দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বন্যা থেকে বাঁচতে গোয়াল ঘরে বাঘ, বস্তা ভেবে ছুঁয়ে ফেললেন বৃদ্ধা!

বন্যা থেকে বাঁচতে গোয়াল ঘরে বাঘ, বস্তা ভেবে ছুঁয়ে ফেললেন বৃদ্ধা!
কাজিরাঙার বন্যা থেকে বাঁচার চেষ্টা একটি বাঘের৷

বাঘটিকে উদ্ধারের জন্য এরপর বন দফতরকে খবর দেন বাড়ির মালিক৷

  • Share this:

#কাজিরাঙা: কাজিরাঙা অভয়ারণ্যের প্রায় ৯৫ শতাংশ এলাকাই জলের তলায় চলে গিয়েছে৷ বহু বন্যপ্রাণী প্রাণ বাঁচাতে জঙ্গল ছেড়ে জাতীয় সড়ক এবং লোকালয়ে চলে আসছে৷ বাদ যায়নি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারও৷ সেরকমই একটি বাঘ জঙ্গল থেকে বেরিয়ে সোমবার আগোরাতলি এলাকায় এক গবাদি পশুপালকের বাড়িতে এসে আশ্রয় নিল৷

শুধু তাই নয়, দীর্ঘক্ষণ জলের মধ্যে সাঁতরে এসে বাঘটি এতটাই কাহিল হয়ে পড়েছিল যে তার নাগালের মধ্যে একপাল ছাগল থাকলেও তাদের গায়ে আঁচড়ও কাটেনি বাঘটি৷ এমনকী বাড়ির বাসিন্দা এক বৃদ্ধা ভুল করে বাঘটির গায়ে হাত দিয়ে ফেললেও তাঁকেও আক্রমণ করেনি বাঘটি৷

যে বাড়িটিতে বাঘটি আশ্রয় নেয় তার মালিক কমল শর্মা জানিয়েছেন, জঙ্গল লাগোয়া তাদের বাড়িতে একটি ছাউনির নীচে ছাগল রাখা হয়৷ প্রবল বর্ষায় চারপাশে জল জমে থাকলেও ওই জায়গাটি তুলনামূলক ভাবে কিছুটা উঁচুতে৷ সেখানে এসে আশ্রয় নেয় বাঘটি৷

কমলবাবু জানান, রাত দেড়টা নাগাদ অস্বাভাবিক শব্দ পেলেও তাঁরা গুরুত্ব দেননি৷ কিন্তু সকালে উঠে বাড়ির চত্বরে মাটির উপরে বড় বড় পায়ের ছাপ দেখতে পায়৷ তা দেখে তাঁরা আন্দাজ করেন, বাঘের মতো কোনও বন্যপ্রাণী এসে সেখানে হয়তো আশ্রয় নিয়েছিল৷ কিন্তু বাঘটি চলে গিয়েছে ভেবে কমলবাবুর মা ছাগলদের খাবার দিতে যান৷ তখনই তিনি জলের মধ্যে বস্তার মতো কিছু উঁচু হয়ে থাকতে দেখেন৷ কিন্তু সেটির গায়ে হাত দিতেই আঁতকে ওঠেন ওই বৃদ্ধা৷

কমলবাবুর কথায়, 'ঘরে ফিরে আমার মা প্রায় ১৫ মিনিট ধরে কাঁপছিলেন৷ পরে তিনি জানান, তিনি বাঘের গায়ে হাত দিয়েছেন৷' কমলবাবুর দাবি অনুযায়ী, মাত্র ফুট তিনেকের দূরত্ব থেকে তাঁরাও বাঘটিকে দেখেছেন৷

এক সময় ভয় পেয়ে গিয়ে বাঘটি ছাগল রাখার জন্য ঘেরা জায়গার পাশেই জমা জলের মধ্যে নেমে যায়৷ সেখানে কোনওক্রমে গলা উঁচু করে অপেক্ষা করতে থাকে সে৷ বাঘটিকে উদ্ধারের জন্য এরপর বন দফতরকে খবর দেন বাড়ির মালিক৷ বাঘ দেখতে ভিড় করে থাকা জনতাকেও সরিয়ে দেয় বনরক্ষীরা৷ যদিও বাঘটিকে উদ্ধারে স্থানীয় বাসিন্দারাও সাহায্য করেন৷ বাঘটিকে ধরতে ঘুমপাড়ানি গুলিরও ব্যবহার করা হয়নি৷ শেষ পর্যন্ত প্রায় ১১ ঘণ্টা পরে বাঘটিকে নিরাপদে কাছাকাছি উঁচু জায়গায় যাওয়ার পথ করে দেওয়া হয়৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: July 14, 2020, 8:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर