• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • Pet Dog: 'ও বাঁচলেই হল', পোষ্য কুকুরকে নিজের মাস্ক খুলে পরিয়ে দিলেন বৃদ্ধ!

Pet Dog: 'ও বাঁচলেই হল', পোষ্য কুকুরকে নিজের মাস্ক খুলে পরিয়ে দিলেন বৃদ্ধ!

ভালোবাসা...

ভালোবাসা...

করোনার কোপে পোষ্যদের জীবনহানির ঘটনাও সামনে এসেছে। এহেন এক আতঙ্কভরা সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি ভিডিও। যা দেখলে শুধু ভালো লাগবে, তাই নয়। বরং মানুষকে আরও একটু যেন মানবিকও হতে শেখাবে।

  • Share this:

    #দিল্লি: ফের করোনায় কাঁপছে গোটা বিশ্ব। ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি ভারতে। প্রতিদিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা রেকর্ড গড়ছে। এই পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মাস্ক ছাড়া এক মুহূর্ত বাইরে নয়। আর এই নিয়ম যে শুধু মানুষের জন্য তা কিন্তু নয়। বরং যাঁদের বাড়িতে পোষ্য রয়েছে, তাঁদের জন্যও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, বাইরে নিয়ে গেলে পোষ্যকেই পরান মাস্ক। এমনকী করোনার কোপে পোষ্যদের জীবনহানির ঘটনাও সামনে এসেছে। এহেন এক আতঙ্কভরা সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল একটি ভিডিও। যা দেখলে শুধু ভালো লাগবে, তাই নয়। বরং মানুষকে আরও একটু যেন মানবিকও হতে শেখাবে।

    ইন্সস্টাগ্রাম থেকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা মিলেছে একজন বয়স্ক মানুষ আর তাঁর পোষ্য কুকুরের। রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়ার সময় অশীথিপর বৃদ্ধকে দেখা যায় সঙ্গে থাকা একটি মাত্র মাস্ক নিজে না পরে, পরিয়ে দিয়েছেন নিজের পোষ্যের মুখে। আর পাঁচটা সাধারণ মানুষের কাছে বৃদ্ধের এহেন কাজ কিছুটা 'অস্বাভাবিক' ঠেকতে পারে। ঠেকেছেও। খুব স্বাভাবিক কারণেই বৃদ্ধের দিকে প্রশ্ন ধেয়ে এসেছে, 'নিজে না পরে কুকুরকে মাস্ক পরিয়েছেন কেন?'

    প্রশ্নের পিঠে প্রায় সঙ্গেসঙ্গেই চলে আসে উত্তর। নিজের পোষ্য়কে আদর করতে-করতে বৃদ্ধের উত্তর, 'একদম ছোট থেকে ওকে বড় করলাম। আমি মরে গেলে আমার আফসোস হবে না, কিন্তু আমি মরে গেলেও ওকে মরতে দেব না।' বৃদ্ধের এই উত্তরই মন জিতে নিয়েছে নেটিজেনদের। তবে, অনেককেই আবার অবাকও করেছে। তবে, বৃদ্ধের ভালোবাসা যে অকৃত্রিম, তা নিয়ে দ্বিমত নয় কেউই।

    আর মনিব যখন মাস্ক পরিয়ে দিয়েছে, প্রিয় পোষ্যও যেন বুঝে নিয়েছে মাস্কের প্রয়োজনীয়তা। তাই বৃদ্ধের কাঁধে ঘুরতে-ঘুরতেও এক মুহূর্তের জন্যও মাস্ক খুলে ফেলার চেষ্টা করছে না সে। প্রশ্নের মুখে বৃদ্ধ বলছিলেন, 'ও আমার বন্ধু, সঙ্গী। ওকে আমি মরতে দিতে পারব না।' বন্ধুত্বের জন্য জীবন বাজি রাখতে পারে ক'জন? ভুলুর জন্য তার মনিব কিন্তু পারে।

    Published by:Suman Biswas
    First published: