ট্যুইট করেছেন, সেই আইএফএস অফিসার জানিয়েছেন, তাঁকে কেউ এই ভিডিওটি ফরওয়ার্ড করেছিল৷ ভিডিও-টির উৎস খুঁজে বের করতে এবং ওই কৃষকের পরিচয় জানারও চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন ওই আইএফএস অফিসার৷ তাঁর পরিচয় জানতে পারলে জানানোর অনেকেই ওই আইএফএস অফিসারকে অনুরোধও করেছেন৷

এক ট্যুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, 'যাঁরা মানুষকে ঠকিয়ে আয় করার পথে বেছে নিয়েছে, তাদের জন্য শিক্ষণীয় হতে পারে এই মানুষটির লড়াই৷ ইনি কঠিন পরিশ্রমে বিশ্বাস রাখা একজন হিরো, যিনি কোনও অজুহাত দিতে রাজি নন৷' আরও একজন লিখেছেন, 'কঠিন পরিশ্রমে বিশ্বাস রাখা এই মানুষটিকে সেলাম৷ ভগবান ওনাকে আরও শক্তি দিন৷ এটাই আত্মনির্ভর হওয়ার যথার্থ উদাহরণ৷'

Published by: Debamoy Ghosh
First published: September 18, 2020, 2:41 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर