'আন্দোলনের স্বাধীনতা থাকলেও অরাজকতার নেই', বিক্ষুব্ধ কৃষকদের বার্তা হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর

'আন্দোলনের স্বাধীনতা থাকলেও অরাজকতার নেই', বিক্ষুব্ধ কৃষকদের বার্তা হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রীর
One Has Freedom To Agitate But Not To Spread Anarchy Says ML Khattar

এদিনের ঘটনার পরেই খট্টর বিকালে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে৷ রাজ্যের সকল ডেপুটি কমিশনার, কমিশনার ও এসপি-দের তিনি উচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছেন৷ খট্টর জানিয়ে দিয়েছেন কোনও ভাবেই রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ব্যহত যেন না হয়৷

  • Share this:

    #চণ্ডীগড়: মঙ্গলবার রাজ্যের উদ্দেশে প্রজাতন্ত্র দিবসের ভাষণ দিলেন হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর৷ এদিন বিক্ষুব্ধ কৃষকদের উদ্দেশ্যেই কড়া বার্তা দিলেন তিনি৷ সাফ জানিয়ে দিলেন যে, তাঁর রাজ্যে তিনি কোনও রকম নৈরাজ্যকে ঠাঁই দিবেন না৷ এদিন তিনি বলেন, "আমাদের স্বাধীনতা আছে মানেই এই নয় যে, আমরা যা খুশি তাই করতে পারি৷ কোথাও একটা সীমাবদ্ধতা আছে৷ আমাদের সংবিধান মেনেই চলতে হয়৷ এটা আমাদের কর্তব্য৷"

    দিল্লিতে গোট দিন কৃষক বিক্ষোভের প্রসঙ্গে খট্টর বলছেন, "আমাদের বাক স্বাধীনতা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা আছে৷ তা আমরা প্রয়োগ করবই৷ কিন্তু এর মানে এই নয় যে, এর অপব্যবহার করব৷ কারোর আবেগে আঘাত দেওয়া বা অপমান করা নয়৷ নিজেদের জীবন নিজের মতো করে বাঁচার স্বাধীনতায় বলা নেই যে, অন্যের জীবনের ক্ষতি করব৷ ফলে আন্দোলনের স্বাধীনতা থাকলেও অরাজকতার নেই"

    অন্যদিকে বিজেপি মনোভাবাপন্ন খট্টরের প্রতি বরাবরই কৃষকদের ক্ষোভ রয়েছে৷ এমনকী চলতি মাসের শুরুর দিকে কৃষি আইনের ভাল দিকগুলি নিয়ে তিনি কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য ‘কিসান মহাপঞ্চায়েত’-এর আয়োজন করেছিলেন৷ কিন্তু কৃষকদের তীব্র বিক্ষোভের মুখে পড়ে শেষমেশ ওই কর্মসূচি তাঁকে বাতিল করতে হয়েছিল৷ কৃষকরা চেয়ার-টেবিল থেকে শুরু করে মঞ্চের একাংশও ভাঙচুর করেন৷ জলকামান এবং কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটিয়েও কৃষকদের রুখতে পারেনি পুলিশ।


    ‘কিসান মহাপঞ্চায়েত’-এর অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়েছেন খট্টর৷ কোনও ভাবেই তিনি আর রাজ্যে নৈরাজ্য চান না৷ সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর রিপোর্ট খট্টর এদিনের ঘটনার পরেই খট্টর বিকালে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেন পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে৷ রাজ্যের সকল ডেপুটি কমিশনার, কমিশনার ও এসপি-দের তিনি উচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছেন৷ খট্টর জানিয়ে দিয়েছেন কোনও ভাবেই রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা ব্যহত যেন না হয়৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published: